ঢাকা, বুধবার, ৫ পৌষ ১৪২৫, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

ট্যাটু করার আগে যা জানা উচিত

এস এম গল্প ইকবাল : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-১০-০৩ ৯:০৪:১৪ এএম     ||     আপডেট: ২০১৮-১০-০৩ ২:২৯:০৩ পিএম
প্রতীকী ছবি

এস এম গল্প ইকবাল : ট্যাটুর ব্যথা হলো সাবজেক্টিভ। একজন লোকের যেখানে বেশি ব্যথা হয়, অন্যজনের সেখানে তেমনটা নাও হতে পারে। কিন্তু তা সত্ত্বেও শরীরে কিছু স্থান রয়েছে, যেখানে অন্যান্য স্থানের তুলনায় ব্যথা বেশি হয় এবং এ কথা সকলের জন্য প্রযোজ্য।

ব্যথা সকল লোকের ক্ষেত্রে একই নয়
পাঁজর ও গলার মতো স্থানে ট্যাটু করার সময় সাধারণত খুব বেশি ব্যথা সহ্য করতে হয়, কিন্তু বাস্তবে ট্যাটু করেছে এমন প্রত্যেক লোককে ‘কোন স্থানে সবচেয়ে বেশি ব্যথা অনুভব হয়’ জিজ্ঞেস করলে ভিন্ন ভিন্ন উত্তর পাবেন। যাহোক, ব্যথার মাত্রা এবং ব্যথার সহ্যশক্তি সাবজেক্টিভ এবং যে স্থানে কেউ তীব্র ব্যথা অনুভব করে, সেখানে অন্য কেউ হালকা ব্যথা অনুভব করতে পারে। কিন্তু কিছু ঐকমত্য রয়েছে যে, শরীরের কিছু স্থানে ব্যথা অন্যস্থানের তুলনায় বেশি হয়।

চলুন জেনে নেওয়া শরীরের কোন কোন স্থানে ট্যাটু করানোর সময় ব্যথা সবচেয়ে বেশি এবং সবচেয়ে কম সহ্য করতে হয়।

বেশি ব্যথা: ভেতরের কবজি
ক্লাব ট্যাটুর প্রতিষ্ঠাতা সিয়ান ভাউডেল বলেন, তিনি ট্যাটু করে যে স্থানে সবচেয়ে বেশি ব্যথা পেয়েছেন তা হলো কবজি। তিনি বলেন, ‘আমি সম্পূর্ণ বাহু এবং পিঠের সর্বত্র ট্যাটু করেছিলাম, কিন্তু সবচেয়ে বেশি ব্যথা পেয়েছি ভেতরের কবজিতে, ঠিক যেখানে ফ্লেক্স পয়েন্ট আছে। তিনি ১৯৯৫ সাল থেকে ট্যাটু ক্লাব পরিচালনা করে আসছেন এবং এখানে যারা ট্যাটু করেছেন তারা বলেন যে তারাও ভেতরের কবজিতে সবচেয়ে বেশি যন্ত্রণা অনুভব করেন।

বেশি ব্যথা: পাকস্থলী
ট্যাটুশিল্পী এবং গ্রাহকদের কাছ থেকে ভাউডেল অবগত হন যে, ট্যাটু করার জন্য অন্যতম সবচেয়ে বেদনাদায়ক স্থান হলো পাকস্থলী। সবচেয়ে বেশি ব্যথা অনুভূত হয় এমন অন্যান্য স্থান হচ্ছে হাঁটুর পেছন, ঘাড়, গলা ও পাঁজর।

আপনার ট্যাটু শিল্পী সম্পর্কে জানুন
অন্য একটি বিষয় যা অধিকাংশ লোকে বিবেচনা করে না তা হচ্ছে, কে তাদের ট্যাটুশিল্পী। কিছু ট্যাটুশিল্পী অন্যদের তুলনায় বেশি ভারি হাতের, তারা আপনাকে বেশি যন্ত্রণাদায়ক অভিজ্ঞতা দেবে। যদি আপনি ব্যথার প্রতি সংবেদবশীল হন তাহলে ভারি হাতের নয় এমন ট্যাটুশিল্পীর কাছে যান।

অন্যান্য যেসব বিষয় ব্যথাকে প্রভাবিত করে
কিছু স্বাস্থ্য সমস্যার কারণে ট্যাটু করার সময় আপনি অধিক ব্যথা অনুভব করতে পারেন। ডাউডেল বলেন, ‘কিছু লোকের ইনজুরি থাকে এবং তাদের শরীরের কিছু অংশে উচ্চ সংবেদবশীলতা থাকে।’ কিছু লোক ধারণা করেন যে, ট্যাটু হাড়ে বেশি ব্যথা দেয়। অন্যরা ভাবে যে, ত্বক কতটা ঘন বা পাতলা তার ওপর নির্ভর করে ব্যথা কেমন হবে, যেমন- ত্বক ঘন হলে ব্যথা কম হবে এবং ত্বক পাতলা হলে ব্যথা বেশি হবে। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে এসবের কোনোটিরই ওপর নির্ভর করছে না ব্যথা কতটুকু হবে। ডাউডেল বলেন, ‘এটি নিশ্চিতভাবেই নার্ভ এন্ডিং সম্পর্কিত বিষয়।’ আপনার হাতের ওপরের অংশের ত্বক পাতলা হলেও সেখানে ট্যাটু করলে খুব বেশি ব্যথা পাবেন না, কিন্তু হাতের আঙুলে ট্যাটু করলে অধিক ব্যথা অনুভব করবেন, যেখানে ত্বক সামান্য ঘন এবং টিস্যু সামান্য বেশি।



কম ব্যথা: কাঁধ
আপনার শরীরের যেসব অংশে নার্ভ এন্ডিং কম, সেখানে ট্যাটু করলে ব্যথাও কম হবে। ট্যাটু করার জন্য বহিঃস্থ কাঁধ, কাফ, নিতম্ব এবং বহিঃস্থ বাহুর কথা বিবেচনা করতে পারেন।

ট্যাটুর আকৃতি বনাম শরীরের স্থান
কসমেটিক ফিজিশিয়ান স্ট্যানলি কোভাক বলেন, লোকজন সাধারণত শরীরের স্থানের ওপর লক্ষ্য করে, কিন্তু ট্যাটুর আকৃতির সঙ্গেও ব্যথা সম্পর্কযুক্ত।’ আপনি যত বেশি সময় ধরে যত বেশি ট্যাটু শরীরে করবেন, আপনার ব্যথা তত বেশি হবে। ট্যাটু এমনিতেই জটিল, কিন্তু এটি অধিক শেডিং, অধিক কালারিং এবং বিভিন্ন ধরনের সুই প্রয়োজন হয়- এই সবকিছু ট্যাটু ব্যথা বৃদ্ধি করে।

বয়স
ডা. কোভাক বলেন, ‘আপনি ট্যাটু করলে কেমন ব্যথা পাবেন তা আপনার বয়সের ওপরও নির্ভর করে। ট্যাটু করার ক্ষেত্রে অল্প বয়স্কদের ত্বক প্রাপ্তবয়স্কদের ত্বকের মতো অতটা যন্ত্রণাদায়ক নয়, কারণ তাদের ত্বক তুলনামূলক টাইট এবং ভালোভাবে কালি শোষণ করে।’

ট্যাটুর কারণে শরীরের যেসব স্থানে ইনফেকশন হওয়ার সম্ভাবনা বেশি
খারাপ ব্যাকটেরিয়ার কারণে ইনফেকশন হয়, তাই যখন আপনি কোন ট্যাটু সবচেয়ে বেশি ইনফেক্টেড হয় তা নিয়ে ভাববেন, তখন চিন্তা করুন যে শরীরের কোন কোন অংশ ব্যাকটেরিয়ার সঙ্গে সবচেয়ে বেশি ইন্টার‍্যাকশন করে- প্রায়ক্ষেত্রে পা সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয়। ডাউডেল বলেন, ‘প্রচুর লোক অনুধাবন করে না যে তাদের পা কত বেশি ব্যাকটেরিয়া বহন করে।’ লোকজন অনুধাবন করতে পারে না যে, নতুন ট্যাটুতে পোষা পশু-পাখির সংস্পর্শ কত দ্রুত ইনফেকশন সৃষ্টি করতে পারে যা বড় সমস্যার দিকে নিয়ে যেতে পারে, বলেন ডাউডেল। রাস্তায় সাধারণ হাঁটাও সমস্যার কারণ হতে পারে, বিশেষ করে যদি আপনি ফ্লিপ ফ্লপ অথবা আঙুল উন্মুক্ত থাকে এমন জুতা পরেন। তাই যদি আপনি পায়ে ট্যাটু করতে চান, তাহলে এটি ভালোভাবে পরিষ্কারকরণ নিশ্চিত করুন। হাতের ক্ষেত্রেও একই কথা প্রযোজ্য, কারণ হাত ও আঙুল প্রতিদিন প্রচুর ব্যাকটেরিয়ার সংস্পর্শে আসে।

শরীরের নিম্নাংশে ইনফেকশন বেশি হয়?
অনেকে মনে করে যে, শরীরের নিচের অংশে (যেমন- যোনি ও পেনিসে) ট্যাটু করলে ইনফেকশন বেশি হয়, কিন্তু প্রকৃতপক্ষে ডা. কোভাক ও ডাউডেল উভয়েই অন্য কথা বলছে। ডা. ডাউডেল বলেন, ‘যেকোনো সময় মিউকোসা (মিউকাস মেমব্রেন) থাকে এবং এটি পুরুষদের চেয়ে নারীদের বেশি। এসব টিস্যু ছিঁড়ে গেলে খুব দ্রুত ব্যাকটেরিয়াল ইনফেকশন হতে পারে। কিন্তু ভালো খবর হচ্ছে, এসবে সাধারণত ব্যাকটেরিয়া হয় না, তাই আপনার ইনফেকশন বা সমস্যা হওয়ার প্রবণতা কম, কারণ আপনি এটি ঢেকে রাখেন।’ ডা. কোভাক বলেন, ‘যদি কেউ এমআরএসএ বা ডায়াবেটিস প্রবণ না হন, তাহলে ইনফেকশনের ঝুঁকি তত বেশি হবে না।’

সবচেয়ে বিপজ্জনক ট্যাটু
আজকের বিশ্বে ট্যাটু খুব জনপ্রিয়তা লাভ করেছে, কিন্তু কিছু ট্যাটু রয়েছে যা খুব বেশি বিপজ্জনক। এসব স্থানের একটি হচ্ছে আইবল বা অক্ষিগোলক। ডা. কোভাক বলেন, ‘আইবল ট্যাটুর ক্ষেত্রে ইনফেকশন হওয়ার ঝুঁকি উচ্চ। যদি আপনার চোখে কোনো ইনফেকশন হয়, তাহলে চোখে মারাত্মক সমস্যা হতে পারে, যেমন- দৃষ্টিশক্তি হারানো।’

ট্যাটু পরবর্তী যেসব নির্দেশনা অনুসরণ করা প্রয়োজন
ট্যাটু করলে সবসময় ত্বকের ইনফেকশন হওয়ার ঝুঁকি থাকে। কিন্তু এসবের চিকিৎসা সাধারণত অ্যান্টিবায়োটিক দিয়ে খুব সহজে করা যায়। ত্বকের ইনফেকশন হওয়ার ঝুঁকি কমে যাবে যদি পরিষ্কার ও দায়িত্বশীল প্রতিষ্ঠান থেকে ট্যাটু করেন এবং ট্যাটু পরবর্তী নির্দেশনা মেনে চলেন। ডাউডেল বলেন, ‘অনেকে ট্যাটু পরবর্তী নির্দেশনা মেনে চলেন না, যেমন- সুইমিং পুল, লেক বা নদীতে ঝাঁপ না দেওয়া- অন্তত ট্যাটু করার দুই বা তিন সপ্তাহ পর্যন্ত।’ তিনি বলেন, ‘লোকদের মাঝে ট্যাটু পরবর্তী যত্ন নিয়ে ভুল ধারণা আছে। তারা মনে করে করে যে, ছোট ট্যাটুর যত্ন নেওয়া খুব সহজ, তাদের এই ধারণা সবসময় সঠিক নয়।’ ট্যাটুশিল্পীরাও পরামর্শ দেয় যে, নতুন ট্যাটু নিয়ে ইনটেন্স ফিজিক্যাল অ্যাক্টিভিটি না করতে অথবা জিমে না যেতে, কারণ জিম ব্যাকটেরিয়ার আবাসস্থল হতে পারে। ডাউডেল বলেন, ‘আমি লোকদেরকে বলছি না যে ব্যায়াম না করতে, আমি তাদেরকে বলতে চাচ্ছি যে তারা যেন ব্যায়ামের সময় ট্যাটু ঢেকে রাখে। আমি তাদের নিজেদের ঘামের চেয়ে অন্যদের ঘাম নিয়ে বেশি উদ্বিগ্ন। জিম থেকে খুব সহজে এমআরএসএ’র মতো ব্যাকটেরিয়াল ইনফেকশন হতে পারে। কারণ জিমের মেশিন সঠিকভাবে পরিষ্কার করা নাও হতে পারে। যদি আপনি ট্যাটু করেন এবং এসব মেশিন ব্যবহার করেন, তাহলে আপনি খুব দ্রুত ব্যাকটেরিয়াল ইনফেকশনের সংস্পর্শে আসতে পারেন।’

ট্যাটু মুছে ফেলার সময়ও ব্যথা হয়
ডা. কোভাক হচ্ছেন একজন প্রফেশনাল যিনি নিয়মিত লেজারের সাহায্যে ট্যাটু অপসারণ করেন। তিনি পর্যবেক্ষণ করেন যে, ট্যাটু অপসারণের সময় লোকেরা ব্যথা অনুভব করেন। ট্যাটু অপসারণের সময় শরীরের স্থানের ওপর ব্যথা নির্ভরশীল নয়, ট্যাটুর আকৃতির ওপর নির্ভর করে। ট্যাটু যত বড় হবে, ব্যথার পরিমাণ তত বেশি হবে। বড় ট্যাটু অপসারণের ক্ষেত্রে ডা. কোভাক সচরাচর টপিক্যাল অ্যানেসথেটিক ব্যবহার করেন।

তথ্যসূত্র : রিডার্স ডাইজেস্ট
 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/৩ অক্টোবর ২০১৮/ফিরোজ

Walton Laptop
 
     
Marcel
Walton AC