ঢাকা, বুধবার, ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ২১ নভেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

পুরুষের নিপল ব্যথার ৭ কারণ

এস এম গল্প ইকবাল : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-১০-২৭ ৯:০৯:৩৯ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-১০-২৭ ৯:১১:৩৯ পিএম
প্রতীকী ছবি

এস এম গল্প ইকবাল : শুধু নারীদের নয়, পুরুষদের নিপলেও ব্যথা হতে পারে। পুরুষদের নিপলও সেনসিটিভ হতে পারে এবং নিপল থেকে রক্তক্ষরণ ও অন্যান্য যন্ত্রণাদায়ক উপসর্গও থাকতে পারে।

নিপল ব্যথা মারাত্মক স্বাস্থ্য সমস্যার ইঙ্গিত দিতে পারে, আবার এটি দুশ্চিন্তা করার মতো কিছু নাও হতে পারে। কিন্তু সঠিক কারণ জানতে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া উচিত।

পুরুষদের নিপলে ব্যথা বা অস্বস্তি হওয়ার কিছু কারণ রয়েছে এবং সুখবর হচ্ছে- নিপল ব্যথা সাধারণত প্রতিরোধযোগ্য এবং চিকিৎসাযোগ্য। এখানে আপনার নিপল ব্যথার সাতটি কারণ আলোচনা করা হলো।

* আপনি ব্যায়ামের ভুল পোশাক পরছেন
নর্থওয়েল হেলথের ইমার্জেন্সি মেডিসিনের সহকারী অধ্যাপক রবার্ট গ্লেটার বলেন, ‘দৌঁড় বা অনুশীলনের সময় কাপড়ের সঙ্গে ঘর্ষণ হচ্ছে নিপল ব্যথার একটি সর্বাধিক কমন কারণ।’ তিনি যোগ করেন, ‘নিপলে সুঁই বিদ্ধ হওয়ার অনুভূতি, বর্ধিত সেনসিটিভিটি, চুলকানোর অনুভূতি অথবা নিপল থেকে রক্তক্ষরণও হতে পারে।’ তিনি আরো বলেন, ‘দৌঁড় ছাড়া অন্যান্য পুরুষদের মাঝেও আমি এটি দেখি যারা ভার্টিকেল অথবা হরিজোন্টাল মুভমেন্টে ব্যায়াম করেন বা খেলেন, যেমন- সকার, রাগবি, পলিওমেট্রিক্স, বক্সিং এবং জুম্বা।’

লিক্রা থেকে তৈরিকৃত নয় এমন টাইট-ফিটিং শার্ট বা ট্যাঙ্ক টপ অথবা কটন টি-শার্ট ও ট্যাঙ্ক টপ পরার কারণে আপনি নিপলে ঘষা খাওয়ার অনুভূতি বা ব্যথা অনুভব করতে পারেন। স্ট্রেচিং বা যোগব্যায়ামের জন্য স্প্যানডেক্স কাপড় তুলনামূলক ভালো যেখানে প্রচুর ঘামবেন না। কিছু ক্ষেত্রে নিপলের সাইজও ম্যাটার করে। ডা. গ্লেটার বলেন, ‘যেসব নিপল পয়েন্টিয়ার ও পোশাকের সংস্পর্শে বেশি থাকে সেসব নিপল প্রায়সময় ঘষা খাওয়ার ঝুঁকিতে থাকে।’

সমাধান? ড্রি-ফিটের মতো নতুন সিন্থেটিক কাপড় ঘষা খাওয়া সম্ভাবনা হ্রাস করে। ডা. গ্লেটার বলেন, ‘আমি দেখি যে আমার অধিকাংশ রোগী তাদের অ্যাথলেটিক পোশাক সিলেক্ট করার ক্ষেত্রে এই টাইপের ফ্যাব্রিককে প্রাধান্য দেয়। আবার অধিকাংশ পুরুষ লুজার-ফিটিং শার্টকে প্রাধান্য দেয় যা নিপলে ঘষা খাওয়ার সম্ভাবনা হ্রাস করে। কিছু পুরুষ প্রোটেক্টিভ কভারিং (যা নিপ গার্ড নামে অধিক পরিচিত) ব্যবহার করেন।’

* আপনার পোশাক নতুন অথবা আপনার ফ্যাব্রিক অ্যালার্জি আছে
এমনকি আপনি অ্যাথলেট না হলেও আপনি নিপলে কাপড়ের ঘর্ষণ জনিত ব্যথা অনুভব করতে পারেন। ডা. গ্লেটার বলেন, ‘নতুন কেনা পোশাক পুরুষের নিপলের জন্য অত্যধিক সেনসিটিভ হতে পারে। যেসব কটন কাপড় প্রকৃতিগতভাবে মোটা এবং রাসায়নিকে চুবানো হয়েছে সেসব কটন কাপড় অত্যধিক সেনসিটিভিটির কারণ হতে পারে, যা আউটরাইট অ্যালার্জি অথবা কন্টাক্ট ডার্মাটাইটিস হিসেবে প্রকাশ পেতে পারে।’ তিনি যোগ করেন, ‘যদি আপনার একজিমা অথবা শুষ্ক ত্বক থাকে, তাহলে এটি হওয়ার সম্ভাবনা বেশি।’ তীব্র পর্যায়ে আপনি আমবাত, ক্ষরণ হচ্ছে এমন ফুসকুড়ি, শুষ্ক ত্বক, জ্বালাপোড়া এবং ফোলা লক্ষ্য করতে পারেন। ডা. গ্লেটার বলেন, ‘নিপলে লালতা অথবা আঁশ বিকশিত হতে পারে, সেই সঙ্গে তরলভর্তি ফোস্কাও। যদি আপনার এটি হয়, তাহলে এ ধরনের পোশাক পরিহার করা ভালো- বরফ প্রয়োগ করুন এবং আপনার ফিজিশিয়ানের সঙ্গে কথা বলুন।’ পশমী পোশাক পরাও সীমিত করা ভালো যা ঘাম ও আর্দ্রতা জমিয়ে রাখে এবং এটি ইরিটেশনের কারণ হতে পারে। ডা. গ্লেটার বলেন, ‘পশমী সোয়েটার অত্যধিক নিপল সেনসিটিভিটি সৃষ্টি করে। সাধারণ সমাধান হচ্ছে: নিচে ড্রি-ফিট শার্ট পরা, যা শুধু আপনার নিপলকে রক্ষা করবে না, আর্দ্রতাও (যা স্কিন ব্রেকডাউন অথবা সেকেন্ডারি ইনফেকশনের কারণ হতে পারে) শোষণ করবে।’

* আপনার নিপল ইনফেকশন আছে
সেলফ-গ্রুমিং অথবা রেজার দিয়ে নিপলে লোম কাটার সময় ক্ষতজনিত ইরিটেশন থেকে আপনার নিপলে ইনফেকশন বিকশিত হতে পারে। ডা. গ্লেটার বলেন, ‘ধারালো ক্ষুর ল্যাসারেশন অথবা পাঙ্কচার-টাইপ ইনজুরির কারণ হতে পারে। নিপল ও অ্যারিওলার টিস্যুতে ইনজুরি উল্লেখযোগ্য রক্ত ক্ষরণ ও ব্যথা সৃষ্টি করে।’ এ ধরনের ইনজুরির কারণে ইনফেকশনও সৃষ্টি হতে পারে। ডা. গ্লেটার বলেন, ‘যদি আপনার এই স্থানে গরম অনুভব করেন এবং সেই সঙ্গে ব্যথা ও ফোলা থাকে, তাহলে যত দ্রুত সম্ভব চিকিৎসকের কাছে যান। যদি আপনার জ্বর বা ঠান্ডা শরীর থাকে, তাহলে চিকিৎসকের কাছে যেতে এক মুহূর্তও দেরি করা ঠিক হবে না।’ এটির চিকিৎসা করা একটু কঠিন হতে পারে, কিন্তু এটি দুশ্চিন্তা করার মতো নয়। ডা. গ্লেটার বলেন, ‘আপনার নিপলের এই স্কিন ইনফেকশনের চিকিৎসায় অ্যান্টিবায়োটিক প্রয়োজন হবে। সাধারণত ৭-১০ দিনের চিকিৎসা কোর্সে এটি সেরে ওঠতে পারে।’

* আপনার গাইনেকোমাস্টিয়া আছে
ডা. গ্লেটার বলেন, ‘পুরুষের স্তনে অত্যধিক ফ্যাটি টিস্যু থাকলে গাইনেকোমাস্টিয়া (পুরুষের বড় স্তন) হয়ে থাকে।’ কিছু শারীরবৃত্তীয় কারণে এটি হতে পারে, যেমন- ইস্ট্রোজেন ও টেস্টোস্টেরনের অনুপাতে ভারসাম্যহীনতা এবং ওষুধ বা অ্যালকোহল ব্যবহারের মতো লাইফস্টাইল ফ্যাক্টর, তিনি বলেন। তিনি যোগ করেন, ‘বয়ঃসন্ধিকালে গাইনেকোমাস্টিয়া হওয়া আনকমন কিছু নয়। সুখবর হচ্ছে, এটি সাধারণত ১-২ বছরের মধ্যে নিজে নিজে চলে যায়, কোনো ওষুধ অথবা সার্জারির প্রয়োজন হয় না।’ গাইনেকোমাস্টিয়া সাধারণত প্রাপ্তবয়স্ক পুরুষদের মধ্যে কম হয়ে থাকে, কিন্তু পঞ্চাশোর্ধ্ব পুরুষদের এটি বিকশিত হওয়ার ঝুঁকি বেশি, মায়ো ক্লিনিকের মতে। ৫০ থেকে ৬৯ বছর বয়সের চারজন পুরুষের মধ্যে একজন এই কন্ডিশনে আক্রান্ত হয়। ডা. গ্লেটার বলেন, ‘১০-২০% গাইনেকোমাস্টিয়ার ঘটনার জন্য ওষুধ দায়ী হতে পারে। এক্ষত্রে প্রধান দায়ী হচ্ছে উদ্বেগের চিকিৎসার ওষুধ ভ্যালিয়াম অথবা জ্যানাক্স (এদের মেডিসিন ক্লাস হচ্ছে: বেনজোডায়াজেপাইন)।’ সাধারণত এই ওষুধ সেবন বন্ধ করে দেওয়ার ১-২ মাসের মধ্যে গাইনেকোমাস্টিয়া সেরে ওঠে। ডা. গ্লেটার বলেন, ‘এছাড়া অত্যধিক অ্যালকোহল সেবনের কারণেও গাইনেকোমাস্টিয়া হতে পারে। কারো গাইনেকোমাস্টিয়া ইঙ্গিত দিতে পারে যে তিনি অত্যধিক অ্যালকোহল পান করেন।’ গাইনেকোমাস্টিয়ার ক্ষেত্রে মেডিক্যাল চিকিৎসা কার্যকর, তবে এটি বিকশিত হওয়ার ১-২ বছরের মধ্যে চিকিৎসা শুরু করা গুরুত্বপূর্ণ। ডা. গ্লেটার বলেন, ‘যদি ৬-১২ মাস পর ওষুধ কার্যকর না হয় অথবা গাইনেকোমাস্টিয়া চলে না যায়, তাহলে অন্য একটি অপশন হচ্ছে ব্রেস্ট রিডাকশন সার্জারি।’

* আপনার সিস্ট আছে
পুরুষদের সিস্ট ডেভেলপ হতে পারে এবং সেই সঙ্গে স্তনের টিস্যুতে ইনফেকশন, যদি ঠান্ডা আবহাওয়া অথবা একজিমার ইতিহাসের কারণে নিপল শুষ্ক হয়। এর ফলে নিপলের এক্সপোজড ত্বকে ফাটল ও ছোট ছোট গর্ত হবে। ডা. গ্লেটার বলেন, ‘ব্যাকটেরিয়ার কারণে আপনার ম্যাস্টাইটিস অথবা সেলুলাইটিস হবে, যার চিকিৎসায় অ্যান্টিবায়োটিক ও গরম ভাপ প্রয়োজন হবে।’

* আপনার স্তন ক্যানসার আছে
যদি উপরে বর্ণিত কারণে আপনার নিপল ব্যথা না হয়, তাহলে এটি অধিক মারাত্মক কিছুর লক্ষণ হতে পারে। ডা. গ্লেটার বলেন, ‘ব্যথাবিহীন লাম্প অথবা পুরু স্তন টিস্যু বিরলক্ষেত্রে পুরুষদের স্তন ক্যাবসারের লক্ষণ হতে পারে। এটি মনে রাখা গুরুত্বপূর্ণ যে পুরুষদের স্তন ক্যানসার কমন নয় এবং প্রকৃতপক্ষে বিরল।’ সকল স্তন ক্যানসারের মধ্যে পুরুষদের স্তন ক্যানসারের হার ১ শতাংশেরও কম, যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল ব্রেস্ট ক্যানসার ফাউন্ডেশন অনুসারে। লাম্প বা পিণ্ড সাধারণত ব্যথাবিহীন, কিন্তু কখনো কখনো এতে ব্যথা হতে পারে। এই ক্যানসার ছড়িয়ে পড়লে বগলের নিচে, লসিকাগ্রন্থি অথবা কলার বোনে ফোলা লক্ষ্য করতে পারেন। তীব্র পর্যায়ে পুরুষদের ওপেন সোর বা ফোড়া বিকশিত হতে পারে।

* আপনার স্তনে প্যাজেট রোগ আছে
প্যাজেট রোগ হচ্ছে ক্যানসারের একটি বিরল ধরন। এটি সাধারণত নিপল ও নিপলের চারপাশের রঙিন অংশকে আক্রান্ত করে। প্যাজেট রোগ স্তনে আঁশ, খোলস ও চুলকানি সৃষ্টি করে। এসব উপসর্গ অন্যান্য কন্ডিশনের অনুরূপ, যেমন- একজিমা, তাই এটি নির্ণয়ে ভুল হতে পারে, যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব হেলথ অনুসারে। অধিকাংশ প্যাজেট রোগীর স্তনের টিস্যুতে ক্যানসারাস টিউমার বিকশিত হয়। কি কারণে এই কন্ডিশন বিকশিত হয় তা সম্পর্কে চিকিৎসকরা এখনো নিশ্চিত নন।

তথ্যসূত্র : ম্যান’স হেলথ



রাইজিংবিডি/ঢাকা/২৭ অক্টোবর ২০১৮/ফিরেোজ

Walton Laptop
 
     
Marcel
Walton AC