ঢাকা, মঙ্গলবার, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪, ২৩ মে ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

পোস্টারে-ব্যানারে একুশের চেতনার বেহাল দশা

হাসান মাহামুদ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-০২-২২ ৪:১৬:০৩ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৩-১৬ ৬:৫৩:৫৯ পিএম

হাসান মাহামুদ : একুশে ফেব্রুয়ারি বাঙালি চেতনার একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ।

বাঙালিয়ত্ব অর্জনের লড়াইয়ে ১৯৫২ সাল আমাদের প্রতিবাদ এবং সংগ্রামের শুরুর ক্ষণ। বর্তমানে একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষায় রূপ নিয়েছে। কিন্তু এখনো একুশে ফেব্রুয়ারিকে বিকৃত ইতিহাসে উপস্থাপন করতে দেখা যায়।

বিশেষ করে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের পোস্টার-ব্যানারে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের পোস্টে, এমনকি খোদ অখ্যাত কিছু মিডিয়ার সংবাদেও। রাজধানী ঢাকার অলিগলিতে সাঁটানো কিছু পোস্টারেও দেখা গেছে ভুল বানান।

আবদুল গাফফার চৌধুরীর কালজয়ী ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো’ গানটির প্রথম দুটি লাইন দিয়ে কিছু স্থানে একুশে ফেব্রুয়ারির পোস্টার বা ব্যানার তৈরি করে টাঙাতে দেখা গেছে। সেসব পোস্টারে দেখা গেছে ভুল বানান। কোথাও কোথাও ‘ভুলিতে’ শব্দটি দীর্ঘ ঊ-কার দিয়ে ‘ভূলিতে’ লেখা হয়েছে।

 



অনেকের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রকাশিত বিভিন্ন স্ট্যাটাস ও স্থির চিত্রেও দেখা গেছে বানান ও তথ্যগত ভুলভ্রান্তি। ভুল বানান দেখা গেছে রাজধানীর বিভিন্ন রাজনৈতিক পোস্টারেও।

ভুল বানানের পাশাপাশি তথ্যগত অসঙ্গতিও দেখা গেছে কোথাও কোথাও। একুশে ফেব্রুয়ারির একটি ব্যানারে লেখা, ‘হে অমর একুশে ফেব্রুয়ারি হাজারো মা বোনের ইজ্জ্বতের বিনিময়ে শহীদ দিবস আমি কি তোমায় ভুলিতে পারি।’ এখানে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসের সঙ্গে ভাষা আন্দোলনকে গুলিয়ে ফেলা হয়েছে। এটি ইতিহাসের প্রতি অবজ্ঞা এবং ইতিহাস বিকৃতি বলেও অভিযোগ করেছেন অনেকে।

একটি পোস্টারে লেখা হয়েছে, ‘৫২-র ভাষা আন্দোলনে লাখো শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা।’ অপর একটি পোস্টারে লেখা হয়েছে, ’২১ শে ফেব্রুয়ারি ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে ত্রিশ লক্ষ শহীদের প্রতি জানাই বিনম্র শ্রদ্ধাঞ্জলী’। এটিও ইতিহাস বিকৃতি বলে মন্তব্য করেছেন ইতিহাসবিদ অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন। তা ছাড়া, এ পোস্টারে বেশ কয়েকটি বানান ভুল আছে।

মুনতাসীর মামুন বলেন, ‘আমরা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করি। ৩০ লাখ শহীদদের স্মরণ আমরা প্রতিদিনই করি, কিন্তু উপলক্ষ্যটা ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধ।’

 



এই ইতিহাসবিদ আরো বলেন, ‘যেভাবে প্রকাশ্যে ইতিহাস বিকৃতি চলছে, তাতে আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম বিভ্রান্ত হবে। সংস্কৃতিও কলুষিত হওয়ার আশঙ্কা থাকে।’

এমনকি একটি অখ্যাত দৈনিকে ২১শে ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে প্রধান শিরোনাম (লিড নিউজ) করেছে, ‘মহান স্বাধীনতা দিবস আজ’। এই বিষয়টিও জাতির জন্য ভুল বার্তা বহন করছে বলে মন্তব্য করেছেন বিশিষ্ট সাংবাদিক রাহাত খান।

তিনি বলেন, ‘এটি নিঃসন্দেহে আমাদের ভাষা শহীদদের প্রতি অবজ্ঞা, জাতির সঙ্গে প্রতারণা এবং ভাষা আন্দোলনের আবেগের সঙ্গে প্রতারণা ও মুর্খতা। এসব অচিরেই বন্ধ করা উচিত।’

এসব অনাকাঙ্ক্ষিত ভুল বা বিকৃতির কারণ সর্ম্পকে জানতে চাইলে অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন বলেন, ‘ইতিহাস চর্চা না করাই এর বড় কারণ। এ ছাড়া কিছু লোক মৌসুমি রাজনীতি করে, তারা আবার এসব জাতীয় দিবস বা উপলক্ষ্যকে হাতিয়ার করে দলের লোকদের কাছে পরিচিতি পেতে চায়। তাদের কাছ থেকেই এসব বিকৃতি ঘটছে। এসব রহিত না করতে পারলে বড় ধরনের বিপর্যয় অপেক্ষা করছে আমাদের জন্য।’



রাইজিংবিডি/ঢাকা/২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৭/হাসান/সাইফুল

Walton Laptop