ঢাকা, সোমবার, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ২০ নভেম্বর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

জোড়া লাগা জমজ শিশু জন্মগ্রহণের কারণ

গোবিন্দ তরফদার : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৬-১০-২৬ ২:২৭:৫০ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৪-২৫ ১০:০১:৪১ পিএম

গোবিন্দ তরফদার : মাঝে মধ্যেই শোনা যায়, বুক জোড়া লাগা কিংবা মাথা জোড়া লাগা জমজ শিশু জন্মগ্রহণের খবর। যা বেশ আলোচনার সৃষ্টি করে।

 

উদাহারণ হিসেবে সাম্প্রতিক সময়ে আলোচনায় আসা যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কের দুই যমজ শিশু জাডোন এবং অ্যানিয়াস এর প্রসঙ্গই টানা যেতে পারে। বর্তমানে ১৩ মাস বয়সী এই দুই যমজ ভাই জন্মগ্রহণ করেছিল জোড়া লাগা মাথা নিয়ে।

 

এটি একটি বিশেষ ধরনের সমস্যা, যেটাকে চিকিৎসাবিজ্ঞানের ভাষায় বলা হয় ক্রানিওপেগাস। এই জটিল সমস্যাতে শিশুরা তাদের খুলি এবং মগজ শেয়ার করে থাকে একে অপরের সঙ্গে।

 

ফলে জাডোন এবং অ্যানিয়াস নামক এই যমজ শিশু দুটি জন্মের পর থেকেই শুরু হয় বেঁচে থাকার মরণ পণ লড়াই। শরীরের বৃদ্ধির সঙ্গে তাদের জোড়া লাগা মস্তিস্কের আকার বাড়তে থাকে। চিকিৎসকরা ঝুঁকি নেন বিরলতম অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে শিশু দুটির মাথা আলাদা করার। কারণ এ ধরনের ক্ষেত্রে বাঁচার আশা একেবারে ক্ষীণ।

 

১৪ অক্টোবর নিউ ইয়র্কের মন্তেফিওর শিশু হাসপাতালে টানা ২০ ঘণ্টা নিরলস পরিশ্রমে মাথা সংযুক্ত এই শিশু দুটিকে সফলভাবে পৃথক করতে সক্ষম হয়েছেন চিকিৎসকরা। এই অস্ত্রোপচার সফলভাবে সম্পন্ন করার জন্য প্রয়োজন হয়েছিল ৪০ জন দক্ষ চিকিৎসকের। এই সফল অস্ত্রোপচারটা যিনি নেতৃত্ব দিয়েছেন, তিনি হলেন পেডিয়াট্রিক নিউরোসার্জন ডা. জেমস গুডরিচ| তিনি সি.এন.এনকে বলেছেন, ‘সুখবর, আমরা এটা করতে পেরেছি।’

 

যা হোক, হাফিংটন পোস্ট তাদের এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, এই বিষয়ে অনেকে অনেক থিওরি দিয়েছেন যে, কেন এই ধরনের শিশুরা জন্মগ্রহণ করে।

 

ইউনিভার্সিটি অব মেরিল্যান্ড মেডিকেল সেন্টারের মতে, ‘কনজয়েন্ট ‍টোয়াইন’ তাদের বলা হয় যারা শারীরিকভাবে একসঙ্গে সংযুক্ত থাকে। যে সকল টোয়াইনস আলাদাভাবে জন্মগ্রহণ করে তাদের ভ্রুণ তৈরি হওয়ার সময়ই দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে দুইটি আলাদা ভিন্ন ভিন্ন ভ্রুণ তৈরি হয়। আর যে সকল ভ্রুণ জন্মগ্রহণের সময় পৃথক হতে গিয়ে সম্পূর্ণরুপে হতে পারে না, তারাই পরবর্তীতে কনজয়েন্ট টোয়াইন হিসেবে জন্মগ্রহণ করে।

মায়ো ক্লিনিক এর মতে, একটা ভ্রূণ জন্মগ্রহণের আট থেকে বার দিনের মধ্যে আইডেন্টিক্যাল টুয়াইন আলাদা হতে শুরু করে। এটা ধারণা করা হয় যদি এই প্রক্রিয়াটি ভ্রুণ গঠনের পরে আরো দেরি করে শুরু হয় আনুমানিক ১৩ থেকে ১৫ দিনের মধ্যে তাহলেই সম্ভবত কনজয়েন্ট টুয়াইনের জন্ম হয়।

 

সিটেল চিলড্রেন হসপিটাল এর মতে, ‘কনজয়েন্ট টোয়াইন এর ডিম্বাণু আগে থেকেই বিভক্ত হয়ে থাকে এবং পরে সেটা একত্রিত হয়ে পরে ভ্রুণ তৈরি করে।’

 

ইউনিভার্সিটি অব মেরিল্যান্ড বলেছে, আনুমানিক দুই লাখ নবজাতক শিশুর মধ্যে মাত্র একটি শিশু কনজয়েন্ট টোয়াইন হিসেবে জন্মগ্রহণ করে। তবে এর মধ্যে বেশিরভাগ শিশুই প্রথমদিনেই মারা যায়।

 

বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, আনুমানিক চল্লিশ থেকে ষাট শতাংশ পর্যন্ত জোড়া লাগা শিশুরা মৃতবস্থায় জন্মায়।

 

ইউনিভার্সিটি অব মেরিল্যান্ডের মতে, ক্রানিওপেগাস টোয়াইনরা খুবই বিরল হয়ে থাকে। সারা বছর যতগুলো টোয়াইন জন্মগ্রহণ করে এর মধ্যে দুই শতাংশ ক্রানিওপেগাস টোয়াইন হিসেবে জন্মগ্রহণ করে।

 

যা হোক, মন্তেফিওর শিশু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের মতে, অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে মাথা আলাদা করা জাডোন এবং অ্যানিয়াস শিশু দুটি পুনরায় সুস্থ ও সবল হতে আরো অনেক পথ পাড়ি দিতে হবে।

 

এই জমজ সন্তানের মা নিকোল ম্যাক ডোনাল্ড তার ফেসবুক পেজে লিখেছেন, ‘আমরা এমন একটি জায়গায় দাঁড়িয়ে আছি যা পুরোটাই অনিশ্চয়তা দিয়ে ঘেরা। সামনের কয়েকমাস তাদের অনেক ধরনের ক্রিটিক্যাল সময় পার করতে হবে তাদের পুনরায় সুস্থ হবার লক্ষে, আমরা আসলে এখনো জানিনা অ্যানিয়াস এবং জাডোনের কত সপ্তাহ লাগবে পুরোপুরি সুস্থ হতে।’

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/২৬ অক্টোবর ২০১৬/ফিরোজ

Walton
 
   
Marcel