ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৮ চৈত্র ১৪২৩, ২৩ মার্চ ২০১৭
Risingbd
মার্চ
সর্বশেষ:

ট্রাম্প ফলো করেন যাদের

মনিরুল হক ফিরোজ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-০২-০৫ ৫:২৫:১৭ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০২-০৭ ৬:১০:৩১ পিএম
মেলেনিয়া ট্রাম্প, ভেনেসা ট্রাম্প ও ডোনাল্ড ট্রাম্প জুনিয়র, ইভানকা ট্রাম্প, লারা ট্রাম্প ও এরিক ট্রাম্প, টিফান্নি ট্রাম্প, ডোনাল্ড ট্রাম্প (ঘড়ির কাটার দিকে)

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি ডেস্ক : মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। জনপ্রিয় মাইক্রো ব্লগিং সাইট টুইটারে তার অ্যাকাউন্টের (https://twitter.com/realDonaldTrump) ২৩.৭ মিলিয়ন ফলোয়ার রয়েছে এবং ফলোয়ারের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। কিন্তু তিনি নিজে কাদের ফলো করেন?

চমকপ্রদ বিষয় হচ্ছে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প টুইটারে মাত্র ৪১টি অ্যাকাউন্টকে ফলো করেন। চলুন জেনে নিই, টুইটারে কোন কোন অ্যাকাউন্ট ফলো করেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।

* ফাস্ট লেডি মেলেনিয়া ট্রাম্প : মেলেনিয়া ডোনাল্ড ট্রাম্পের তৃতীয় স্ত্রী। এই জুটি ২০০৫ সালে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন।

* ভেনেসা ট্রাম্প এবং ডোনাল্ড ট্রাম্প জুনিয়র : ভেনেসা ট্রাম্প ডোনাল্ড ট্রাম্পের পুত্রবধূ। সাবেক এই মডেল ডোনাল্ড ট্রাম্প জুনিয়রের সঙ্গে ২০০৫ সালে বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হোন এবং এই দম্পত্তির ৫ সন্তান রয়েছে।

ডোনাল্ড ট্রাম্প ও তার প্রথম স্ত্রী ইভানার সন্তান ডোনাল্ড ট্রাম্প জুনিয়র। ট্রাম্প পরিবারের বড় ছেলে তিনি। ট্রাম্প অর্গানাইজেশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট তিনি এবং সম্প্রতি পেনসিলভানিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গ্রাজ্যুয়েট সম্পন্ন করেছেন।

* ইভানকা ট্রাম্প, বড় মেয়ে : ইভানকা ট্রাম্পের দ্বিতীয় জ্যেষ্ঠ সন্তান। প্রথম স্ত্রী ইভানার মেয়ে। সম্প্রতি নিজের ফ্যাশন ও জুয়েলারি ব্যবসা এবং ট্রাম্প অর্গানাইজেশনের দায়িত্ব ছেড়েছেন তিনি। ধারণা করা হচ্ছে, ব্যক্তিগত ও পরিবারিক ব্যবসার দায়িত্ব ছেড়ে ওয়াশিংটন ডিসিতে স্থায়ী হচ্ছেন রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালনের প্রস্তুতিতে। ৩৫ বছর বয়সী ইভানকা ৩ সন্তানের জনক।

* লারা ট্রাম্প এবং এরিক ট্রাম্প : ইভানা আর ডোনাল্ড ট্রাম্পের তৃতীয় সন্তান এরিক। তিনিও ট্রাম্প অর্গানাইজেশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট। তিনি ট্রাম্প ওয়াইনারির প্রেসিডেন্ট এবং গলফ ক্লাবের দেখভাল করেন। ২০০৬ সালে তিনি এরিক ফাউন্ডেশন তৈরি করেন, যেটি শিশুদের জীবনের ঝুঁকি রয়েছে, এমন রোগ প্রতিরোধে গবেষণা করে।

এরিক ট্রাম্পের স্ত্রী লারা। সাবেক পারসোনাল ট্রেইনার ও টেলিভিশন প্রোডিউসার লারা ২০১৪ সালে এরিককের সঙ্গে বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হোন। লারা প্রাণী রক্ষা বিষয়ক একজন আইনজীবী। ট্রাম্প ফাউন্ডেশনের সঙ্গেও জড়িত।

* টিফান্নি ট্রাম্প, কনিষ্ঠ কন্যা : ডোনাল্ড ট্রাম্পের কনিষ্ঠ কন্যা টিফান্নি, দ্বিতীয় স্ত্রী মারলা ম্যাপেলসের একমাত্র সন্তান। টিফান্নি সাবেক অভিনেত্রী ও টিভি তারকা। ২৩ বছর বয়সী এই ট্রাম্প কন্যা সম্প্রতি পেনসিলভানিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গ্রাজ্যুয়েট সম্পন্ন করেছেন। গত জুলাই মাসে তিনি রিপাবলিকান ন্যাশনাল কনভেনশনে বক্তব্য রাখেন কিন্তু এর বাইরে ট্রাম্পের অন্যান্য প্রাপ্তবয়স্ক সন্তানদের মতো তিনি তেমন গুরুত্বপূর্ণ কোনো দায়িত্বে নেই। ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারণার সময়ও তাকে খুব কমই দেখা গেছে।

* ট্রাম্প হোটেলস, ট্রাম্প ইন্টারন্যাশনাল রিয়েলিটি সহ বিভিন্ন সংস্থার মূল অভিভাবক সংস্থা ট্রাম্প অর্গানাইজেশন : মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর ডোনাল্ড ট্রাম্প ঘোষণা দেন তিনি তার ট্রাম্প অর্গানাইজেশনের দায়িত্ব হস্তান্তর করবেন। যার মধ্যে রয়েছে তার একক কোম্পানি ট্রাম্প উইনারি এবং ট্রাম্প গোল্ড ও। এক্সিকিউটিভ টিম বিশেষ করে তার প্রাপ্ত বয়স্ক সন্তান ডোনাল্ড ট্রাম্প জুনিয়র এবং এরিক ট্রাম্প অর্গানাইজেশন পরিচালনা করবেন। ইভানকা ট্রাম্প ব্যবসার দায়িত্ব ছেড়ে রাষ্ট্রীয় দায়িত্বের সহায়তায় ওয়াশিংটন ডিসিতে স্থায়ী হয়েছেন।

ট্রাম্প অর্গানাইজেশনের টুইটার অ্যাকাউন্ট ছাড়াও ডোনাল্ড ট্রাম্প তার আরো কিছু কোম্পানির টুইটার অ্যাকাউন্ট ফলো করছেন। যার মধ্যে রয়েছে:

- ট্রাম্প গলফ

- ট্রাম্প ওয়াইকিকি হোটেল

-  ট্রাম্প ন্যাশনাল ডোরাল (গলফ কোর্স এবং হোটেল)

- ট্রাম্প ভেগাস হোটেল

- ট্রাম্প হোটেল শিকাগো

- ট্রাম্প ওয়াশিংটন, ডিসি (গলফ কোর্স)

- ট্রাম্প লস অ্যাঞ্জেলেস (গলফ কোর্স)

* ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স : মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার আগে মাইক পেন্স ইন্ডিয়ানা রাজ্যের গর্ভনর ছিলেন।

* রিয়েন্স প্রাইবাস, ট্রাম্পের চিফ অব স্টাফ : রিপাবলিকান ন্যাশনাল কমিটির চেয়ারম্যানের দায়িত্ব ছিলেন রিয়েন্স প্রাইবাস। নভেম্বরের নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট হিসেবে জয়ী হওয়ার পর চিফ অব স্টাফ হিসেবে প্রাইবাসের নাম ঘোষণা করেন। সে সময় প্রাইবাস বলেন, ‘আমি খুবই সম্মানিত বোধ করছি, হোয়াইট হাউজের চিফ অব স্টাফের দায়িত্ব দেওয়ায়।’

* মাইকেল কোহেন, ট্রাম্পের ব্যক্তিগত অ্যাটর্নি : মাইকেল কোহেল এক দশকেরও বেশি সময় ধরে ট্রাম্পের জন্য কাজ করে চলেছেন, তিনি ট্রাম্পের ব্যক্তিগত অ্যাটর্নির দায়িত্ব পালন করছেন।

* ড্যান স্ক্যাভিনো, ট্রাম্পের অ্যাসিসস্ট্যান্ট এবং হোয়াইট হাউজের সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজার :  ড্যাডন স্ক্যাভিনো হোয়াইট হাউসে সোশ্যাল মিডিয়ার পরিচালক, পাশাপাশি ট্রাম্পের সহকারী। তিনি এর আগে ট্রাম্পের ন্যাশনাল গলফ ক্লাবের জেনারেল ম্যানেজার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন এবং কয়েক বছর ধরে ট্রাম্পের সঙ্গে কাজ করে চলেছেন। গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে তিনি ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারণা ক্যাম্পে যোগ দিয়েছিলেন।

 


 

* কোরি লেভানডস্কি, ট্রাম্পের সাবেক ক্যাম্পেইন ম্যানেজার : কোরি লেভানডস্কি গত জুন পর্যন্ত ট্রাম্পের ক্যাম্পেইন দলের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন, এরপর তাকে বরখাস্ত করা হয়। তার স্থলাভিষিক্ত হন পল ম্যানফোর্ট, তবে তিনিও দুই মাসের মাথায় পদত্যাগ করেছিলেন।

বরখাস্ত হওয়ার পর কোরি লেভানডস্কি সিএনএনের রক্ষণশীল ধারাভাষ্যকার হিসেবে কাজ শুরু করেন কিন্তু নভেম্বরে ট্রাম্পের প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হলে তিনি স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করেন।

* ক্যাটরিনা পিয়ারসন, ট্রাম্পের ক্যাম্পেইনের সাবেক মুখপাত্র : ট্রাম্পের নির্বাচনী ক্যাম্পের সময় জাতীয় মুখপাত্র হিসেবে পরিচিত ছিলেন ক্যাটরিনা পিয়ারসন। তিনি এবং ক্যাম্পের আরো কয়েকজন সাবেক কর্মকর্তারা সম্প্রতি ট্রাম্পকে সমর্থনে একটি অলাভজনক সংস্থা চালু করেছেন, যার কাজ হচ্ছে উদার এবং পক্ষপাতদুষ্ট মিডিয়ার বিরুদ্ধে কাজ করা।

* অভিনেত্রী রোমা ডৌনী এবং রিয়েলিটি-টিভি প্রযোজক মার্ক বারনেট : রোমা ডৌনী নব্বই দশকের শেষের দিকে টাচড্ বাই অ্যান অ্যাঞ্জেল টিভি অনুষ্ঠানের অভিনেত্রী ছিলেন  এবং হিস্টোরি চ্যানেলের ‘দ্য বাইবেল’ অনুষ্ঠানের তারকা ও নির্বাহী প্রযোজক ছিলেন। এছাড়া তিনি ‘অ্যাপরেনটিস’ অনুষ্ঠানের প্রযোজক মার্ক বারনেট এর স্ত্রী। প্রেসিডেন্ট হিসেবে ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিষেক অনুষ্ঠান পরিকল্পনায় বারনেট ডিসেম্বরে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে সাহায্য করেছিলেন।

* ভিন্স ম্যাকমাহন, ডব্লিউডব্লিউই এর চেয়ারম্যান : ডব্লিউডব্লিউই এর চেয়ারম্যান এবং সিইও ভিন্স ম্যাকমাহন। ভিন্স এবং তার স্ত্রী লিন্ডার সঙ্গে ডোনাল্ড ট্রাম্পের সুসম্পর্কে কয়েক দশক ধরে বিদ্যমান। এর শুরুটা হয়েছিল ১৯৮০ সালে যখন আটলান্টিক সিটি, নিউ জার্সিতে পরপর দুইটি রাসেলম্যানিয়া ইভেন্ট আনতে ভিন্সকে সহায়তা করেছিলেন ট্রাম্প।

* গ্যারি প্লেয়ার, সাবেক পেশাদার গলফার : দক্ষিণ আফ্রিকার একজন অবসরপ্রাপ্ত পেশাদার গলফার গ্যারি প্লেয়ার। ট্রাম্প অনেক আগে থেকেই তার খেলার ভক্ত। ২০১৪ সালে ট্রাম্প ন্যাশনাল ডোরাল গলফ কোর্সে একটি বিলাসবহুল বাগানবাড়ি গ্যারি প্লেয়ারকে উপহার দিয়েছেন ট্রাম্প।

* বিল রেলি, ফক্স নিউজ উপস্থাপক : বিল রেডি ফক্স নিউজের ‘দ্য রেলি ফ্যাক্টর’ অনুষ্ঠানের উপস্থাপক।

* লরা ইনগ্রাহাম, ফক্স নিউজ উপস্থাপক : ডোনাল্ড ট্রাম্পের একজন স্পষ্টভাষী সমর্থক লরা ইনগ্রাহাম এবং তিনি ফক্স টিভিতে তিনি একাধিক অনুষ্ঠানের উপস্থাপক। এছাড়াও তিনি নিউজ ওয়েবসাইট লাইফজেট এর প্রধান সম্পাদক, যিনি ২০১৬ সালে প্রেসিডিন্ট নির্বাচনের সময় ট্রাম্পের প্রতিদ্বন্দ্বী হিলারি ক্লিনটনের কঠোর সমালোচনা করে খবর প্রকাশ করেছিলেন। 

* এরিক বোলিং, ফক্স নিউজ উপস্থাপক : এরিক বোলিং ফক্স নিউজের ‘দ্য ফাইভ’ অনুষ্ঠানের উপস্থাপক এবং ‘ওয়াক আপ আমেরিকা’ বইয়ের লেখক।

 


 

* শন হ্যানিটি, ফক্স নিউজ উপস্থাপক : শন হ্যানিটি ফক্স নিউজের একজন স্পষ্টবাদী জনপ্রিয় উপস্থাপক এবং পাশাপাশি রেডিও প্রোগ্রাম ‘দ্য শন হ্যানিটি শো’ এর উপস্থাপক।

* ফক্স অ্যান্ড ফ্রেন্ডস, ফক্স নিউজের সকালের অনুষ্ঠান : ফক্স অ্যান্ড ফ্রেন্ডস হচ্ছে ফক্স নিউজের সকালের একটি অনুষ্ঠান যেখানে খবর পর্যালোচনা করা হয়। অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন ব্রায়ান কেলমিড, অ্যাইন্সলে ইয়ারহার্ড, স্টিভ ডুসি, ক্লেটন মরিস এবং অ্যাবি হান্টসম্যান।

* ফক্স নেশন, ফক্স নিউজ পরিচালিত মতামত সাইট : ফক্স নেশন হচ্ছে, ফক্স নিউজ দ্বারা পরিচালিত একটি মতামত এবং ভিডিও ওয়েবসাইট। যখন এটি চালু করা ফক্স জানায়, ‘এখানে সকল আমেরিকানরা তাদের নিজস্ব মতামত ব্যক্ত করতে পারবেন।’

* জেরাল্ড রিভেরা, ফক্স নিউজ ব্যক্তিত্ব : জেরাল্ড রিভেরা টক শো ‘জেরাল্ড’ এর সাবেক উপস্থাপক এবং ফক্স নিউজ ব্যক্তিত্ব। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের সময় ডোনাল্ড ট্রাম্পের অশ্লীল ভিডিও যেসব টিভি চ্যানেল এবং সাইটের প্রযোজকরা প্রকাশ করেছিলেন, তাদের দলে ছিলেন জেরাল্ড রিভেরা। গত অক্টোবরে তিনি বলেন, ‘আমি বহুবার ট্রাম্পের সাক্ষাৎকার নিয়েছি এবং এগুলোর রেকর্ডও করেছি। বিব্রতকর বেশ কিছু ফুটেজ আমার কাছে রয়েছে।’ তবে পরবর্তীতে তিনি তার দাবী থেকে সরে এসেছেন।

* গ্রেটা ভ্যান সাসর্টেন, এমএসএনবিসি উপস্থাপক : গ্রেটা ভ্যান সাসর্টেন এমএসএনবিসি’র ‘ফর দ্য রেকর্ড’ অনুষ্ঠানের উপস্থাপক ছিলেন। গত সেপ্টেম্বরে এমএসএনবিসিতে যোগদানের আগে তিনি ১৪ বছর ফক্স নিউজে কর্মরত ছিলেন।

* মিকা বিজেন্সিকি এবং জো স্ক্রাবরা, এমএসএনবিসি’র ‘মর্নিং জো’ অনুষ্ঠানের সহ উপস্থাপক : এমএসএনবিসি চ্যানেলের ‘মর্নিং জো’ অনুষ্ঠানের সহ উপস্থাপক মিকা বিজেন্সিকি এবং জো স্ক্রাবরা। স্ক্রাবরা সাবেক জিওপি প্রতিনিধিত্বকারী, অর্থাৎ ট্রাম্পের সমর্থক। বিজিন্সিকি উদার ব্যক্তিত্বের পক্ষপাতী। বিজিন্সিকি সম্প্রতি ট্রাম্পের প্রেস সেক্রেটারি শন স্পিসারের প্রথম আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে তার আচরণের জন্য সতর্ক করেছেন।

* অ্যান কোল্টার, রক্ষণশীল লেখক ও ধারাভাষ্যকার : অ্যান কোল্টার রাজনৈতিক ভাষ্যকার, লেখক এবং রক্ষণশীলতার পক্ষে সোচ্চার। তিনি রক্ষণশীল ওয়েবসাইট ‘ব্রেইটবার্ট’ এর নিয়মিত লেখক এবং ফক্স নিউজের  আলোচনায় অংশ নিয়ে থাকেন।

* ড্রার্জ রিপোর্ট, নিউজ অ্যাগ্রিগেশন ওয়েবসাইট : এই সাইটটিতে সারাদিনের খবর একত্রিক করে প্রকাশ করা হয় এবং সাইটটি প্রচন্ডভাবে রক্ষণশীল। ডোনাল্ড ট্রাম্পের কট্টর সমর্থক সাইটটির মালিক ম্যাট ড্রার্জ।



 

* পিয়ার্স মরগান, মেইল অনলাইন এর যুক্তরাষ্ট্র সম্পাদক : বিট্রিশ মর্নিং শো ‘গুড মর্নিং ব্রিটেন’ এর উপস্থাপক পিয়ার্স মরগান এবং তিনি মেইল অনলাইন এর যুক্তরাষ্ট্রে অংশের সম্পাদক। ডোনাল্ড ট্রাম্পের একজন ঘনিষ্ঠ বন্ধু হিসেবে পরিচিত পিয়ার্স মরগান।

* টিম ট্রাম্প, ট্রাম্পের সমর্থক বৃদ্ধির অফিসিয়াল অ্যাকাউন্ট : টিম ট্রাম্প অ্যাকাউন্ট থেকে ট্রাম্পের আপডেট তথ্য এবং সংবাদ প্রচার করা হয়। অ্যাকাউন্টটি ট্রাম্প স্বয়ং পরিচালনা করেন না, তবে এই অ্যাকাউন্টে তার পোস্ট রিটুইট করা হয় নিয়মিত।

* ডায়মন্ড অ্যান্ড সিল্ক, ব্লগার এবং ট্রাম্প সমর্থকদের অ্যাকাউন্ট : ডায়মন্ড অ্যান্ড সিল্ক টুইটার অ্যাকাউন্টটি লিনেট হার্ডওয়ে এবং রোশেল রিচার্ডসন নামক দুই নারীর উদ্যোগ চালু হয়েছে। এই দুই জনপ্রিয় নারী ইউটিউবার ট্রাম্পের কট্টর সমর্থক।

* ক্যাটরিনা ক্যামপিন্স, ট্রাম্প সারোগেট : ক্যাটরিনা ক্যামপিন্স ‘দ্য অ্যাপরেনটিস’ অনুষ্ঠানের একটি পর্বে হাজির হয়ে নিজেকে ‘রিয়েল এস্টেস্ট মুঘল’ এবং ট্রাম্পের সারোগেট হিসেবে অভিহিত করেছিলেন।

তথ্যসূত্র : বিজনেস ইনসাইডার



রাইজিংবিডি/ঢাকা/৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৭/ফিরোজ

Walton Laptop