ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ২৩ নভেম্বর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

উন্নত ফিচারে ওয়ার্কপ্লেস আনল ফেসবুক

মো. রায়হান কবির : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-০৪-১৯ ১:৫০:০০ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৪-১৯ ১:৫০:০০ পিএম

মো.  রায়হান কবির : ফেসবুক, গুগল কিংবা অ্যাপলের মতো প্রতিষ্ঠান নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে তাদের পণ্য বা সেবার মান উন্নয়নে।

তারই ধারাবাহিকতায় ফেসবুক গত ছয়মাসে ডেভেলপ করেছে তাদের বিজনেস ওরিয়েন্টেড যোগাযোগ ব্যবস্থা ওয়ার্ক প্লেস বাই ফেসবুক। এটা সাধারণ ফেসবুকের মতোই, তবে এর পরিধি হচ্ছে কোম্পানির নিজস্ব কর্মীদের ভেতর। নিজেদের ভেতর যোগাযোগ আরো বাড়াতে কিংবা রিয়েল টাইম আপডেটের জন্যে ফেসবুকের নতুন প্রয়াস।

সোশ্যাল নেটওয়ার্ক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত ফেসবুকে ছবি বা ভিডিও শেয়ারের অপশন থাকলেও ব্যবসা সম্পর্কিত ডকুমেন্টস শেয়ার করাটা খুব একটা সহজ ছিল না। তাছাড়া কেউ নিজের প্রতিষ্ঠানের গোপন নথি অন্যের সঙ্গে শেয়ার করাটা পছন্দই বা করবে কেন? কেননা সবাই কোনো না কোনো প্রতিযোগিতার ভেতর দিয়েই যায়। তাই প্রতিযোগী প্রতিষ্ঠানের কাছে নিজের সিক্রেট কেউই শেয়ার করতে চাইবে না।

সেক্ষেত্রে সম্পূর্ণ নিজস্ব নেটওয়ার্ক থাকলে কোম্পানির কর্মকর্তা ও কর্মীদের যোগাযোগ সহজ হয়। নিজের কাজ শেয়ার করা যায় লাইন ম্যানেজারের কাছে। কিংবা যিনি একসঙ্গে অনেকের কোয়ালিটি নিয়ন্ত্রণের কাজ করেন, তার পক্ষে সবার টেবিলে বা ডেস্কে ঘুরে ঘুরে দেখা সময়সাপেক্ষ ব্যাপার। সেক্ষেত্রে ফেসবুক ওয়ার্কপ্লেস নিজেদের জন্যে কোম্পানির নিজস্ব মেইলের মাধ্যমে সৃষ্টি করেছে দারুন এক যোগাযোগ মাধ্যম। যেখানে সহজেই ভিডিও শেয়ারিং কিংবা কল কনফারেন্সিং করা যায়। নিজস্ব কমিউনিটিতে শেয়ার করা যায় ছবি কিংবা কাজের আপডেট।

ওয়ার্কপ্লেস ইতিমধ্যেই ১৪,০০০ প্রতিষ্ঠান ব্যবহার করছে পৃথিবী জুড়ে ৭৭টি ভাষায়। ওয়ার্কপ্লেসের ওয়েবে গিয়ে দেখা যায়, সেখানে এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের প্রতিষ্ঠানগুলোর ভেতর সবার প্রথমেই আছে ‘ব্র্যাক’ এনজিও’র নাম। ব্র্যাকের স্টোরিতে ক্লিক করে জানা যায়, ব্র্যাক তার ম্যানেজার লেভেলের সঙ্গে এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টরদের যোগাযোগের জন্যে ওয়ার্কপ্লেস ব্যবহার করছে।

 

 

তাছাড়া যারা দেশজুড়ে দুর্যোগ মোকাবেলায় অংশ নেয় তারাও তাদের কাজের নির্দেশনা এবং কাজের আপডেটের জন্যে ব্যবহার করে ওয়ার্কপ্লেস। যেমন, বন্যা আক্রান্ত কোনো এলাকার বর্তমান পরিস্থিতি কি, সেখানে কি ধরনের সাহায্য লাগবে বা এখন পর্যন্ত কতটুকু সাহায্য করা হয়েছে, এই ধরনের তথ্যগুলো তাদের সাহায্যকারী দলের সঙ্গে শেয়ারের মাধ্যমে কাজের গতি বাড়ানো সম্ভব।

তাছাড়া ওয়ার্কপ্লেসে বিভিন্ন ফাইল শেয়ারিং এর ব্যবস্থা আছে। যেটা কোম্পানিগুলো হয়তো টাকা খরচ করে আগে করতো। যেমন নিজের প্রতিষ্ঠানের ভেতর বড় কোনো ফাইল শেয়ার করতে হলে ব্যবহার করা হতো নিজস্ব সার্ভার। কিন্তু ওয়ার্কপ্লেস এখানে ওয়ান ড্রাইভ, কুইপ, বক্স, গুগল ড্রাইভ এবং সেলসফোরস এর মতো তথ্য শেয়ারের ব্যবস্থা রেখেছে। এবং তারা এর উন্নয়নে এবং সেবার মান বৃদ্ধির লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে।

তাহলে কি বিজনেস নেটওয়ার্কও সোশ্যাল নেটওয়ার্কের মতো ফেসবুকের দখলে চলে যাচ্ছে? 

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৯ এপ্রিল ২০১৭/ফিরোজ

Walton
 
   
Marcel