ঢাকা, বুধবার, ৫ পৌষ ১৪২৫, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

স্টিভ জবসের সেরা ৬ উদ্ভাবন

মোখলেছুর রহমান : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-১০-০৮ ৪:৫৪:২৬ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-১০-০৮ ৫:০৪:৩৭ পিএম

মোখলেছুর রহমান : গত ৫ অক্টোবর ছিল অ্যাপলের সহ-প্রতিষ্ঠাতা স্টিফেন পল জবসের সপ্তম মৃত্যুবার্ষিকী। তিনি স্টিভ জবস নামেই বিশ্বে পরিচিত। ২০১১ সালের এই দিনে মাত্র ৫৬ বছর বয়সে প্যানক্রিয়াটিক ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে মারা যান অ্যাপলের স্বপ্নদর্শী এই সাবেক সিইও।

অ্যাপলকে বিশ্বের বৃহত্তম এবং সর্বাধিক পছন্দের একটি প্রযুক্তি ব্র্যান্ড হিসেবে তৈরির পিছনে জবসকেই প্রধান কারিগর হিসেবে বিবেচনা করা হয়। তিনি প্রযুক্তি পণ্য ডিজাইন করতে এবং তার পরিপূর্ণতা দিতে ভালোবাসতেন। তার হাত ধরেই তৈরি হয়েছে অ্যাপলের অভূতপূর্ব সব ডিভাইস। মোবাইল, কম্পিউটার, মিউজিক প্লেয়ার, অ্যাপ-এমন কোনো ক্ষেত্র নেই যেখানে স্টিভ জবসের উদ্ভাবিত অ্যাপল পণ্য নেই। স্টিভ জবস উদ্ভাবিত এমন ৬টি প্রযুক্তি পণ্যের কথাই তুলে ধরা হলো এ প্রতিবেদনে।

স্মার্টফোন শিল্প: আইফোন
স্টিভ জবস ২০০৭ সালের জানুয়ারিতে প্রথম আইফোন প্রবর্তনের মাধ্যমে স্মার্টফোন শিল্পের আমূল পরিবর্তন এনেছিলেন। অ্যাপলের স্মার্টফোনটি ওই বছরই জুনে যুক্তরাষ্ট্রে খুচরা বাজারে সর্বোচ্চ বিক্রির রেকর্ড স্পর্শ করেছিল। টাচ-স্ক্রিনের ওই স্মার্টফোনটি জিপিআরএস এবং ইডিজিই এর পাশাপাশি ডাটা ট্রান্সফারের জন্য জিএসএম সংযোগ সমর্থন করত। মূলত তখন থেকেই আইফোনের স্বর্ণযুগ শুরু হয় যা এখনো চলছে।

ডেস্কটপ শিল্প: ম্যাকিনটোশ ১২৮ কে
অ্যাপলের ‘ম্যাকিনটোশ ১২৮ কে’ ছিল কোম্পানিটির তৈরি প্রথম ডেস্কটপ কম্পিউার। ‘ম্যাকিনটোশ ১২৮ কে’তে ছিল একটি ৯-ইঞ্চি সিআরটি মনিটর, একটি কিবোর্ড এবং মাউস সহ অনেক আনুষাঙ্গিক অ্যাকসেসরিজ। এর শীর্ষে একটি হ্যান্ডেল ছিল যা এটিকে বহন করা সহজ করে দিয়েছিল। মূলত এর পরেই ‘পাওয়ারবুক’ সিরিজের অধীনে অ্যাপল ‘ল্যাপটপ’ আলোর মুখ দেখে।

সংগীত শিল্প: আইপড (এম ৮৫৪১)
আইপড (এম ৮৫৪১) ছিল অ্যাপলের প্রথম পোর্টেবল মিডিয়া প্লেয়ার। ২০০১ সালের অক্টোবরে বাজারে আসা আইপডগুলো ‘আপনার পকেটে ১০০০ গান’ এই ট্যাগ লাইন নিয়ে চালু হয়েছিল। প্রথম আইপডটিতে ৫ জিবি স্টোরেজের সঙ্গে একটি মনিক্রোল এলছিডি ডিসপ্লে ছিল। তবে যে ফিচারটি এটিকে অপ্রতিরোধ্য করে তুলেছিল তা হলো এর কম্প্যাক্ট ফর্ম ফ্যাক্টর যা ১.৮-ইঞ্চি হার্ড ড্রাইভের মাধ্যমে তৈরি করা হয়েছিল। ওই সময় অন্য কোম্পানিগুলো মাত্র ২.৫ ইঞ্চির হার্ড ড্রাইভ ব্যবহার করত।



ল্যাপটপ শিল্প: অরিজিনাল ১৫ ইঞ্চি ম্যাকবুক প্রো
অ্যাপলের ম্যাকবুক প্রো কে আজও সবচেয়ে শক্তিশালী ল্যাপটপ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। ম্যাকবুক প্রো সিরিজের ল্যাপটপের যাত্রা স্টিভ জবসের চাকরির যুগে সূচনা হয়। ২০০৬ সালে, জবস প্রথম ১৫-ইঞ্চি ম্যাকবুক প্রো ল্যাপটপ বাজারে নিয়ে আসে। এটি পূর্ববর্তী পাওয়ারবুক জি ৪ ল্যাপটপেরই পরবর্তী সংস্করণ এবং এতে প্রথমবারের মতো ডুয়াল কোর ইন্টেল প্রসেসর ব্যবহার করা হয়।

অ্যাপ শিল্প: অ্যাপ স্টোর
অ্যাপ ডেভেলপারদের বিশ্বের প্রথম অ্যাপ স্টোর দেওয়ার জন্য স্টিভ জবসকে ধন্যবাদ জানাতে হবে। ২০০৪ সালে স্টিভ জবসের হাত ধরেই মাত্র ৫০০ অ্যাপস নিয়ে প্রথমবারের ‘অ্যাপল অ্যাপ স্টোর’ যাত্রা শুরু করে। আর এখন এই অ্যাপ স্টোর আইওএস ব্যবহারকারীদের ২ মিলিয়নেরও বেশি অ্যাপস সরবরাহ করে। শুধু তাই নয়, অ্যাপল অ্যাপ স্টোর এই বছরের প্রথমার্ধে ২২ বিলিয়ন মার্কিন ডলারেরও বেশি উপার্জন করেছে।

ট্যাবলেট শিল্প: আইপ্যাড
স্টিভ জবস ২০১০ সালের জানুয়ারিতে প্রথম আইপ্যাড চালু করেন। প্রথম প্রজন্মের অ্যাপল আইপ্যাডটি ট্যাবলেট শিল্পকে সঠিকভাবে নাড়া দিতে পেরেছিল। ২০০০ সালেও মাইক্রোসফট ওই একই ধরনের ফ্যাক্ট ফ্যাক্টর ডিভাইস বাজারে এনেছিল, কিন্তু এটি খুব বেশি সাড়া ফেলতে পারেনি। ট্যাবলেট শিল্পে জবসের তৈরি আইপ্যাডটি মূলত ২০১০ সাল পর্যন্ত আধিপত্য ধরে রাখতে পেরেছিল। প্রথম আইপ্যাড ডিভাইসটিতে অ্যাপল এ৪ প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছিল এবং এতে ৯.৭ ইঞ্চি টাচ-স্ক্রিন পর্দা ছিল।

তথ্যসূত্র : গ্যাজেটস নাউ



রাইজিংবিডি/ঢাকা/৮ অক্টোবর ২০১৮/ফিরোজ

Walton Laptop
 
     
Marcel
Walton AC