ঢাকা, মঙ্গলবার, ৫ আষাঢ় ১৪২৬, ১৮ জুন ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

সীমান্তে ‘ক্রাইম ফ্রি জোন’ উদ্বোধন

বিএম ফারুক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৩-০৯ ৫:০০:০৭ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৩-১৮ ৯:১২:৪৩ এএম
Walton AC 10% Discount

নিজস্ব প্রতিবেদক, যশোর : বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তের ৮ দশমিক ৩ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে প্রথমবারের মতো ‘ক্রাইম ফ্রি জোন’ বা অপরাধমুক্ত এলাকা ঘোষণা করা হয়েছে।

যশোরের শার্শা উপজেলার বেনাপোল সীমান্তের বিপরীতে ভারতের উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলার বনগাঁও সীমান্তে ৬৪ বিএসএফ ব্যাটালিয়নের কাল্যানী বিওপির দায়িত্বপূর্ণ সীমান্ত এলাকায় উক্ত ‘ক্রাইম ফ্রি জোন’ উদ্বোধন করা হবে।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে যোগ দিতে শুক্রবার দুপুরে বাংলাদেশের পক্ষে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আবুল হোসেন (বিএসপি, বিজিবিএম, এনডিসি, পিএসসি, পি. ইঞ্জি), যশোর-১ আসনের সংসদ সদস্য শেখ আফিল উদ্দিন, যশোর জেলা প্রশাসক আশরাফ উদ্দিন, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল, বাংলাদেশ প্রতিদিন সম্পাদক নঈম নিজাম, শার্শা উপজেলা চেয়ারম্যান সিরাজুল হক মঞ্জু, বেনাপোল পৌর মেয়র আশরাফুল আলম লিটনসহ বিজিবির অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বেনাপোল ইমিগ্রেশন হয়ে ভারতে গমন করেন। প্রতিনিধি দলটি বেনাপোল চেকপোস্টে পৌঁছালে বিএসএফ তাদের ফুলেল শুভেচ্ছা জানান।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের অক্টোবর মাসে ভারতের নয়াদিল্লিতে অনুষ্ঠিত বিজিবি-বিএসএফ মহাপরিচালক পর্যায়ের বৈঠকে বিজিবি মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আবুল হোসেন সীমান্ত অপরাধ প্রতিরোধের কৌশল হিসেবে সীমান্তের অপরাধপ্রবণ এলাকা ‘ক্রাইম ফ্রি জোন’ ঘোষণার প্রস্তাব উত্থাপন করেন।

বিএসএফ মহাপরিচালক শ্রী কে কে শর্মা উক্ত প্রস্তাবের প্রশংসা করেন এবং ‘ক্রাইম ফ্রি জোন’ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বৈঠকে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এরই ধারাবাহিকতায় উভয় দেশের সম্মতিতে বাংলাদেশের যশোর সীমান্তের পুটখালী ও দৌলতপুর বিওপির দায়িত্বপূর্ণ সীমান্ত এবং বিপরীত দিকে ভারতের কাল্যানী ও গুনারমঠ বিওপির দায়িত্বপূর্ণ সীমান্ত এলাকার (বর্ডার পিলার নম্বর ১৭/১৪৩-আর থেকে ১৭/১৮১-আর পর্যন্ত) মোট ৮ দশমিক ৩ কিলোমিটার সীমান্ত পরীক্ষামূলকভাবে ‘ক্রাইম ফ্রি জোন’ ঘোষণার প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়।



রাইজিংবিডি/যশোর/৯ মার্চ ২০১৮/বিএম ফারুক/মুশফিক

Walton AC
     
Walton AC
Marcel Fridge