ঢাকা, বুধবার, ৮ ফাল্গুন ১৪২৫, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

কে এই আলিস?

আবু হোসেন পরাগ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৯-০১-১১ ৮:৪৮:২২ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০১-১১ ৮:৫৯:৪৮ পিএম

ক্রীড়া প্রতিবেদক : বিপিএলে শুক্রবার ঢাকা ডায়নামাইটসের হয়ে রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করে আলোচনায় এসেছেন আলিস আল ইসলাম। এই ম্যাচের আগে তার নামও অনেকে জানতেন না। কে এই আলিস?

২২ বছর বয়সি অফ স্পিনার আলিসের বাড়ি ঢাকার সাভারের বলিয়ারপুরে। ক্রিকেট খেলা শুরু করেন ২০১৪ সালে কাঠালবাগান গ্রিন ক্রিসেন্ট ক্লাবের হয়ে। এরপর কয়েক বছর খেলেছেন দ্বিতীয় বিভাগে। তারপর প্রথম বিভাগে। তারপর এই বিপিএল।

প্রথমে ঢাকা ডায়নামাইটসের নেট বোলার ছিলেন আলিস। সেখানেই ঢাকার কোচ খালেদ মাহমুদ সুজনের নজর কাড়েন তিনি। এরপরই সুযোগ পান দলে। বিপিএল অভিষেক তো বটেই, প্রথম কোনো স্বীকৃত ম্যাচ খেলতে নেমেই হ্যাটট্রিকসহ নিলেন ৪ উইকেট।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে আলিস খোলাসা করলেন তার দলে সুযোগ পাওয়ার ব্যাপারটা, ‘আমি ঢাকা ডায়নামাইটসের নেট বোলার ছিলাম। আগে আমি ঢাকা ফাস্ট ডিভিশনে খেলেছি। নেট বোলিং করার সময় সুজন স্যার আমাকে দেখেন। দেখে ওনার বিশ্বাস হয় যে আমি ভালো করতে পারব, তারপর আমাকে দলে নেয়। তারপর টিম ম্যানেজমেন্ট, খেলোয়াড়রা আমাকে সাপোর্ট করে। তারপর আমি সেরা একাদশে।’

আলিস জানালেন, এর আগে মিরপুরে কোনো ম্যাচই খেলেননি তিনি। সেকারণে নার্ভাস ছিলেন। সহজ দুটি ক্যাচ ফেলেন স্নায়ুচাপে ভোগার কারণেই, ‘আসলে এটা আমার বিপিএলে প্রথম ম্যাচ। খোলাসা করে বলতে গেলে স্টেডিয়ামেই এটা আমার প্রথম ম্যাচ। আমি আসলে অনেক নার্ভাস ছিলাম। তবে ক্যাচ দুটি ফেলার পর সতীর্থরা অনেক সাপোর্ট করেছে আমাকে, কোচ সাপোর্ট করেছেন। সবাই আসলে অনেক সাহস দিয়েছেন। তাতে আমার মনে হয়েছে যে, যদি ভালো জায়গায় বলটা করতে পারি, তাহলে ভালো কিছু হতে পারে। আমি শুধু ভালো জায়াগায় বল করতে চেয়েছি।
 


হ্যাটট্রিকের ওভারে অধিনায়ক সাকিব আল হাসান তাকে কী বলেছিলেন? আলিস বললেন, ‘সাকিব ভাই শুধু বলছিলেন যে, ভালো হচ্ছে, তুই তোর ভালো জায়গায় বল করতে থাক।’

শেষ ওভারে রংপুরের দরকার ছিল ১৪ রান। আলিসের প্রথম দুই বলে চার হাঁকান শফিউল ইসলাম। তবে আলিসের বিশ্বাস ছিল, তিনি দলকে জেতাতে পারবেন, ‘আসলে প্রথম দুটি বল স্টাম্পের বাইরে করেছি। যেটা শফিউল ভাই ভালো পেয়েছে। তারপর ভাবলাম স্টাম্পের মধ্যে করি। তবে আমি আত্মবিশ্বাসী ছিলাম, মনে হচ্ছিল পারব।’

একাদশে থাকার ব্যাপারটি আগের রাতেই জেনেছিলেন আলিস, ‘গতকাল সন্ধ্যায় জানতে পারি খেলব। স্যার (কোচ) আমাকে ডেকে বলেন শারীরীক ও মানসিকভাবে প্রস্তুত থাকতে। আমি প্রস্তুতই ছিলাম। এত বড় স্টেডিয়ামে, এত বড় টুর্নামেন্টে প্রথম খেলা নার্ভাসেরই বিষয়। আমি প্রথমে নার্ভাসই ছিলাম, তবে তারপরও ভালো হয়েছে।’

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/১১ জানুয়ারি ২০১৯/পরাগ

Walton Laptop
 
     
Marcel
Walton AC