ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ বৈশাখ ১৪২৫, ২৬ এপ্রিল ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:
ওয়ালটন ডিজিটাল ক্যাম্পেইন

১৮৫০০ টাকায় ঘর ভর্তি পণ্য 

আকরাম হোসেন পলাশ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-১০-০৪ ৮:১০:৪১ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৩-০৫ ৪:৫৯:৪৪ পিএম

আকরাম হোসেন পলাশ : নাটোরের সঞ্জয় ঘোষ। পেশায় একজন মিষ্টি ব্যবসায়ী। নাটোর সদর উপজেলার মির্জাপুরে রয়েছে তার ছোট্ট একটি মিষ্টির দোকান। তিনি গত সোমবার নাটোরের তাহেরপুরে শিমুল এন্টারপ্রাইজ থেকে ১৮ হাজার ৫০০ টাকায় ওয়ালটন ব্র্যান্ডের ২৮ ইঞ্চি একটি এলইডি টিভি কেনেন। কিন্তু ওয়ালটন টিভি কিনে তিনি বাসায় নিয়ে গেলেন ফ্রিজ, স্মার্টফোন, ইলেকট্রিক ওভেন, সিলিং ফ্যান, ফ্রাইপ্যান, রাইস কুকার, গ্যাসস্টোভ, ওয়াটার ডিসপেন্সার, স্যালাড মেকার, ভোল্টেজ স্ট্যাবিলাইজারসহ ঘরভর্তি পণ্য।

বিষয়টি ব্যাখ্যা করে ওয়ালটন পণ্যের পরিবেশক শিমুল এন্টারপ্রাইজের সত্ত্বাধিকারী ইকবাল হোসেন জানান, সঞ্জয় ঘোষ টিভি কেনার পর তা রেজিস্ট্রেশন করান। রেজিস্ট্রেশনের কিছুক্ষণ পরেই সঞ্জয় ঘোষের মোবাইলে একটি মেসেজ আসে। যেখানে জানানো হয়, ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশনের আওতায় তিনি এক লাখ টাকার একটি ক্যাশ ভাউচার পেয়েছেন। প্রাপ্ত ক্যাশ ভাউচারের অর্থ দিয়েই পরে তিনি ওয়ালটন ব্র্যান্ডের ফ্রিজ, স্মার্টফোনসহ বেশ কিছু অ্যাপ্লায়েন্সেস নিয়েছেন। 

এ প্রসঙ্গে সঞ্জয় ঘোষ বলেন, ‘১৮ হাজার ৫০০ টাকা দিয়ে টিভি কিনে ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন করার পর যখন এক লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচারের মেসেজ পেয়েছি, তখন বিশ্বাসই করতে পারছিলাম না। আমি বিক্রেতাকে মেসেজটা দেখিয়ে বললাম, দেখুনতো এটা ভূয়া কিনা। কিন্তু আমি সত্যি সত্যি এক লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার পেয়েছি বলে বিক্রেতা আমাকে জানালেন। তখন আমি খুশিতে আত্মহারা হয়ে পড়ি। জীবনে এই প্রথম এত বড় পুরস্কার পেয়েছি। এজন্য ওয়ালটনের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ।’

তিনি জানান, প্রাপ্ত ক্যাশ ভাউচারের অর্থ দিয়ে একই শোরুম থেকে ওয়ালটন ব্র্যান্ডের ১৯ সিএফটি ফ্রিজ, স্মার্ট ফোন, রাইস কুকার, সিলিং ফ্যান, ওভেন ও অন্যান্য পণ্য নিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘প্রতিবেশীর বাসায় ওয়ালটন টিভি রয়েছে। তাদের বাসায় প্রায়ই ক্রিকেট খেলা দেখতে যেতাম। তখন দেখেছি ওয়ালটন টিভির পিকচার কোয়ালিটি খুবই ভালো। তাদের মুখে শুনেছি, দামও অনেক কম, আবার টেকেও অনেকদিন। তাই কষ্ট করে জমানো টাকায় ওয়ালটনের ২৮ ইঞ্চি এলইডি টিভি কিনলাম। কিন্তু টিভি কিনে যে এক লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার পাবো তা স্বপ্নেও ভাবিনি। এই মুহূর্তে যে কত খুশি হয়েছি আমি তা বলে বোঝাতে পারবো না।’

উল্লেখ্য, চলতি মাসের ২ তারিখ থেকে পণ্য ক্রয়ে ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন ক্যাম্পেইন শুরু করেছে ওয়ালটন। এই উদ্যোগ পণ্যের গবেষণা ও মানোন্নয়ন এবং ডিজিটাল পদ্ধতিতে রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে সর্বোচ্চ গ্রাহকসেবা নিশ্চিতকরণের প্রত্যয়ে নিশ্চিত ক্যাশ ভাউচারের ঘোষণা দিয়েছে ওয়ালটন। ওয়ালটন প্লাজা এবং পরিবেশক শোরুম থেকে দশ হাজার টাকা বা তার চেয়ে বেশি মূল্যের পণ্য কিনে ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন করার পর প্রতিবার সর্বনিম্ন ২০০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ১ লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার পাচ্ছেন ক্রেতারা। এর আওতায় প্রতিদিন ২০ লাখ টাকা পর্যন্ত বা এর কমবেশি নিশ্চিত ক্যাশ ভাউচার দেয়া হচ্ছে। এই অফারটি চলবে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত। তিন মাসে ক্রেতারা পাবেন ১৫ থেকে ২০ কোটি টাকা মূল্যের ক্যাশ ভাউচার।

ওয়ালটনের ডেপুটি ডিরেক্টর রাকিবুল হোসেন আহমেদ জানান, ক্যাম্পেইনের প্রথম দিন থেকেই দেশব্যাপী ক্রেতাদের কাছ থেকে ভালো সাড়া পাওয়া যাচ্ছে। রেজিস্ট্রেশন নিয়ে ওয়ালটন প্লাজা এবং পরিবেশক শোরুমগুলোয় বিরাজ করছে উৎসবমুখর পরিবেশ। প্রথম দিনেই সঞ্জয় ঘোষের মতো সারা দেশে হাজার হাজার ক্রেতা বিভিন্ন অংকের ক্যাশ ভাউচার পেয়েছেন। সঞ্জয় ঘোষের পাশাপাশি দ্বিতীয় দিনে রাজধানীর নদ্দা এলাকার বাসিন্দা সমীর মন্ডল এবং তৃতীয় দিনে ভোলা চর ফ্যাশনের বাসিন্দা মোহাম্মদ আলাউদ্দিন ওয়ালটন পণ্য কিনে পেয়েছেন এক লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার



রাইজিংবিডি/ঢাকা/৪ অক্টোবর ২০১৭/পলাশ/শাহনেওয়াজ

Walton Laptop
 
   
Walton AC