ঢাকা, রবিবার, ২ পৌষ ১৪২৫, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

‘ফ্রিজ কিনে লাখ টাকা পেয়েছি ভাবতেও অবাক লাগছে’

জাকির হুসাইন : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০১-০৯ ১২:৩২:৩৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০১-০৯ ৪:৩০:০২ পিএম
লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচারে কেনা ওয়ালটন মোটরসাইকেলসহ মো. মামুন

জাকির হুসাইন : বাড়িতে একটি ফ্রিজের খুব প্রয়োজন ছিল। টানাটানির সংসার। ফ্রিজ কেনার টাকা নেই। মো. মামুন তাই নোয়াখালী থেকে ঢাকায় এলেন। কাজ নিলেন একটি ব্যাগের দোকানে। কষ্ট করে বাড়িতে ফ্রিজ কেনার জন্য টাকা পাঠালেন। বলে দিলেন ওয়ালটনের ফ্রিজ কিনতে। সেই ফ্রিজ কিনেই লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার পেয়েছেন মামুন। যা দিয়ে পূরণ হয়েছে তার মোটরসাইকেলের স্বপ্নও।

ফ্রিজ কিনে লাখ টাকা পাওয়ার ঘটনায় মামুন অবাক। এটা স্বপ্ন না সত্যি এই ঘোর কাটছে না তার। রাইজিংবিডির সঙ্গে আলাপকালে জানালেন এটা তার জীবনের সবচেয়ে বড় পুরস্কার।

মো. মামুন সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, তার বাড়ি নোয়াখালীর সোনাইমুড়ি উপজেলার নাটেশ্বর গ্রামে। চার ভাই ও এক বোনের মধ্যে তিনি মেঝো। দুই বছর আগে বিয়ে করেছেন। একটি ছেলেও আছে তাদের। বাবা-মা, স্ত্রী-সন্তান এবং ভাইবোন নিয়ে যৌথ পরিবার তার।

মামুন বলেন, ‘যৌথ পরিবারের ভার আমার বাবার পক্ষে বহন করা সম্ভব হচ্ছিল না। মোটামুটি টানাটানির মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে আমাদের সংসার। এর মধ্যে একটি ফ্রিজের খুব দরকার হচ্ছিল। কিন্তু ফ্রিজ কিনতে যে টাকা লাগবে, তার যোগাড় হচ্ছিল না। টাকা যোগাড় করতে আমি ঢাকা যাই। চক বাজারের একটি ব্যাগের দোকানে কাজ শুরু করি।’

মামুন জানান, কিছু টাকা জমলে ফ্রিজ কেনার জন্য বাড়িতে পাঠান তিনি। টাকা পাঠানোর সময় ওয়ালটন ফ্রিজ কিনতে বলে দেন।

তিনি বলেন, ‘আমাদের ঘরে আগে থেকেই ওয়ালটনের টিভিসহ আরো কিছু জিনিস আছে। সার্ভিস খুবই ভালো পাচ্ছি। তাই ফ্রিজ কেনার ব্যাপারে কোন কোম্পানির ফ্রিজ কিনবো তা নিয়ে দ্বিতীয়বার ভাবতে হয়নি। তাছাড়া, ঢাকায় থাকার সুবাদে ওয়ালটন কোম্পানির বিষয়ে জানতে পারি। পত্রিকা ও টিভিতে তাদের কোটি কোটি টাকা অফারের বিজ্ঞাপন দেখেছি। ওয়ালটন পণ্য কিনলে লাখ টাকা পর্যন্ত পুরস্কার পাওয়া যাবে এমন কথাও অনেকের কাছে শুনেছি। তবে ভাগ্য থাকতে হবে। তাই নিজের ভাগ্যটাকে যাচাই করার জন্যও আগ্রহ আরো বাড়ে।’

মামুন জানান, তার বাবা-মা এবং ছোট বোন গত ৩১ ডিসেম্বর তাদের এলাকায় ওয়ালটনের এক্সক্লুসিভ শোরুম ফেমাস ইলেকট্রনিক্সে যান। অনেক যাচাই-বাছাই করে ২৩ হাজার ২০০ টাকা দিয়ে ১১ সিএফটি সাইজের একটি ফ্রিজ কেনেন। এরপর তার মোবাইল নাম্বার দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করে ফ্রিজ নিয়ে বাড়ি চলে যান। রেজিস্ট্রেশনের কিছুক্ষণের মধ্যেই লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচারের মেসেজ যায় তার মোবাইলে। কিন্ত মেসেজটি তার চোখ এড়িয়ে যায়।

মো. মামুনের হাতে ওয়ালটনের লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার তুলে দেওয়া হচ্ছে

তিনি বলেন, ‘ওইদিন ঢাকাতে আমি আমার কর্মস্থলে কাজ নিয়ে ব্যস্ত ছিলাম। মেসেজ দেখার সময় ছিল না। তাছাড়া মোবাইল কোম্পানি থেকে সারা দিন অনেক মেসেজ আসে। যা খেয়ালই করি না। তবে সেদিন শোরুম থেকে একটি ফোন আসে। তারা আমাকে বলেন, মোবাইলে কোনো এসএমএস এসেছে কিনা। আমি তেমন ইংরেজি জানি না। তাই পাশের একজনকে মেসেজটি দেখতে বলি। তিনি আমাকে জানান, এসএমএসে এক লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার লেখা। সঙ্গে সঙ্গে এ কথা শোরুমে জানাই। তখন শোরুমের ম্যানেজার মো. শিপন বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, ফ্রিজ কিনে এক লাখ টাকার পুরস্কার পেয়েছি। এই সংবাদ শুনেই অফিস থেকে ছুটি নিয়ে সোজা বাড়ি চলে যাই।

ক্যাশ ভাউচারের টাকা দিয়ে কী কিনেছেন তা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমার অনেক দিনের স্বপ্ন ছিল একটি মোটরসাইকেলের। লাখ টাকার এ পুরস্কার দিয়ে তাই ওয়ালটনের একটি মোটরসাইকেল কিনেছি। ওয়ালটনের এই পুরস্কার আমার জীবনের সব চেয়ে বড় উপহার। আমার বাবা-মা এবং আত্মীয়-স্বজন খুব খুশি।’

এদিকে শোরুমের ম্যানেজার মো. শিপন বলেন, ‘লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার পাওয়ার পর ভাগ্যবান ক্রেতা মামুন আমাদের শোরুম এবং এর আশপাশের সব দোকানে মিষ্টি কিনে বিতরণ করেছেন। তার ক্যাশ ভাউচার পাওয়ার পর থেকে আমাদের শোরুমে বিক্রিও আগের থেকে অনেক বেড়েছে।’

উল্লেখ্য, ক্রেতাদের দোরগোড়ায় অনলাইনে দ্রুত ও সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবা দিতে ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন কার্যক্রম চালু করেছে ওয়ালটন। এই কার্যক্রমে ক্রেতাদের অংশগ্রহণকে উদ্বুদ্ধ করতে প্রতিদিন দেওয়া হচ্ছে নিশ্চিত ক্যাশ ভাউচার। ওয়ালটন প্লাজা এবং পরিবেশক শোরুম থেকে ১০ হাজার টাকা বা তার বেশি মূল্যের পণ্য কিনে ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন করে সর্বনিম্ন ২০০ থেকে সর্বোচ্চ ১ লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার পাচ্ছেন ক্রেতারা। ক্যাশ ভাউচার পাওয়ার এই সুযোগ থাকবে আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/ জানুয়ারি ২০১৮/অগাস্টিন সুজন/ইভা

Walton Laptop
 
     
Marcel
Walton AC