ঢাকা, বুধবার, ২ কার্তিক ১৪২৫, ১৭ অক্টোবর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

‘প্রথম বাণিজ্য মেলায় এসেই লাখ টাকার পুরস্কার পেলাম’

হাসিবুল ইসলাম : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০১-২৩ ৯:৫৬:২৮ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০১-২৪ ১০:৪৬:০৮ এএম

হাসিবুল ইসলাম মিথুন : ‘বাসার জন্য একটি টিভি কেনা খুব প্রয়োজন ছিল। মা কিছু দিন আগে বলেছিল, ওয়ালটন টিভি খুব ভালো। তাই আজ মেলায় এসেছিলাম মায়ের জন্য একটি টিভি কিনতে। জীবনে প্রথম বাণিজ্য মেলায় এসেই ওয়ালটন টিভি কিনে লাখ টাকার পুরস্কার পেলাম।’

মঙ্গলবার বাণিজ্য মেলায় ওয়ালটনের পণ্য কিনে লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার পেয়ে এসব কথা বলেন আশরাফুল আলম তনয়।

এখনো পড়াশোনা করা আশরাফুল আলম তনয়ের বাড়ি ঠাকুরগাঁও সদরে। পরিবারের সবাইকে নিয়ে থাকেন রাজধানীর মোহাম্মদপুরে।

পুরস্কার জেতার পর তার আনন্দময় অনুভূতি প্রকাশ করে আশরাফুল আলম তনয় বলেন, এটা আমার কাছে কেমন যেন স্বপ্নের মতো মনে হচ্ছে। এত বড় হলাম কখনো পুরস্কার জিতিনি। আজ ওয়ালটনের টিভি কিনেই পেয়ে গেলাম জীবনের সবথেকে বড় পুরস্কার।

তনয় বলেন, দুপুরের পরে মেলায় এসেছি। অনেকগুলো শোরুম ঘুরে দেখেছি। যখন ওয়ালটন শোরুমে ঢুকলাম তখনো বুঝতে পারিনি আমার ভাগ্যে আজ এত বড় কিছু আছে। অনেকক্ষণ ঘুরে দেখার পরে ওয়ালটনের ২৪ ইঞ্চি এলইডি টিভি কিনলাম। দাম রাখল ১৪ হাজার ৫০০ টাকা। কেনার পরে ওয়ালটন প্যাভিলিয়নের কাউন্টার থেকে জানানো হলো, আমার জন্য আরো কিছু অপেক্ষা করছে। লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার পেয়েছি আমি। এই টাকায় নিতে পারব ওয়ালটনের যেকোনো পণ্য।

তিনি আরো বলেন, ১ লাখ টাকা পেয়েছি শুনে কিছুক্ষণের জন্য আমার মনে হয়েছিল, আমি বাকরুদ্ধ হয়ে গেছি। পরে আমার সঙ্গে থাকা আমার এক বন্ধু এই খুশিতে আমাকে জড়িয়ে ধরে। পরে বাসায় ফোন করে মাকে জানালাম এই খুশির সংবাদ।

লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার পেয়ে কী কী কিনেছেন? এ প্রশ্নের জবাবে তনয় বলেন, মাকে জিজ্ঞাসা করেছি কী কী কিনব এই ১ লাখ টাকায়। মা বলেছে, আরো কিছু টিভি কিনতে আত্মীয়-স্বজনদের দেওয়ার জন্য। তাই ওয়ালটনের WD1-DT24-RL100 মডেলের দুটি ২৪ ইঞ্চি এলইডি টিভি এবং WE4-DH32-BY200 মডেলের দুটি ৩২ ইঞ্চি স্মার্ট টিভি কিনলাম। এর একটি দেবো আমার ছোট কাকাকে, একটি দেবো মামাকে। একটি আমার রুমের জন্য রাখব। বাকিগুলো মা যাকে ইচ্ছে দিয়ে দেবে। এছাড়া ওয়ালটনের চারটি মোবাইলও নিয়েছি। আমার খুব কাছের বন্ধুকে একটা মোবাইল গিফট করব। বাকিগুলো কী করব, এখনো ঠিক হয়নি।



তিনি আরো বলেন, আমার মায়ের ওয়ালটনের পণ্য খুব পছন্দ। তাই আমার বাসায় আগে থেকেই ওয়ালটনের অনেক পণ্য রয়েছে। গত কোরবানির ঈদে ওয়ালটনের ফ্রিজ কিনেছিলাম। ওয়ালটন পণ্যের মান ও সেবা খুব ভালো। পণ্যের মান ভালো হওয়ায় আমার বাসার সবাই যেমন ওয়ালটন ব্যবহার করি, তেমনই আত্মীয়-স্বজনকেও বিভিন্ন ওয়ালটন পণ্য ব্যবহার করার উপদেশ দিয়ে থাকি।

ওয়ালটন পণ্য কিনে যে ক্যাশ ভাউচার পাওয়ার সুযোগ আছে, তা জানতেন কি না? জবাবে তনয় বলেন, হ্যাঁ জানতাম। তবে কীভাবে রেজিস্ট্রেশন করতে হয়, জানতাম না। এখানকার বিক্রয়কর্মীরাই রেজিস্ট্রেশন করে দেন। তবে এত কিছুর আশা করিনি। কিন্তু আল্লাহর রহমতে পেয়ে গেলাম।

ওয়ালটনের প্রশংসা করে তিনি বলেন, আমাদের দেশে অনেক কোম্পানি আছে যারা বিভিন্ন অফারের কথা বলে, কিন্তু তা কার্যকর করে না। সেক্ষেত্রে ওয়ালটন অনেক ব্যতিক্রমী। তারা কথার সঙ্গে কাজের মিল রেখেছে।

ওয়ালটন ব্র্যান্ড ও পণ্য সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘ওয়ালটন দেশি পণ্য। মানের দিক থেকে অনেক ভালো। আমি সবসময় দেশি জিনিস ব্যবহার করতে চাই। আমার আত্মীয়-স্বজন যারা ওয়ালটন পণ্য ব্যবহার করে, তারা ভালো বলে। দেশের এই কোম্পানি আরো এগিয়ে যাক, এই দোয়া করি।’

আশরাফুল আলম তনয়ের হাতে লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার ও অন্যান্য পণ্য তুলে দেন বাণিজ্য মেলায় ওয়ালটন প্যাভিলিয়নের (নম্বর-২৩) সমন্বয়ক শাহ শহীদ চৌধুরী এবং ইনচার্জ শফিকুল আলম।

উল্লেখ্য, ক্রেতাদের দোরগোড়ায় অনলাইনে দ্রুত ও সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবা দিতে ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন কার্যক্রম চালু করেছে ওয়ালটন। এই কার্যক্রমে ক্রেতাদের অংশগ্রহণকে উদ্বুদ্ধ করতে প্রতিদিন দেওয়া হচ্ছে নিশ্চিত ক্যাশ ভাউচার। ওয়ালটন প্লাজা এবং পরিবেশক শোরুম থেকে ১০ হাজার টাকা বা তার বেশি মূল্যের পণ্য কিনে ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন করে ২০০ থেকে সর্বোচ্চ ১ লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার পাচ্ছেন ক্রেতারা। ক্যাশ ভাউচার পাওয়ার এই সুযোগ থাকবে আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/২৩ জানুয়ারি ২০১৮/হাসিবুল/রফিক

Walton Laptop
 
     
Walton