ঢাকা, রবিবার, ৬ ফাল্গুন ১৪২৪, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮
Risingbd
অমর একুশে
সর্বশেষ:

ওয়ালটনের লাখ টাকায় রিতার বড় টিভির স্বপ্ন পূরণ

জাকির হুসাইন : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৮-০২-০৬ ৭:২১:২৯ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০২-০৬ ৭:২১:২৯ পিএম
বড় পর্দার টিভি পেয়ে দারুণ খুশি রিতা এবং তার স্বামী

নিজস্ব প্রতিবেদক : ‘বড় পর্দার টিভি দেখতে পছন্দ করি। অন্যদের বাসায় বড় টিভি দেখে ভাবতাম, আমার বাসাতেও যদি থাকত। কিন্তু আমার সে স্বপ্ন অধরাই থাকছিল। শেষমেষ একটি ৩২ ইঞ্চির এলইডি টিভি কেনার সিদ্ধান্ত নিই। কী আশ্চর্য! সেই টিভি কিনেই পেয়েছি ১ লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার। আর তাতে আমার দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। ওই টাকায় ওয়ালটন থেকে নিয়েছি বড় সাইজের (৫৫ ইঞ্চি) টিভি।’

কথাগুলো ওয়ালটনের ভাগ্যবান ক্রেতা রিতার। গত ৩১ জানুয়ারি টাঙ্গাইলের সখীপুর প্লাজা থেকে টেলিভিশন কিনে লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার পান তিনি।

রিতার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, টাঙ্গাইল জেলার সখীপুরের বাসিন্দা তিনি। কলেজে পড়ছেন। কিছু দিন আগে বিয়ে হয়েছে তার। স্বামীর গ্রামের বাড়ি বগুড়ায় হলেও ব্যবসার কারণে স্থায়ীভাবে বাস করছেন টাঙ্গাইলেই। সখীপুর বাজারে তার হারবাল পণ্যের দোকান আছে। স্বামী-স্ত্রী মিলে দুই সদস্যের ছোট ও সুখী পরিবার তাদের।

রিতা বলেন, ‘বাবার বাসায় টিভি ছিল। তবে তা ছিল বক্স (সিআরটি) টেলিভিশন। আধুনিক ও স্মার্ট এলইডির যুগে বক্স টিভি আর চলে না। বর্তমানে বড় বড় টিভি এসেছে। সিনেমা হলে না গিয়েও বাসায় বসে বড় পর্দায় ছবি দেখার স্বাদ পাওয়া যায়। তাই আমার মনে ইচ্ছা ছিল বড় সাইজের টিভি দেখব। কিন্তু বাবার বাড়িতে সে স্বপ্ন পূরণ হয়নি।’

রিতা বলেন, ‘স্বামীর সংসারে বড় টিভির শখ পূরণ করতে চাই। কিন্তু বড় টিভি কিনতে একসাথে অনেক টাকার দরকার। ভাবলাম, অনেক বড় না হোক মাঝারি সাইজের একটি টিভি কিনি। টিভি কেনার ক্ষেত্রে ওয়ালটন ব্র্যান্ডেরই কেনা হবে, এটা আগে থেকেই ঠিক ছিল। কারণ, এই কোম্পানির পণ্য মানে ও দামে একেবারে পারফেক্ট। সার্ভিস ভালো। এলাকার প্রায় সবাই ব্যবহার করছে।’

রিতা জানান, গত ৩১ জানুয়ারি স্বামীকে সাথে নিয়ে ওয়ালটনের সখীপুর প্লাজাতে যান তিনি। এর আগে এখান থেকেই দোকানের জন্য তার স্বামী একটি ২৮ ইঞ্চি টেলিভিশন কিনেছিলেন। প্লাজার টিভি গ্যালারিতে গিয়ে রিতা ৩২ ইঞ্চি এলইডি টিভিটি পছন্দ করেন। যার দাম ২০ হাজার ১০০ টাকা। পরে তার নাম ও মোবাইল নাম্বার দিয়ে ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন করেন। কারণ, এর আগে তার স্বামীর নাম্বার দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করে তিনি মাত্র ২০০ টাকা পেয়েছিলেন। এবার রিতার ভাগ্য যাচাই করতে চান তারা।

রিতা এবং তার স্বামীর হাতে ওয়ালটনের লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার ও অন্যান্য পণ্য তুলে দেওয়া হচ্ছে


রিতা বলেন, ‘অফারের বিষয়ে বিস্তারিত জানার পর আমি ভাবলাম, আমার ক্ষেত্রেও একই ঘটনা ঘটবে। ২০০ টাকার বেশি পাব না। কারণ, সব কোম্পানি এমন ঘোষণা দেয়। কিন্তু সবাই সর্বনিম্নটা পায়। সবচেয়ে বড়টা কাউকে পেতে শুনিনি। তখন ওয়ালটন প্লাজা ম্যানেজার শাহ আলম মিয়া আমাকে বলেন, আপা উপহাস করবেন না। অন্যান্য কোম্পানির মতো ওয়ালটন কোম্পানিকে মিলিয়ে ফেলবেন না। কারণ, আমাদের ঘোষণাতে এখন পর্যন্ত কয়েক শত লোক সর্বোচ্চ উপহারটি পেয়েছেন। আপনার ভাগ্য ভালো হলে আপনিও পেতে পারেন।’

তিনি বলেন, ‘ম্যানেজার এ কথা বলতে বলতেই আমার মোবাইলে একটা এসএমএস আসে। তাতে আমাদের অভিনন্দন জানিয়ে লেখা যে, আমরা ১ লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার পেয়েছি। ঘটনার আকস্মিকতায় এটা সত্য না মিথ্যা বুঝে উঠতে পারছিলাম না। আমার স্বামীরও এটা বিশ্বাস হচ্ছিল না। আমরা যেন গোলকধাঁধায় পড়ে যাই। তখন প্লাজা ম্যানেজার বলেন, আপনারা সত্যিই ১ লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার পেয়েছেন। সত্যিই আপনি ভাগ্যবান। শুধু শুধু এ ব্যাপারটা নিয়ে উপহাস করছিলেন। ম্যানেজারের এ কথা শুনে লজ্জায় আমার মাথা নিচু হয়ে যায়।’

রিতা বলেন, ‘এর আগে কোনোদিন লটারি বা এ জাতীয় কোনো কিছুই পাইনি। আজ পেলাম। সত্যিই কী ভাগ্য আমাদের! চেয়েছিলাম একটি বড় টিভি। কিন্তু নগদ টাকা না থাকায় ৩২ ইঞ্চি টিভি কিনলাম। আর সেটা কিনেই পেলাম ১ লাখ টাকা। যা আমরা কখনো আশা করিনি। কল্পনাও করিনি। আমি তো মহাখুশি। আমার আত্মীয়-স্বজনরাও খুশি। আমার বাবার বাড়ি এবং শ্বশুরবাড়ি সব খানেই এ সংবাদ শুনে আনন্দ উৎসব হয়েছে।’

লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার দিয়ে কী কিনেছেন, জানতে চাইলে রিতা বলেন, ‘যেহেতু আমার স্বপ্ন ছিল বড় পর্দার টিভি। তাই যখন লাখ টাকা পেয়েছি, সবার আগে ৭৯ হাজার ৯০০ টাকা দিয়ে সবচেয়ে বড় ৫৫ ইঞ্চির স্মার্ট এলইডি টিভিটি কিনেছি। বাকি টাকা দিয়ে মোবাইল, রাইস কুকার, হেয়ার ড্রায়ার, ইলেকট্রিক কেটলি, গ্যাস স্টোভ নিয়েছি।’       

উল্লেখ্য, ক্রেতাদের দোরগোড়ায় অনলাইনে দ্রুত ও সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবা দিতে ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন কার্যক্রম চালু করেছে ওয়ালটন। এই কার্যক্রমে ক্রেতাদের অংশগ্রহণকে উদ্বুদ্ধ করতে প্রতিদিন দেওয়া হচ্ছে নিশ্চিত ক্যাশ ভাউচার। ওয়ালটন প্লাজা এবং পরিবেশক শোরুম থেকে ১০ হাজার টাকা বা তার বেশি মূল্যের পণ্য কিনে ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন করে সর্বনিম্ন ২০০ থেকে সর্বোচ্চ ১ লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার পাচ্ছেন ক্রেতারা। ক্যাশ ভাউচার পাওয়ার এই সুযোগ থাকবে আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮/অগাস্টিন সুজন/রফিক

Walton
 
   
Marcel