ঢাকা, রবিবার, ৭ শ্রাবণ ১৪২৫, ২২ জুলাই ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে গাড়ি পেলেন পুলিশ কনস্টেবল

অগাস্টিন সুজন : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৭-০৫ ৬:৪৩:১৯ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৭-০৬ ১০:২৮:৪৭ এএম
আরাধন চন্দ্র সাহার হাতে ওয়ালটন ঈদ মেগা ডিজিটাল ক্যাম্পেইনে ফ্রিজ কিনে পাওয়া নতুন গাড়ির চাবি তুলে দেওয়া হচ্ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক : চলছে ‘ওয়ালটন ঈদ মেগা ডিজিটাল ক্যাম্পেইন’। শুরুতেই বাজিমাত। ক্যাম্পেইন শুরুর চতুর্থ দিনেই ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে নতুন গাড়ি পেয়েছেন আরাধন চন্দ্র সাহা। বাংলাদেশ পুলিশের কনস্টেবল আরাধন দায়িত্ব পালন করছেন জাতীয় সংসদ ভবন নিরাপত্তা ইউনিটে।

তিনি গত বুধবার মিরপুর ন্যাশনাল বাংলা হাইস্কুল  মার্কেটের মেসার্স ইন্টারএকটিভ ইলেকট্রনিক্স থেকে মাত্র ১৮ হাজার ২০০ টাকা দিয়ে ৮ সিএফটি আয়তনের একটি ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে নতুন গাড়ি পান। অপ্রত্যাশিত এই প্রাপ্তিতে আনন্দের বন্যা বইছে আরাধনের পরিবারে।

ফ্রিজ কেনার পরদিন বৃহস্পতিবার আরাধন চন্দ্র সাহার কাছে নতুন গাড়ি হস্তান্তর করা হয়। তার হাতে গাড়ির চাবি তুলে দেন ওয়ালটন বিপণন বিভাগের প্রধান এমদাদুল হক সরকার। এ সময় উপস্থিত ছিলেন মিরপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. নজরুল ইসলাম, ওয়ালটনের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর মো. হুমায়ূন কবির, ডেপুটি এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর উদয় হাকিম ও আরিফুল আম্বিয়া, অপারেটিভ ডিরেক্টর মোহাম্মদ শাহজাদা সেলিম, ফার্স্ট সিনিয়র অ্যাডিশনাল ডিরেক্টর মোহাম্মদ ফিরোজ আলম এবং মিডিয়া উপদেষ্ট এনায়েত ফেরদৌস।

আরাধন চন্দ্র সাহা জানান, তার গ্রামের বাড়ি কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী উপজেলার ধূলাদিয়া গ্রামে। বাড়িতে বাবা-মা এবং একমাত্র ছোটবোন থাকেন। বাবা মানিক চন্দ্র সাহা পানের ব্যবসা করেন। মা গৃহিনী। ছোট বোন এ বছর এইচএসসি পরীক্ষা দিয়েছেন।

ওয়ালটন ঈদ মেগা ডিজিটাল ক্যাম্পেইনে ফ্রিজ কিনে নতুন গাড়ি পেয়ে মহাখুশি আরাধন চন্দ্র সাহা


মাস ছয়েক আগে বিয়ে করেছেন আরাধন। স্ত্রী সবেমাত্র অনার্স ফাইনাল পরীক্ষা দিয়েছেন। বাড়িতে বাবা-মার কাছেই থাকেন। স্ত্রীকে ঢাকায় নিজের কাছে নিয়ে আসবেন বলে এ মাসেই মিরপুরে ছোট্ট একটি বাসা ভাড়া করেছেন আরাধন। এক এক করে কিনছেন নতুন সংসারের জন্য প্রয়োজনীয় পণ্য। প্রথমেই যে পণ্যটি কেনার পরিকল্পনা করেন সেটি ফ্রিজ।

দেশে-শুনে নিজের কষ্টের উপার্জনে সেরা ফ্রিজটি কিনতে মিরপুর এলাকার বেশ কয়েকটি দেশি-বিদেশি ইলেকট্রনিকস পণ্যের শোরুমে যান আরাধন। সঙ্গে ছিলেন তার সহকর্মী ও বন্ধু অজিত সূত্রধর। তবে এসব শোরুমের ফ্রিজের ডিজাইন, মান এবং দাম কোনোটিই মনমতো হয় না তার। এ সময় বন্ধু অজিত সূত্রধর বলেন দেশীয় ব্র্যান্ড ওয়ালটনের কথা।

তিনি জানান, ওয়ালটনের রয়েছে আকর্ষণীয় ডিজাইন ও কালারের অসংখ্য ফ্রিজ। অজিত গত কোরবানির ঈদের সময় একটি ওয়ালটন ফ্রিজ কিনেছেন। দারুণ সার্ভিস পাচ্ছেন। এছাড়াও তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোন থেকে শুরু করে ঘরের অন্যান্য ইলেকট্রনিক্স পণ্যই ওয়ালটনের।

বন্ধু অজিতের কথায় বিশ্বাস করে তার সঙ্গে মিরপুর ন্যাশনাল বাংলা হাইস্কুল মার্কেটের ওয়ালটনের শোরুম মেসার্স ইন্টারএকটিভ ইলেকট্রনিক্সে যান আরাধন। স্কুল গেটের পাশের সিঁড়ি দিয়ে দোতলায় উঠেই তার চক্ষু চড়কগাছ। বিশাল শোরুমে অসংখ্য কালার ও ডিজাইনের ফ্রিজ। দেখে-শুনে নিজের সামর্থ ও প্রয়োজন অনুযায়ী ৮ সিএফটি আয়তনের একটি ফ্রিজ পছন্দ করেন তিনি। নগদ ১৮ হাজার ২০০ টাকা দিয়ে ফ্রিজটি কেনেন তিনি।

নতুন গাড়িতে বসে বিজয়চিহ্ন দেখাচ্ছেন আরাধন চন্দ্র সাহা


ওয়ালটন পণ্য কিনলে গাড়ি, ক্যাশ ভাউচার বা অন্য কোনো পণ্য ফ্রি পাওয়ার সুযোগ আছে, এটা জানা ছিল না আরাধনের। ফ্রিজ কেনার পর ক্যাশমেমো করার সময় শোরুমের ম্যানেজার মো. আসাদুজ্জামান রিপন তাকে বিষয়টি জানান। তিনি আরাধনকে বলেন, ভাগ্য ভালো হলে নতুন গাড়িও পেতে পারেন। কিন্তু বিষয়টিকে বেশি গুরুত্ব দেন না আরাধন। তিনি তখন নিজের ছোট্ট সংসার সাজানোর সুখস্বপ্নে বিভোর। প্রয়োজনীয় ফার্নিচার এবং ফ্রিজ কেনা শেষ। এবার টেলিভিশনসহ টুকিটাকি আরো কিছু ইলেকট্রনিক্স পণ্য কিনতে হবে। তারপরই স্ত্রীকে নিয়ে আসবেন নিজের কাছে।

এমন ভাবনায় এতটাই মশগুল ছিলেন আরাধন যে কখন তার মোবাইলে ওয়ালটন থেকে এসএমএস এসেছে, তা টেরই পাননি। একই মেসেজ যায় শোরুমের ম্যানেজারের কাছেও। তিনি নিশ্চিত হওয়ার জন্য আরাধনের মোবাইলটা হাতে নিয়ে দেখতে চান। তারপর আরাধনের দিকে তাকিয়ে বলেন, আপনি অত্যন্ত ভাগ্যবান। আমাদের ঈদ মেগা ডিজিটাল ক্যাম্পেইনে ফ্রিজ কিনে পেয়েছেন নতুন গাড়ি। আপনাকে অভিনন্দন। ম্যানেজারের কথা শুনে বিষয়টি যেন বিশ্বাসই হতে চায় না আরাধনের। মাত্র ১৮ হাজার টাকায় ফ্রিজ কিনে তিনি কি সত্যিই নতুন গাড়ি পেয়েছেন! পরে নিজেও ওয়ালটন থেকে আসা মেসেজটা দেখেন। এবার বিশ্বাস জন্মে তার। নিজের ভাগ্যে নিজেই অবাক তিনি। বিষয়টি তখনই ফোন করে জানান বাবা-মা এবং স্ত্রীকে। তারাও ভীষণ খুশি। এর মধ্যে সঙ্গে থাকা বন্ধু অন্যান্য বন্ধু ও সহকর্মীদের জানিয়ে দেন ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে নতুন গাড়ি পাওয়ার কথা। একের পর এক অভিনন্দন জানিয়ে ফোন আসতে থাকে আরাধনের মোবাইলে।

তিনি বলেন, ওয়ালটন দেশীয় ব্র্যান্ড। তাদের তৈরি পণ্যের মান ভালো। দামও সবার হাতের নাগালে। এ কারণেই ওয়ালটন শোরুমে এসেছিলাম ফ্রিজ কিনতে। কিন্তু ফ্রিজ কিনে এতবড় উপহার পাবো, তা স্বপ্নেও ভাবিনি। আমি খুব খুশি। সবচেয়ে খুশি আমার স্ত্রী। আমাদের ছোট্ট সংসারের জন্য প্রথম ইলেকট্রনিক্স পণ্য কিনেই পেলাম নতুন গাড়ি। এরচেয়ে আনন্দের আর কি হতে পারে!

আরাধন চন্দ্র সাহাকে নিয়ে ঘোড়ার গাড়িতে ব্যান্ড পার্টিসহযোগে আনন্দ মিছিল


মিরপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. নজরুল ইসলাম বলেন, আমরা অত্যন্ত আনন্দিত যে আমাদের বাহিনীর একজন সদস্য ওয়ালটনের ফ্রিজ কিনে নতুন গাড়ি উপহার পেয়েছেন। ওয়ালটন আমাদের দেশের প্রতিষ্ঠান। বিভিন্ন সিএসআর কাজে ওয়ালটন আমাদের সহযোগিতা করছে। ওয়ালটন পণ্য বিশ্বমানসম্পন্ন। দামেও সাশ্রয়ী। এছাড়া ওয়ালটন ক্রেতাদের জন্য একটি সুযোগ রেখেছে বলে আমি তাদের ধন্যবাদ জানাই।

ওয়ালটনের এক্সক্লুসিভ ডিলার শোরুম মেসার্স ইন্টারএকটিভ ইলেকট্রনিক্সের ম্যানেজার মো. আসাদুজ্জামান রিপন জানান, এর আগেও এই শোরুম থেকে একজন ক্রেতা এসি কিনে ফ্রিজ পেয়েছিলেন। ডিজিটাল ক্যাম্পেইনের নতুন অফারের প্রথম গাড়িটি তার শোরুমের একজন ক্রেতা পাওয়ায় তিনি অত্যন্ত আনন্দিত। গাড়ি হস্তান্তরের পর ভাগ্যবান ক্রেতাকে নিয়ে ঘোড়ার গাড়িতে ব্যান্ড পার্টিসহযোগে মিরপুর ও এর আশপাশের বিভিন্ন এলাকায় আনন্দ মিছিল করা হয়েছে। যা ওই এলাকার ক্রেতা-দর্শনার্থীদের মাঝে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে।

ওয়ালটন সূত্রে জানা গেছে ‘ঈদের খুশি জমবে ভারি, নতুন গাড়ির ছড়াছড়ি’ স্লোগান নিয়ে ১ জুলাই থেকে শুরু হয়েছে ‘ঈদ মেগা ডিজিটাল ক্যাম্পেইন’। এর আওতায় ওয়ালটন টিভি, ফ্রিজ কিংবা এসি কিনে রেজিস্ট্রেশন করে ক্রেতারা পাচ্ছেন নতুন গাড়ি। রয়েছে ফ্রিজ, টিভি, এসিও। এসব ছাড়াও আছে নিশ্চিত ক্যাশব্যাকের সুযোগ। এই সুবিধা থাকছে ঈদুল আজহা বা কোরবানি ঈদ পর্যন্ত।

 


রাইজিংবিডি/ঢাকা/৫ জুলাই ২০১৮/অগাস্টিন সুজন/সাইফ

Walton Laptop
 
     
Walton