ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৯ মাঘ ১৪২৬, ২৩ জানুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

অজয় রায়ের মৃত‌্যুতে শোকে আচ্ছন্ন বামপন্থীরা

নিউজ ডেস্ক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১২-০৯ ৯:১০:০৪ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১২-০৯ ৯:১০:০৪ পিএম

অধ‌্যাপক অজয় রায়ের মৃত‌্যুতে শোকে আচ্ছন্ন বামপন্থীরা জাতীয় ও গণমানুষের নানা আন্দোলনে তাঁর সক্রিয় অংশগ্রহণের স্মৃতিচারণ করেছেন।

বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (মার্কসবাদী) এর কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক কমরেড মুবিনুল হায়দার চৌধুরী বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ অধ্যাপক অজয় রায়ের মৃত্যুতে গভীর শোক জানান।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, বরেণ্য শিক্ষাবিদ অধ্যাপক অজয় রায় এদেশের স্বাধীনতাসহ সমস্ত গণতান্ত্রিক আন্দোলনে ভূমিকা পালন করেছেন। স্বৈরাচার ও সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী সংগ্রামে যেমন সোচ্চার ছিলেন, তেমনি যুক্তিবাদী বিজ্ঞানমনস্ক সমাজ নির্মাণে ছিলেন সক্রিয়।

তিনি গণতান্ত্রিক শিক্ষা আন্দোলনেরও বলিষ্ঠ সংগঠক ছিলেন। শিক্ষা আন্দোলন মঞ্চ গড়ে তুলে সারাদেশের শিক্ষক ও শিক্ষানুরাগী ব্যক্তিবর্গদের সংগঠিত করেছেন। সৎ, সাহসী ও আদর্শনিষ্ঠ শিক্ষকের আজীবন নিরবিচ্ছিন্ন সংগ্রাম আগামী দিনের শিক্ষা ও গণতান্ত্রিক আন্দোলনের সকল কর্মীদের প্রেরণার উৎস হয়ে থাকবে।

অন‌্যদিকে বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদের সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান অজয় রায়ের প্রতি শোক জানিয়ে বিবৃতিতে বলেছেন, সমাজে বিজ্ঞানমনস্কতা ও যুক্তিবোধ তৈরিতে এবং বিভিন্ন সামাজিক আন্দোলনে ড. অজয় রায় মৃত্যুর আগ পর্যন্ত খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন। মুক্তিযোদ্ধা এই অধ্যাপকের সক্রিয় অংশগ্রহণ ছিল ভাষা আন্দোলন ও উনসত্তরের গণঅভ্যুত্থানেও। তিনি ছিলেন শিক্ষা আন্দোলন মঞ্চের সভাপতি এবং ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা। অধ্যাপক অজয় রায় পিতা হিসেবে অসামান্য সাহসীকতা ও দৃঢ় চিত্তের পরিচয় দিয়েছেন তার সন্তান বিশিষ্ট বিজ্ঞান লেখক অভিজিৎ রায়কে হত্যার পর। সন্তানের মৃত্যুতে তিনি শোকাহত হলেও ভেঙে পড়েননি। সন্তান হত্যার বিচারের দাবিতে সর্বত্র সক্রিয় থেকেছেন। সন্তানের মৃত্যুর বেদনা বুকে নিয়েও গণমানুষের স্বার্থের যেকোন গণতান্ত্রিক আন্দোলনে তার সরব উপস্থিতি নানা আন্দোলনকে শক্তি যুগিয়েছে।

বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক বিবৃতিতে বলেন, প্রয়াত অজয় রায় ছিলেন প্রগতিশীল, মুক্তমনা, দেশ ও মানুষের প্রতি দায়বদ্ধ একজন মানুষ। মুক্তিযোদ্ধা এই অধ্যাপক সারাজীবন এদেশের মুক্তিকামী মানুষের গণতান্ত্রিক আকাঙ্ক্ষাকে ধারণ করেছেন। তাঁর মৃত্যুতে দেশের শিক্ষাঙ্গণ এক মহান শিক্ষাবিদকে হারাল।

বাংলাদেশ জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-বাংলাদেশ জাসদের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি জনাব শরীফ নুরুল আম্বিয়া ও সাধারণ সম্পাদক জনাব নাজমুল হক প্রধান এক যুক্ত বিবৃতিতে তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেন।

শোক বিবৃতিতে তারা বলেন, “শিক্ষা আন্দোলন মঞ্চের প্রতিষ্ঠাতা একুশে পদকপ্রাপ্ত বরেণ্য অধ্যাপক অজয় রায় স্বচ্ছ চিন্তার অধিকারী একজন মানুষ ছিলেন। একটি অসাম্প্রদায়িক-গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ তাঁর স্বপ্ন ছিল। ধর্মনিরপেক্ষ মুক্তচিন্তার রাষ্ট্র গঠনের জন্য তিনি সারাজীবন নিরলস সংগ্রাম করেছেন। তিনি একজন সাহসী মুক্তিযোদ্ধা এবং মহান ভাষা আন্দোলনে সক্রিয় অংশগ্রহণ করেছেন। তাঁর মৃত্যুতে জাতি একজন কৃতি সন্তানকে হারালো। সে ক্ষতি এবং শূন্যতা পূরণ হওয়ার মত নয়। ‘

বাংলাদেশ ছাত্রলীগ-বিসিএলের সভাপতি মো. শাহজাহান আলী সাজু ও সাধারণ সম্পাদক গৌতম শীল যুক্ত বিবৃতিতে বলেন, তাঁর মৃত্যুতে জাতি একজন কৃতি সন্তানকে হারালো।

এছাড়া সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট, ছাত্র সংহতি, ছাত্র ঐক‌্য ফোরামসহ বিভিন্ন ছাত্র সংগঠন অজয় রায়ের মৃত‌্যুতে শোক জানিয়েছে।


নিউজ ডেস্ক/সাজেদ