ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ কার্তিক ১৪২৬, ২২ অক্টোবর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

অধিকাংশ বাসে নেই ফিটনেস

হাসান মাহামুদ : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৯-২৪ ৮:৪১:৩৫ এএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৯-২৪ ৪:৩৩:০২ পিএম
ছবি : হাসান মাহমুদ

তিনবছর আগে দেশের একটি এফএম রেডিওতে প্রচারিত একটি অনুষ্ঠানে ঢাকার কিছু ট্রাফিক জ্যামের নামকরণ করেছিল। এর মধ্যে আসাদগেট এলাকার জ্যামকে নাম দেয়া হয় ‌'সকালের স্কুল জ্যাম' এলাকা। যারা সকাল থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত এই সড়কে যাতায়াত করেন তাদের কাছে নামকরণটিকে খুব একটা ভুল মনে হবে না।

মোহাম্মদপুর বাসস্ট্যান্ড থেকে আসাদগেট পর্যন্ত অংশের কোনো এলাকাগত বৈশিষ্ট্য নেই। একটু অংশ বাণিজ্যিক তো ২০ ফুট সামনে আবাসিক এলাকা।

মূল সড়কের পাশে আবাসিক এলাকায় গড়ে উঠেছে বেশকিছু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কারণে এই এলাকায় সকাল ৮টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত প্রচণ্ড জ্যাম লেগে থাকে।

 

 

এই এলাকার জ্যামের দ্বিতীয় প্রধান কারণ হিসেবে ধরা হয়, প্রাইভেট কারগুলোর অবৈধভাবে পার্কিং। প্রায় প্রতিদিন এলাকার কাঁচাবাজার এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সামনে এসব পার্কিংয়ের জন্য আসাদগেট এলাকায় জ্যাম লাগে।

গাবতলী থেকে আজিমপুর এবং মোহাম্মদপুর থেকে ফার্মগেট দুটো প্রধান সড়কের সংযোগ এই আসাদগেট। তাই আসাদগেট মোড়ে যাত্রী চাপ বেশি থাকে। যাত্রী ওঠানোর জন্য আসাদগেট মোড়ে প্রায় প্রতিটি বাস রাস্তার বাম সাইড চেপে চলে। এতে প্রতিনিয়তই অনাকাঙ্খিত জ্যাম হয়।

রোববার সকাল ১০টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত সরেজমিন পরিদর্শনে এসব কারণ খুঁজে পাওয়া গেছে।

 

 

রাজধানীতে এখন ব্যাপক হারে বেড়েছে কাউন্টার বাস সার্ভিস। গাবতলী এবং মিরপুর-১ থেকে ছেড়ে আসা সব কাউন্টার সার্ভিস বাসের চেক পয়েন্ট কলেজগেটে অবস্থিত। শিশুমেলার মোড় পার হওয়ার পর তাই প্রায় সব কাউন্টার বাসই রাস্তার বাম পাশ হয়ে চলে এবং হিসেবের সুবিধা পাওয়ার জন্য যাত্রী নামায় চেকের আগে। চেকিংয়ের জন্য একসাথে অনেক বাস কলেজগেটে থামে। ফলে এখানে একটি কৃত্রিম জ্যাম হয়। এই জ্যামের প্রভাব থাকে আসাদগেট মোড় পর্যন্ত।

সকাল ১০টায় আসাদগেট মোড়ে ট্রাফিকের দায়িত্ব পালন করছিলেন আবদুর রশিদ। তার সাথে কথা বললে তিনি রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘ড্রাইভাররা সচেতন না, এটি যানজটের অন্যতম কারণ। যত্রতত্র যাত্রী ওঠানো-নামানো এসব বন্ধ না হলে সমস্যা কাটবে না।’

তিনি আরো বলেন, ‘গত মাস থেকে রেকারিং ও প্রসিকিউশনে কোনো নগদ টাকায় জরিমানা পরিশোধ বা লেনদেন হয় না। তাই কিছুটা অনিয়ম কমেছে, তবে একেবারে কমেনি।’

বেলা সাড়ে ১২টার দিকে গাড়ির ফিটনেস নবায়ন না থাকায় সংসদ ভবন মোড়ে মামলা দেয়া হয় ৮ নম্বর একটি গাড়িকে।

 

 

ডিউটি পরিবর্তন হয়ে তখন ওই এলাকায় ট্রাফিকের দায়িত্ব পালন করছিলেন শহীদুল ইসলাম। তিনি রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘আপনি যদি পরীক্ষা করতে যান, অধিকাংশ গাড়িতেই কোনো না কোনো সমস্যা পাবেন। এসব সমস্যা নিয়েও যারা রাস্তায় নামছে বা নামাচ্ছে- তাদের কাছ থেকে আপনি কি নিয়ম পালন আশা করবেন। আমরা ট্রাফিক শৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্বে নিয়োজিত। শৃঙ্খলার বিষয়টা আমরা দেখি। দেখবেন অবৈধ ও সমস্যাপূর্ণ গাড়ির বিরুদ্ধে অভিযান চললে রাস্তাশূন্য।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমার মতে আগে সচেতন হওয়া দরকার মানুষের, মালিকপক্ষের।’

তিনি রাইজিংবিডিকে আরো বলেন, ‘প্রতিবছর ২২ সেপ্টেম্বর পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে ওয়ার্ল্ড কার ফ্রি ডে বা বিশ্ব ব্যক্তিগত গাড়িমুক্ত দিবস পালন করা হয়। আমাদের দেশেও গত কয়েক বছর ধরে এটি পালনের সিদ্ধান্ত হয়েছে। আজ সে দিবস। কিন্তু আপনি কি ব্যক্তিগত গাড়ি দেখছেন না?’

শহিদুল ইসলাম বলেন, ‘সচেতনতা গোড়া থেকে দরকার। শুধু রাস্তার শৃঙ্খলাই সমাধান নয়।’


ঢাকা/হাসান /জেনিস

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন