ঢাকা, বুধবার, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ২০ নভেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

আমি ১৫০, সৌম্য ১২০ করলেই তো হয় : সাকিব

ইয়াসিন : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৯-০৮ ৮:৫৬:৩৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৯-০৮ ১০:৩০:৩৪ পিএম

চট্টগ্রাম থেকে ক্রীড়া প্রতিবেদক : চট্টগ্রাম টেস্ট জিততে হলে অসম্ভবকে সম্ভব করতে হবে বাংলাদেশকে।

আফগানিস্তান বাংলাদেশকে ৩৯৮ রানের লক্ষ্য ছুঁড়ে দিয়েছে। ৬ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশ তুলেছে ১৩৬ রান।  চতুর্থ দিন শেষে সাকিব অপরাজিত ৩৯ রানে।  তার সঙ্গে সৌম্যও আছেন কোনো রান না করে।  শেষ দিনে জয়ের জন্য ২৬২ রান করতে হবে বাংলাদেশকে।  সাকিব ও সৌম্যর পর প্রতিষ্ঠিত ব্যাটসম্যান কেউ নেই।  মিরাজ, তাইজুল ও নাঈম প্রত্যেকেই ব্যাটিং পারেন। কিন্তু বিশাল লক্ষ্য তাড়া করার অভিজ্ঞতা তাদের নেই।  এজন্য সাকিব ভরসা রাখছেন নিজের ও সৌম্যর ওপর।

‘রান কতো দরকার? ২৭০ এর মতো... দুইজনের একশো একশো করতে হবে।  আসলে একশো একশো না। একজনের ১২০ আরেকজনের ১৫০ করা লাগবে। ’ – হাসতে হাসতে বলছিলেন সাকিব।

দলকে খাদের কিনারা থেকে টেনে তোলার অভিজ্ঞতা আছে সাকিবের।  ২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে সাকিব সেঞ্চুরি তুলে বাংলাদেশকে তুলেছিলেন সেমিফাইনালে।  তাকে সঙ্গ দিয়ে সেঞ্চুরি পেয়েছিলেন মাহমুদউল্লাহও।  সেই সুখস্মৃতি মনে করিয়ে দিয়ে সাকিব বলেন,‘কার্ডিফ ফেরাতে অন্য পাশে থাকা লাগবে একজন।  দুইজনেরই করা লাগবে।  আমি যদি ১৭০ করি ওর (সৌম্যর) অন্তত ১০০ তো করা লাগবে।  তাহলে আমরা জিততে পারব।  কিংবা আমার ১৫০ আর ওর ১২০ করা লাগবে।  অসম্ভব না কিন্তু অনেক কাজটা কঠিন।’

শুরুতে ৩৯৮ রান তাড়া করা অসম্ভব মনে হয়নি সাকিবের। বিশেষ করে দুই ওপেনার যখন ৩০ রানের জুটি গড়ে প্রথম দশ ওভার ভালোভাবে কাটিয়ে দেন তখন তার হচ্ছিল চেষ্টা করলে, বড় মন নিয়ে খেললে জয়ের কাছাকাছি যেতেও পারে দল। কিন্তু নিজেদের ব্যর্থতায় অনেক কিছুই হয়নি।  এখনও সাকিব আশা দেখছেন কিন্তু বাস্তবতা মেনে বলছেন, ম্যাচ হাতছাড়া হতে পারে। ’ মনের দুঃখ ঢাকতে হাসতে হাসতে বললেন,‘দুনিয়াতে কিছুই অসম্ভব নয়। দেখা যাক না কি হয়। আরেকটা আছে তো,  বৃষ্টি!  ওটাও আমাদের বাঁচাতে পারে। বেশ কয়েকটা পথ আছে। এখন বাকিটা দেখা যাক।’


রাইজিংবিডি/চট্টগ্রাম/৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯/ইয়াসিন/আমিনুল

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন