ঢাকা, বুধবার, ১৫ মাঘ ১৪২৬, ২৯ জানুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

উইকেটে খেলতে না পারার মতো কিছু ছিল না: মুমিনুল

ইন্দোর থেকে ক্রীড়া প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১১-১৪ ১০:২০:৫৭ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১১-১৪ ১০:৪৩:১৭ পিএম

‘ধৈর্য্য ধরেন আরও হয়তো সময় লাগতে পারে।’ – মুমিনুল বলছিলেন সংবাদ সম্মেলনে।

টেস্টের প্রথম দিন সংবাদ সম্মেলনে দলীয় অধিনায়ক আসেন খুব কম সময়ই। হ্যাঁ, দলের বিপর্যয়ে অধিনায়ক চাইলে আসতে পারেন। সাকিব যেন আফগানিস্তানের বিপক্ষে টেস্টে পাঁচদিনের চারদিনই এসেছিলেন। অবশিষ্ট দিনে পাঠিয়েছিলেন তাইজুলকে। মুমিনুলকে অধিনায়কত্বে অভিষেকের দিনে এমন একটি দিন দেখতে হলো। কি করার! দল যখন মাত্র ১৫০ রানে অলআউট হয় তখন সামনে থেকে নেতৃত্ব তো দিতেই হবে। মুমিনুল এগিয়ে আসলেন।

প্রশ্ন ছিলে টেস্ট ক্রিকেটে ভালো করতে আরো কতো সময় লাগবে? তাতে মুমিনুল বললেন, ‘ধৈর্য্য ধরতে।’ মুমিনুলের বার্তা সবার জন্য। আমজনতা পাল্টা প্রশ্ন তাদের ছুঁড়ে দিতে পারে বাংলাদেশের ১১তম টেস্ট অধিনায়কের উদ্দেশ্যে, ‘আপনারা কেন উইকেটে একটু ধৈর্য্য ধরতে পারেন না?

এ প্রশ্নের কোনো উত্তর থাকার কথা না মুমিনুলের। ইন্দোরে ভারতীয় পেসারদের বিপক্ষে যেভাবে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা আউট হয়েছে তাতে মনে হতেই পারে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের ধৈর্য্যর ঘাটতি চরম। বিশেষ করে ৪৮তম টেস্ট খেলতে নেমে মাহমুদউল্লাহ যেভাবে আউট হয়েছেন তার ব্যাখ্যা থাকার কথা না কোনো। কিংবা ইমরুল বা সাদমানের সাদামাটা আউটের ব্যাখ্যা কী?

ভারতের শক্তিশালী পেস আক্রমণের কথা বলা হলেও মুমিনুল মনে করছেন আন্তর্জাতিক পর্যায়ে এ ধরণের পেস আক্রমণ খেলেই টিকে থাকতে হবে, ‘আপনি এই লেভেলে যদি খেলতে চান, তাহলে আপনাকে এ পেস বলের বিপক্ষে খেলতেই হবে। আন্তর্জাতিক পর্যায়ে সব সময়ই চ্যালেঞ্জ থাকে। ভারতের মাঠে ভারতের বিপক্ষে অবশ্যই এটা চ্যালেঞ্জিং। সেই চ্যালেঞ্জ আপনাকে নিতেই হবে।’

ইশান্ত শর্মা, উমেশ যাদব ও মোহাম্মদ সামিদের বলে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা যেভাবে ব্যাটিং করেছে তাতে মনে হয়েছে ২২ গজ তাদের জন্য বধ্যভূমি। কিন্তু মুমিনুলের মতে উইকেট আনপ্লেয়েবল কিছুই ছিল না। নিজেদের ভুলে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়েছে বাংলাদেশ।

‘উইকেট কোনোভাবেই আনপ্লেয়েবল ছিল না। যে দলের বিপক্ষে খেলছি তাদের বোলিং বিশ্বের এক নম্বর।  এদের সঙ্গে খেলতে গেলে আপনাকে মানসিকভাবে অনেক শক্ত হতে হবে। তাদের চেয়ে অনেক বেশি শক্তিশালী হতে হবে। উইকেট আনপ্লেয়েবল হলে কেউ খেলতে পারতো না। অনেকে ইনজুরিতেও পড়তো। যদি খেলতে না পারার মতো কিছু থাকতো তাহলে আমি কিছু রান করতে পারতাম না, মুশফিক ভাইও পারতো না। খেলার মতো ছিল । মাঝে আমরা মনোযোগ হারিয়ে সব নষ্ট করেছি।’  - বলেছেন মুমিনুল।


ইন্দোর/ইয়াসিন/আমিনুল