ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ কার্তিক ১৪২৬, ২২ অক্টোবর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

এখনই কমছে না তেলের দাম

মোহাম্মদ নঈমুদ্দীন : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৭-০১-১৮ ১:৫৩:৪১ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০১-১৯ ১:৫৪:৫৪ পিএম

সচিবালয় প্রতিবেদক : এই মুহূর্তে তেলের দাম কমছে না বলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ।

বুধবার সচিবালয়ে ইস্টার্ন রিফাইনারির নতুন ইউনিট গঠনের জন্য ডিজাইন তৈরির লক্ষ্যে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের (বিপিসি) সঙ্গে মালয়েশিয়ার টেকলিপ এবং ফ্রান্সের প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর শেষে মন্ত্রী এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, দুই ধাপে তেলের দাম কমানোর কথা ছিল। আমরা সরকারের কাছে প্রস্তাবও পাঠিয়েছিলাম। কিন্তু হঠাৎ করে আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম বেড়েছে। তাই এখনই তেলের দাম কমানোর সিদ্ধান্ত নেই। এমনকি আগামী বছরে তেলের দাম বাড়তে পারে।

তিনি আরো বলেন, সরকারের কাছে বিপিসির ভর্তুকির পরিমাণ এখনো প্রায় ১৬ থেকে ১৭ হাজার কোটি টাকা। সব মিলিয়ে এই মুহূর্তে মনে হচ্ছে না তেলের দাম সমন্বয় করা যাবে।

এখন ডিজেল ও ফার্নেস অয়েলে বিপিসির লাভের বিষয়ে নসরুল হামিদ বলেন, ‘ডিজেলে খুব কম লাভ। এখানে সরকার ভর্তুকি দেয় যখন তা কৃষক পর্যায়ে যায়। এ ভর্তুকিটা আরো বেশকিছু বছর রাখতে হবে। আমাদের পোভার্টি (দারিদ্র্য) যতদিন শেষ না হয়, ততদিন ডিজেলে এটা রাখতে হবে। জেট ফুয়েলে কিছুটা লাভ করি। এ ছাড়া তো তেল আমরা আনি না। পেট্রোল আর অকটেন এখন আমার নিজেরা দেশেই উৎপাদন করি।’

ভর্তুকির টাকা ফেরত নেওয়া হচ্ছে কেন জানতে চাইলে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘এ প্রশ্ন আমারও। আমরা ভর্তুকি দিলে তা আবার ফেরত নেওয়ার দরকার কি? আমার মনে হয়, এ প্রশ্নটা থেকে যাচ্ছে।’

তেলের দাম না কমিয়ে সরকার প্রতারণা করছে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমরা প্রস্তাব দিয়েছিলাম, কিন্তু সরকার তেলের দাম হঠাৎ বেড়ে যাওয়ায় এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া থেকে সরে এসেছে।’

এর আগে ইস্টার্ন রিফাইনারির নতুন ইউনিট গঠনের জন্য ডিজাইন তৈরির লক্ষ্যে বিপিসির সঙ্গে মালয়েশিয়া টেকলিপ এবং ফ্রান্সের প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর হয়। বিপিসির পক্ষে প্রকল্প পরিচালক সৈয়দ মোজাম্মেল, ফ্রান্সের পক্ষে দেদিয়ার লেকুইক এবং মালয়েশিয়ার টেকলিপের পক্ষে কোম্পানিটির পরিচালক আমরান বিন আহমদ নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।

এ সময় বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ, জ্বালানি সচিব নাজিমউদ্দিন চৌধুরী এবং ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূত উপস্থিত ছিলেন।

এ প্রসঙ্গে জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী বলেন, আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন ইউরো ৫ মানের পেট্রোলিয়াম পণ্য উৎপাদনের লক্ষ্যে ইস্টার্ন রিফাইনারির নতুন একটি ইউনিট গঠন করতে যাচ্ছে সরকার। যা সাম্প্রতিক সময়ে বিশ্বের সবচেয়ে আধুনিক ইউনিট। এজন্য আজ ডিজাইন তৈরির চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। ডিজাইন হাতে পেলে বাকি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হবে।

তিনি বলেন, প্রকল্পটি ১০ বছরের পুরনো। এটি বিপিসির অর্থায়নে বাস্তবায়িত হবে। এই ইউনিট গঠন প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে বর্তমান রিফাইনারির পরিশোধন ক্ষমতা আরো ৩০ লাখ মেট্রিক টন বাড়বে। এখন একটি ইউনিটে পরিশোধন হয় ১৫ লাখ মেট্রিক টন। এককথায় প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে ইআরএলের প্রক্রিয়াকরণ ক্ষমতা ৪৫ লাখ মেট্রিক টনে উন্নীত হবে।

প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে পরিশোধিত জ্বালানি তেলের আমদানিনির্ভরতা কমবে এবং সাশ্রয়ী মূল্যে পরিশোধিত জ্বালানি তেল উৎপাদন সম্ভব হবে। ফলে বছরে এ খাতে প্রায় ৩০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার সাশ্রয় হবে।

প্রকল্পের জন্য বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে ৩০ একর জমি লিজ নেওয়া হয়েছে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৮ জানুয়ারি২০১৭/নঈমুদ্দীন/হাসান/রফিক

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন