ঢাকা, শুক্রবার, ৫ আশ্বিন ১৪২৬, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

ক্রেতাদের কাছে জনপ্রিয় ‘বিলাতি আনারস’

মামুন চৌধুরী : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৮-২৪ ১২:৫০:৫৯ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৮-২৪ ৩:১৩:৩৩ পিএম
ক্রেতাদের কাছে জনপ্রিয় ‘বিলাতি আনারস’

হবিগঞ্জ সংবাদদাতা : হবিগঞ্জ ও মৌলভীবাজারে বাণিজ্যিকভাবে চাষ করা হচ্ছে রসালো ফল বিলাতি আনারস। অনুকূল আবহাওয়া ও আধুনিক প্রযুক্তি কাজে লাগিয়ে ফলন ভালো হওয়ায় খুশি আনারস চাষীরা। স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে রাজধানী ঢাকাসহ বিভিন্ন জেলায় যাচ্ছে বিলাতি আনারস।

ক্রেতাদের কাছে এ আনারস জনপ্রিয় হয়ে ওঠায় হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ নতুন ব্রিজ এলাকায় দেদারছে বিক্রি হচ্ছে।

বিক্রেতা চুনারুঘাট উপজেলার উবাহাটা গ্রামের মাসুক মিয়া বাহুবলের মুছাই ও শ্রীমঙ্গলের আড়ৎ থেকে বিলাতি আনারস ক্রয় করে নিয়ে আসছেন।

আনারস পিস হিসেবে এবং টুকরো করেও বিক্রি হচ্ছে। ক্রেতারা প্রতি পিস আনারস ৩০ থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ৭০ টাকায় ক্রয় করছেন।এছাড়া, প্রতি টুকরো আনারস ৫ থেকে ১০ টাকায় ক্রয় করে খাচ্ছেন ক্রেতারা।

ক্রেতা মাসুম মিয়া জানান, বিলাতি আনারসের স্বাদই আলাদা। প্রায়ই ক্রয় করি এ আনারস। তার ন্যায় শত শত ক্রেতা বিলাতি আনারসের প্রশংসা করেছেন।

আলাপকালে বিক্রেতা মাসুক মিয়া জানান, সৎ পথে জীবিকা নির্বাহে তিনি আনারস বিক্রি করছেন। বারো মাস তিনি এ ফলটি বিক্রি করে থাকেন। ক্রেতাদের কাছে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে এ ফল। তিনি জানান অনেক সময় জলঢুপি আনারসও নিয়ে এসে বিক্রি করেন।

জানা গেছে, হবিগঞ্জের বাহুবল, নবীগঞ্জ ও চুনারুঘাটে এবং মৌলভীবাজার সদর, শ্রীমঙ্গল, রাজনগর ও কমলগঞ্জসহ বেশ কয়েকটি উপজেলায় বাণিজ্যিকভাবে চাষ করা হচ্ছে বিলাতি ও জলঢুপিসহ নানা প্রজাতির আনারস।

উৎপাদিত এসব বিলাতি আনারস বেচা-কেনার জন্য শ্রীমঙ্গল শহরে গড়ে উঠেছে বেশকিছু আড়ৎ। তার ন্যায় হবিগঞ্জের বাহুবলের মুছাইয়েও আড়ৎ রয়েছে। রাজধানী ঢাকাসহ দেশের অন্যান্য জেলা থেকে আনারস কিনতে আড়তে আসছেন ব্যবসায়ীরা।

এদিকে, আশানুরূপ ফলন হওয়ায় দারুণ খুশি চাষীসহ সবাই।এদিকে, অনুকূল আবহাওয়া ও আধুনিক প্রযুক্তি কাজে লাগিয়ে এ বছর আনারসের ফলন ভালো হয়েছে বলে জানিয়েছে কৃষি বিভাগ।

কৃষি বিভাগ জানায়, কৃষকেরা আধুনিক প্রযুক্তি অনুসরণ করার কারণে এবং অধিক হারে জৈব সার ব্যবহার ছাড়াও নিয়মিত বৃষ্টিপাত হওয়ায় আনারসের ফলন ভালো হয়েছে।

কৃষি বিভাগের তথ্য মতে, মৌলভীবাজার জেলায় এক হাজার ১১ হেক্টর জমিতে আনারসের চাষাবাদ হয়েছে। আর উৎপাদিত আনারসের পরিমাণ ১৩ হাজার ৬শ ৮৮ মেট্রিক টন।

আর হবিগঞ্জ জেলায় ২০০ হেক্টর জমিতে আনারসের চাষাবাদ হচ্ছে। আর উৎপাদিত আনারসের পরিমাণ ৪ হাজার মেট্রিক টন।

ডা. এমএ মোতালিব বলেন, ‘ভিটামিন সি, নানা খনিজ পুষ্টি উপাদান যেমন পটাশিয়াম, কপার, ম্যাঙ্গানিজ, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, বিটা-ক্যারোটিন, থায়ামিন, ফোলেট, এমনকি ফাইবার এবং ব্রোমেলিন ইত্যাদি নানা কার্যকরি উপাদানে সমৃদ্ধ আনারস।

আনারস শুধু যে খেতেই সুস্বাদু, তা কিন্তু নয়। এই ফলটি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে, হজম শক্তি বাড়ায়, হাড় শক্ত করে, প্রদাহ জনিত সমস্যা দূর করে, ঠান্ডা লাগা এবং কাশি কমাতেও কাজে আসে। এখানেই শেষ নয়, গবেষণায় বলছে অতিরিক্ত ওজন কমাতেও আনারসের দারুণ ভূমিকা।’


রাইজিংবিডি/ হবিগঞ্জ/২৪ আগস্ট ২০১৯/ মো. মামুন চৌধুরী /জেনিস

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন