ঢাকা, সোমবার, ০ পৌষ ১৪২৬, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

গীতিকার শহরে চলচ্চিত্র উৎসব

আমিনুল ইসলাম শান্ত : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৮-২৯ ১১:১৯:২৮ এএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৮-২৯ ১১:২৮:০৭ এএম

বিনোদন ডেস্ক: লোক সংস্কৃতি, লোক উৎসব, লোকসংগীত ও লোকগাঁথার তীর্থস্থান ময়মনসিংহ। এই এলাকার একটি ঐতিহ্য হলো— মৈমনসিংহ গীতিকা। গীতিকার সেই শহরে এবার বসতে যাচ্ছে চলচ্চিত্র উৎসব।

‘লেটস সিনেমা!’ স্লোগান নিয়ে চলচ্চিত্র সংসদ, সিনেমা বাংলাদেশ আয়োজন করতে যাচ্ছে ‘গ্লোবাল ইয়ুথ ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল বাংলাদেশ-২০১৯’। আগামী ৫-৭ সেপ্টেম্বর ময়মনসিংহ জেলা শিল্পকলা একাডেমির মিলনায়তনে বিশ্ব চলচ্চিত্রের তরুণ নির্মাতাদের নিয়ে এই আসর বসবে। উৎসবে দেশ-বিদেশের ৭৪টি চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হবে। উৎসবে কয়েকজন আন্তর্জাতিক নির্মাতা উপস্থিত থাকবেন বলেও আশা ব্যক্ত করছেন আয়োজকরা।

উৎসবের আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতা বিভাগে জমা পড়েছে বিশ্বের ১০১টি দেশের তরুণদের নির্মিত প্রায় ১৭০০ চলচ্চিত্র। ৭ সেপ্টেম্বর সমাপনী দিনে বিচারকের রায়ে পুরস্কারপ্রাপ্ত সেরা আটটি চলচ্চিত্রের নাম ঘোষণা করা হবে। উৎসবের প্রযোজক ও তরুণ নির্মাতা হেমন্ত সাদীক জানান, গত উৎসব থেকে বাংলা তথা ভারতীয় উপমহাদেশের চলচ্চিত্রের পথিকৃৎ হীরালাল সেনের নামে একটি পুরস্কারের প্রবর্তন করেছে গ্লোবাল ইয়ুথ ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল বাংলাদেশ। এবার বাংলাদেশি তরুণদের শতাধিক চলচ্চিত্র জমা পড়েছে ‘হীরালাল সেন শ্রেষ্ঠ বাংলাদেশি চলচ্চিত্র’ বিভাগে। এই বিভাগের বিচারক হিসেবে আছেন নির্মাতা নূরুল আলম আতিক, নির্মাতা ও চলচ্চিত্র শিক্ষক জাহিদুর রহমান অঞ্জন এবং খ্যাতনামা স্থপতি-নির্মাতা এনামুল করিম নির্ঝর।

উৎসবের আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র বিভাগের বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী, ৭২তম কান চলচ্চিত্র উৎসবে বিচারকের দায়িত্ব পালন করা ফিপরেসকি (ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অব ফিল্ম ক্রিটিকস) সদস্য সাদিয়া খালিদ এবং আলোচিত ইরানি নির্মাতা মোর্তেজা ফার্শবাফ।

এছাড়া উৎসবের অংশ হিসেবে দেশ-বিদেশের ৫০ জন নির্মাতার অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হবে চলচ্চিত্র নির্মাণ কর্মশালা। প্রশিক্ষক হিসেবে থাকবেন— নির্মাতা গোলাম রাব্বানী বিপ্লব, প্রসূন রহমান, জসীম আহমেদ, কথাশিল্পী সাদাত হোসাইন প্রমুখ। সিনেমা বাংলাদেশের সাধারণ সম্পাদক জিসান মাহাদি জানান, লক্ষ্মীপুর ও রংপুরে সফলভাবে দুটি উৎসব আয়োজনের পর এটি সিনেমা বাংলাদেশের তৃতীয় আয়োজন। পর্যায়ক্রমে এটি দেশের অন্যান্য অঞ্চলেও আয়োজনের পরিকল্পনা রয়েছে।

প্রতিযোগিতার বাইরে এই সময়ের আলোচিত তিনটি পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হবে ‘আমন্ত্রিত চলচ্চিত্র বিভাগে’। উৎসব সমন্বয়ক আসমা আখতার লিজা জানান, এরই মধ্যে উৎসবটি নিয়ে ব্যাপক সাড়া পড়েছে ময়মনসিংহে। পৃথিবীর নানা প্রান্তের নির্মাতারা বাংলাদেশ ও ময়মনসিংহকে মেনশন করে তাদের চলচ্চিত্র নির্বাচিত হওয়ার সংবাদ শেয়ার করছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। তাদের অনেকেই ময়মনসিংহে আসার আগ্রহ প্রকাশ করছেন। বিষয়টি নিয়ে এই অঞ্চলের তরুণরা খুবই উচ্ছ্বসিত।


রাইজিংবিডি/ঢাকা/২৯ আগস্ট ২০১৯/শান্ত/তারা

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন