ঢাকা, সোমবার, ৮ আশ্বিন ১৪২৬, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

চাঞ্চল্যকর সাবিনা ধর্ষণ ও হত্যা রহস্য উদঘাটন, ধর্ষক গ্রেপ্তার

গাজী হানিফ মাহমুদ : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৬-১২ ৬:৩১:৫৩ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৬-১৪ ১০:৫৬:৪৮ পিএম
চাঞ্চল্যকর সাবিনা ধর্ষণ ও হত্যা রহস্য উদঘাটন, ধর্ষক গ্রেপ্তার

নরসিংদী প্রতিনিধি : নরসিংদীর শিবপুর উপজেলার চাঞ্চল্যকর প্রতিবন্ধী সাবিনা আক্তার (২১) ধর্ষণ ও হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন এবং ধর্ষক সাইফুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছে র‌্যাব-১১।

বুধবার দুপুর ১টায় নরসিংদী প্রেসক্লাব মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব-১১ এর অধিনায়ক কাজী শামসের উদ্দিন সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। এ সময় র‌্যাবের মিডিয়া অফিসার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আলেপ উদ্দিন মামলার তদন্ত কর্মকর্তাসহ র‌্যাবের অন্যান্য সদস্য উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে কাজী শামসের উদ্দিন বলেন, ‘শিবপুর উপজেলার মাছিমপুর গ্রামের সাবিনা আক্তার (২১) নামের এক প্রতিবন্ধী যুবতীর সাথে একই উপজেলার পাশ্র্ববর্তী দুলালপুর (খালপাড়) গ্রামের মৃত হানিফ উদ্দিনের পুত্র সাইফুল ইসলামের (২৮) পরিচয় ঘটে এবং সাইফুল সাবিনাকে প্রেম নিবেদন করে। গত ৬ জুন বিকেলে সাবিনাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে দুই সন্তানের জনক আসামি সাইফুল ইসলাম একটি সিএনজিযোগে স্থানীয় কাজীরচর পূর্বপাড়া গ্রামের মো. নাজিম উদ্দিনের কলাবাগানের ভিতর নির্জন স্থানে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এতে সাবিনা বাধা দিলে সাইফুল তার জামা দিয়ে সাবিনাকে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করে এবং হত্যার পর সাবিনার লাশ বিবস্ত্র করে তাকে ধর্ষণ করে।  পরে লাশ কলাবাগানে ফেলে রেখে সাবিনার ব্যবহৃত মোবাইলফোন ও ভ্যনিটি ব্যাগ নিয়ে তার নিজ বাড়িতে চলে যায়। ’



তিনি বলেন, ‘ঘটনার পর থেকে সাইফুল আত্মগোপন করে থাকে। গত ৮ জুন স্থানীয় লোকজন উল্লেখিত কলাবাগানে লাশ দেখে শিবপুর থানা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।  এ ব্যাপারে সাবিনার মাতা আফিয়া আক্তার বাদী হয়ে শিবপুর থানায় অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। র‌্যাব-১১ মামলা সূত্রে খবর পেয়ে তাদের একটি গোয়েন্দা দল মিডিয়া অফিসার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার  মো. আলেপ উদ্দিনের নেতৃত্বে তদন্ত শুরু করে। গত ১১ জুন র‌্যাব-১১ এর একটি বিশেষ দল শিবপুর থানার কলেজগেট এলাকা থেকে হত্যা ও ধর্ষণকারী সাইফুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সাইফুল ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন। সাইফুলের দেখানো মতে, তার বাড়ির বাথরুম থেকে ভিকটিম সাবিনার মোবাইলফোন এবং সাবিনার ব্যবহৃত ভ্যানিটি ব্যাগটি প্রসাধন সামগ্রীসহ সাবিনার বাড়ির পাশের একটি নর্দমা থেকে উদ্ধার করা হয়।’



রাইজিংবিডি/নরসিংদী/১২ জুন ২০১৯/গাজী হানিফ মাহমুদ/সাইফুল

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন