ঢাকা, রবিবার, ১২ মাঘ ১৪২৬, ২৬ জানুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্রের পরিচালক হলেন মিনার মনসুর

তাপস রায় : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৫-০৭ ৫:৩১:১৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৫-০৮ ২:৪৭:১০ পিএম

তাপস রায়​ : জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্রের পরিচালক হলেন কবি, প্রাবন্ধিক ও সাংবাদিক মিনার মনসুর। সোমবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব দিলসাদ বেগম স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, মিনার মনসুরকে অন্যান্য প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের সাথে সম্পর্ক পরিত্যাগের পর যোগদানের তারিখ থেকে পরবর্তী দুই বছরের জন্য জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্রের পরিচালক পদে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দেয়া হলো।

কবি হিসেবে অধিক সমাদৃত মিনার মনসুর কবিতায় নিজস্ব ভাষা সৃষ্টি করে গড়ে তুলেছেন স্বীয় সত্তা। তার কবিতাগুলোয় রয়েছে প্রেম ও দ্রোহের সম্মীলন। প্রবন্ধে তিনি দেশীয় ঐতিহ্যনির্ভর বাংলাদেশ ও বাঙালি জাতিসত্তার প্রতিনিধিত্বশীল কণ্ঠস্বর। সত্তর পরবর্তী রাজনীতি-সচেতন, নিভৃতচারী কবি হিসেবে খ্যাত গুণী এই সাহিত্যিক নিজেকে শুধুমাত্র কবি পরিচয়ে আটকে রাখেননি, সাহিত্যের প্রতিটা শাখায় বিচরণ করেছেন আপন প্রতিভায়।

মিনার মনসুর সম্পাদক, প্রকাশক ও সংগঠক হিসেবেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন পঁচাত্তর-পরবর্তীকালে। চরম প্রতিকূলতার মধ্যে ১৯৭৯ সালে প্রকাশ করেছেন ‘শেখ মুজিব একটি লাল গোলাপ’ নামে মাইলফলক গ্রন্থ। পঁচাত্তরের নজিরবিহীন নৃশংসতার পর বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে এটিই ছিল গ্রন্থাকারে প্রকাশিত প্রথম স্মারক সংকলন। অবশ্য এর আগেই বঙ্গবন্ধুর তৃতীয় শাহাদাতবার্ষিকী উপলক্ষে ১৯৭৮ সালের ১৫ আগস্ট তার সম্পাদনায় প্রকাশিত হয় ‘এপিটাফ’-এর একটি বিশেষ সংখ্যা। বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রতিবাদে ‘আবার যুদ্ধে যাবো’ শিরোনামে একটি বিশেষ বুলেটিন প্রকাশ করেছেন ১৯৮০ সালে। এতে পঁচাত্তরের ঘৃণ্য হত্যাকাণ্ড বিষয়ে দেশের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গের ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া তুলে ধরা হয়েছে।

মিনার মনসুরের জন্ম ২০ জুলাই ১৯৬০ সালে, চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলার বরলিয়া গ্রামে। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় বাংলা বিভাগ থেকে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে স্নাতকোত্তর। তিনি এর আগে ইত্তেফাকে কর্মরত ছিলেন সম্পাদকীয় বিভাগের প্রধান হিসেবে। তার একাধিক কাব্যগ্রন্থ, জীবনীগ্রন্থ, গবেষণামূলক প্রবন্ধগ্রন্থ এবং সম্পাদিত গ্রন্থ রয়েছে।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/৭ মে ২০১৯/তারা