ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০২ জুন ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

দখলমুক্ত হবে শুভাঢ্যাখাল

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১২-১৫ ৫:৩২:১৩ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১২-১৫ ৫:৩২:১৩ পিএম

অবৈধ দখলদারদের হাত থেকে শুভাঢ্যাখাল ও খালের পাড় সুরক্ষা করার পরিকল্পনা করেছে সরকার। শুধু দখলদার ও পাড়ের সুরক্ষা নয়, সাথে খাল খনন এবং উন্নয়ন ও সংরক্ষণের জন্য প্রয়োজনীয় অবকাঠামোও নির্মাণ করা হবে।

এ লক্ষে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে প্রস্তাবিত ‘ঢাকা জেলার কেরানীগঞ্জে শুভাঢ্যাখাল পুনর্খনন এবং খালের উভয়পাড়ের উন্নয়ন ও সংরক্ষণ’ শীর্ষক প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে।

প্রকল্পটির জন্য ব্যয় ধরা হয়েছে এক হাজার ২৯০ কোটি ৯৩ লাখ ৬৫ হাজার টাকা। যা পুরোটাই সরকারি অর্থায়নে ব্যয় করা হবে। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড। এর বাস্তবায়নকাল ধরা হয়েছে ২০১৯ সালের জুলাই মাস থেকে ২০২২ সালের জুন মাস পর্যন্ত (অর্থ বছরের নিয়মানুযায়ী)।

পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় সূত্র থেকে যানা গেছে, আগামী ১৯ ডিসেম্বর বেলা সাড়ে ১২ টায় পরিকল্পনা বিভাগে এ বিষয়ে প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটির (পিইসি) সভা হবে। পরিকল্পনা কমিশনের কৃষি, পানি সম্পদ ও পল্লী প্রতিষ্ঠান বিভাগের সদস্য মো. জাকির হোসেন আকন্দের সভাপতিত্বে সভায় প্রকল্পটির নানাদিক মূল্যায়ন করা হবে। সভায় প্রকল্পটির কোনো সংশোধন করতে হলে সেই পরামর্শ দিয়ে আবারো সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হতে পারে।

প্রস্তাবিত এই প্রকল্প সম্পর্কে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় থেকে জানা গেছে, এই প্রকল্পটির মাধ্যমে খালের অভ্যন্তরীণ নৌ-যোগাযোগ ব্যবস্থা পুনরায় চালু করা হবে এবং স্থানীয় জনগণের জন্য খালের পাড়ে বিনোদনমূলক সুযোগ সুবিধা সৃষ্টি করা হবে।

প্রকল্পটির মূল কার্যক্রম সম্পর্কে সূত্র আরো জানায়, খাল হতে গ্লাস অপসারণ (১৩ দশমিক ৮ কিলোমিটার) এর জন্য ব্যয় ধরা হয়েছে ২৩৪ কোটি ৬৮ লাখ টাকা। মাটির বাঁধ নির্মাণ করা হবে ২ দশমিক ৬ কিলোমিটার; যার জন্য ব্যয় ধরা হয়েছে ১৭ কোটি ৩১ লাখ টাকা। খালের পাড় সংরক্ষণ করা হবে ২ দশমিক শূন্য ৮ লাখ বর্গমিটার; যার জন্য ব্যয় ধরা হয়েছে ৩৪ কোটি ২২ লাখ টাকা। ভূমি অধিগ্রহণের জন্য ব্যয় ধরা হয়েছে ৩১৮ কোটি ৮৫ লাখ টাকা।

এছাড়া পায়ে চলার পথ নির্মাণ, পাঁচটি পয়ঃনিষ্কাশন পথ পরিবর্তনের স্ট্রাকচার নির্মাণ, ওয়াকওয়ে-সেতু লাইটিং ও বৈদ্যুতিক কাজ, ঘাট, মাঠ, হাট, ও সড়ক উন্নয়নসহ আরো নানা কাজ করা হবে।


ঢাকা/হাসিবুল/সনি