ঢাকা, শনিবার, ৬ আশ্বিন ১৪২৬, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

দুই যুগ পর ঈশ্বরদীর পদ্মায় জমজমাট নৌকাবাইচ

শাহীন রহমান : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৯-২৩ ১২:৪০:২০ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৯-২৩ ১২:৪০:২০ পিএম
দুই যুগ পর ঈশ্বরদীর পদ্মায় জমজমাট নৌকাবাইচ

পাবনা প্রতিনিধি: দীর্ঘ দুই যুগ পর ঈশ্বরদীর পদ্মা নদীতে অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো ‘গণ আনন্দ নৌকা বাইচ’। গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ দেখতে শনিবার পদ্মাপাড়ে ঢল নামে মানুষের।

ঈশ্বরদী, ভেড়ামাড়া, লালপুরসহ বিভিন্ন উপজেলা থেকে নানা বয়সী কয়েক হাজার দর্শনার্থীর সমাগম ঘটে নৌকা বাইচের এ মনোমুগ্ধকর প্রতিযোগিতা উপভোগে।

এই প্রতিযোগিতায় ঈশ্বরদী উপজেলার লক্ষ্মীকুন্ডা ইউনিয়নের সোনার বাংলা, সোনার তরী, মায়ের দোয়া পঙ্খীরাজ, ময়ুরপঙ্খী, বঙ্গবন্ধু এক্সপ্রেস ফাইটার, দাদাপুর একাদশ ও আল্লার দান বাইচ দল অংশগ্রহণ করে। দুই কিলোমিটার দীর্ঘ নদীপথে এ প্রতিযোগিতায় তিনটি রাউন্ডে এই প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলার লক্ষ্মীকুন্ডা ইউনিয়নের তুফানের ঘাট থেকে শুরু হয়ে কাচারিবাড়ির সামনে এসে বাইচ শেষ হয়।



নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতায় লক্ষ্মীকুন্ডার চরকুড়লিয়া গ্রামের ইউনুছ আলীর ‘বঙ্গবন্ধু এক্সপ্রেস ফাইটার’ প্রথম স্থান অধিকার করে ৫৫ ইঞ্চি এলইডি টেলিভিশন, দাদাপুর গ্রামের আব্দুল হামিদ মাঝির ‘সোনার তরী’ দ্বিতীয় স্থান অধিকার করে একটি ‘ফ্রিজ’ এবং দাদাপুর গ্রামের নান্টু মাঝির ‘সোনার বাংলা’ তৃতীয় স্থান অধিকার করে ৩২ ইঞ্চি এলইডি টেলিভিশন পুরস্কার পেয়েছে।

এছাড়াও প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী ৮টি নৌকা দলের প্রত্যেককে সম্মানী পুরস্কার হিসেবে ১০ হাজার টাকা করে প্রদান করা হয়েছে। প্রতিযোগিতার আয়োজন করে লক্ষ্মীকুন্ডা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ।

প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ ডিলু। উদ্বোধনকালে তিনি বলেন, ‘আগে নবাব বাদশারা নৌকা বাইচের আয়োজন করতেন। নবাব বাদশাদের নৌ বাহিনী দিয়ে নৌকা বাইচ উৎসবের গোড়া পত্তন হয়। বাংলার বারো ভূইয়ারা নৌবলে বলীয়ান হয়ে মোঘলদের বিরুদ্ধে লড়াই করেছিলেন। জলদস্যুদের দমন করতে নৌ শক্তি ব্যবহৃত হতো।’

তিনি বলেন,  নৌকা বঙ্গবন্ধুর প্রতীক, নৌকা উন্নয়নের প্রতীক, নৌকা ঐতিহ্যের প্রতীক।



লক্ষীকুন্ডা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক লক্ষীকুন্ডা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনিসুর রহমান শরীফের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, পাবনা অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) শাহেদ পারভেজ, ঈশ্বরদী উপজেলা চেয়ারম্যান মকলেছুর রহমান মিন্টু, উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আল মামুন, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) জোবায়ের হোসেন।

অন্যান্যের মধ্যে উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নায়েব আলী বিশ্বাস, আমেরিকা প্রবাসী সরকারের সাবেক অতিরিক্ত সচিব সাব্বির আহমেদ, পাবনা জেলা আওয়ামীলীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক মাহ্জেবিন শিরিন পিয়া, পাকশী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এনামুল হক বিশ্বাস, সলিমপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ বাবলু মালিথা, দাশুড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম বকুল সরদার ও ভাইস চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান রিপন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহমুদা বেগম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।




রাইজিংবিডি/পাবনা/২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮/শাহীন রহমান/টিপু

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন