ঢাকা, শুক্রবার, ৫ আশ্বিন ১৪২৬, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

ধর্ষণ ও নির্যাতনে ২৭১ শিশু নিহত

নাসির উদ্দিন : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৪-২৮ ৫:৪২:০৮ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৪-২৮ ৮:০১:১৫ পিএম
ধর্ষণ ও নির্যাতনে ২৭১ শিশু নিহত

নিজস্ব প্রতিবেদক : ২০১৮ সালে ধর্ষণ, যৌন নির্যাতন, হত্যা ও শারীরিক নির্যাতনে সারা দেশে অন্তত ২৭১ জন শিশু নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন।

এছাড়া, ধর্ষণ, হত্যা ও অপহরণের চেষ্টা এবং নির্যাতনের ফলে আরো কমপক্ষে ১ হাজার ৬ জন শিশু আক্রান্ত হয়েছে। এর মধ্যে শুধু শিক্ষকদের দ্বারা নির্যাতিত হয়েছে ১২৯ জন শিশু। এর বাইরে সড়ক দুর্ঘটনা, আত্মহত্যা, অপহরণ এবং নিখোঁজ হয়েও ব্যাপক সংখ্যক শিশুমৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

রোববার জাতীয় প্রেসক্লাবে তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে ‘বাংলাদেশ শিশু পরিস্থিতি ২০১৮’ শীর্ষক সংবাদ বিশ্লেষণ অনুষ্ঠানে দেশের ছয়টি শীর্ষ সংবাদপত্রে প্রকাশিত ৩৯৮টি প্রতিবেদন থেকে সংগৃহিত তথ্যের ভিত্তিতে এ তথ্য প্রকাশ করে মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন।

সংবাদ বিশ্লেষণে সংস্থাটির নির্বাহী পরিচালক শাহিন আনাম বলেন, ২০১৮ সালে সারা দেশে ৪৩৩ জন শিশু ধর্ষণসহ যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছে। এর মধ্যে শুধু ধর্ষণের শিকার হয়েছে ৩৫৬ জন। ধর্ষিতা হয়ে মারা গেছে ২২ জন শিশু এবং যৌন নির্যাতনের ফলে মারা গেছে একজন। এছাড়া, ধর্ষণের চেষ্টা চালানো হয়েছিল ৫৩ জন শিশুর ওপর।

তিনি বলেন, সবচেয়ে উদ্বেগজনক ব্যাপার হচ্ছে- এরমধ্যে শুধুমাত্র শিক্ষকদের দারা ১২৯ জন শিশু নানাভাবে নির্যাতিত হয়েছে। শিক্ষকদের দ্বারা শারীরিকভাবে নির্যাতিত হয়েছে ৭০ জন এবং শিশু যৌন হয়রানির শিকার হয়েছে ৩৩ জন। এছাড়া, ২০১৮ সালে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক শিশু অর্থাৎ ৪১৪ জন শিশু সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছে, আহত হয়েছে ১৩৩ জন। ২০১৭ সালে শিশু নিহতের সংখ্যা ছিল ৩৭৫।

এদিকে, ২০১৮ সালে আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে ১৯৭টি। এর মধ্যে মারা গেছে ১৫২ জন শিশু, বাকি ৪৫ জন শিশু আত্মহত্যার চেষ্টা চালিয়ে আহত হয়েছে। আত্মহত্যার কারণ হিসেবে রয়েছে পরীক্ষার ফল খারাপ, পরিবারের ওপর রাগ, প্রেম, উত্ত্যক্তের শিকার, ধর্ষণ, বাল্যবিয়ে, শিক্ষকের বকা এবং হতাশা। ১৩ থেকে ১৮ বছর বয়সের শিশুরাই বেশি আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন এই সময়ে।

সংবাদ বিশ্লেষণে মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের প্রোগ্রাম কো-অডিনেটর রাফিজা শাহিন, মিডিয়া কমিউনিকেশন কো-অর্ডিনেটর শাহানা হুদা রঞ্জনা, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক শাহনাজ হুদা এবং মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি রনি চাকমা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/২৮ এপ্রিল ২০১৯/নাসির/রফিক

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন