ঢাকা, শনিবার, ৩ কার্তিক ১৪২৬, ১৯ অক্টোবর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

নিবিড় ছায়াঘেঁরা এক চা বাগান

মামুন চৌধুরী : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৭-০৬-২৮ ৪:৫৭:৩৩ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৬-২৮ ৪:৫৭:৩৩ পিএম

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি : নাম আমতলী চা বাগান। এটি হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলার ভাদেশ্বর ইউনিয়নের পাহাড়ি এলাকার প্রায় ৬০০ একর জমিতে অবস্থিত। এ বাগানটির এক পাশে রশিদপুর চা বাগান ও অপরদিকে সাতগাঁও চা বাগান।

সার্বক্ষণিক পরিচর্যায় সাজানো রয়েছে আমতলী চা বাগানটি। টিলা আর ঢালু জমিতে চা গাছ লাগানো রয়েছে। মাঝে মাঝে জঙ্গল। চা গাছের পাশাপাশি  রাবার গাছ লাগিয়ে রাবার উৎপাদন করা হচ্ছে। রয়েছে নানা প্রজাতির ফলের গাছ। দৃষ্টিনন্দন কয়েকটি বাংলো। নির্মাণ করা হয়েছে একটি মসজিদ।

শায়েস্তাগঞ্জ-মৌলভীবাজার সড়কে যাতায়াতকালে লোকজন এ বাগানটির সবুজ রূপ অবলোকন করছেন। অনেকে কিছু সময় গাড়ি থামিয়ে বাগানটি দেখে যাচ্ছেন। বাগানের তাজা চা পাতার স্বাদ নিতে অনেকে পছন্দ করেন। এ দিক লক্ষ্য করে বাগানের গেটের কাছে, বাগান কর্তৃপক্ষ ‘সিলোটী’ নামে দোকান তৈরি করেছেন। এ দোকান থেকে যাতায়াতকারীরা বাগানের খাঁটি তাজা চা পাতা ক্রয় করছেন। ২০১১ সালের দিকে সরকারের অনুমতি নিয়ে চিত্রা হরিণ পালন শুরু করে চা বাগান কর্তৃপক্ষ।



জেলায় ছোট-বড় মিলিয়ে কমপক্ষে ৩৫টি চা-বাগানের মধ্যে আমতলী বাগান প্রথম চিত্রা হরিণ পালনের উদ্যোগ নিয়ে সফল হয়েছে। বাগানের জঙ্গলে রয়েছে বনমোরগ, বানর, সাপসহ নানা প্রজাতির প্রাণী। উন্নত মানের চা-পাতা উৎপাদন করে এ বাগানটি দেশে শীর্ষস্থান ধরে রেখেছে। এ বাগানের চা-পাতার মান ভালো। তাই ক্রেতাদের কাছে এ বাগানের চা-পাতা জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। বাগানের শ্রমিকরা পূর্ণ অধিকার ভোগ করতে পারছেন। বাগানের গেটের কাছে সবুজ ঘাসের মাঠে সপ্তাহে হাট বসে। শ্রমিকদের সবার বাড়িতে কম-বেশি কলা, আম, বাতাবি লেবু, কমলা, পেঁয়ারা, কাঁঠালসহ নানা ধরনের ফল ও সবজির গাছ লাগানো রয়েছে।

আলাপকালে বাগানের ম্যানেজার কাজী মাসুদুর রহমান বলেন, নিবিড়ভাবে বাগান পরিচর্যা করা হচ্ছে। এতে চা-গাছগুলো সাজানো রয়েছে। উৎপাদন হচ্ছে মানসম্মত চা-পাতা।



তিনি বলেন, চিত্রা হরিণ পালন করার জন্য বাগানের দুই বিঘা জমির চারিদিকে কাটা তারের বেড়া নির্মাণ করে শুরুতে একটি পুরুষ ও একটি মহিলা চিত্রা হরিণ অবমুক্ত করা হয়। সেটি পর পর বাচ্চা দিচ্ছে। হরিণের খাদ্যের জন্য এ জমিতে রয়েছে প্রাকৃতিক ঘাস, আমলকী, বহরা গাছ। এর সঙ্গে খাদ্য হিসেবে প্রতিদিন তাজা সবজি সরবরাহ করা হয়ে থাকে।



রাইজিংবিডি/হবিগঞ্জ/২৮ জুন ২০১৭/মো. মামুন চৌধুরী/বকুল

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন