ঢাকা, সোমবার, ১ আশ্বিন ১৪২৬, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে ডেঞ্জার জোনে চলছে ঝুঁকিপূর্ণ নৌযান

ফয়সল বিন ইসলাম নয়ন : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৭-০৪ ১:৩৭:৩২ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৭-০৪ ৪:১৯:১৮ পিএম
নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে ডেঞ্জার জোনে চলছে ঝুঁকিপূর্ণ নৌযান
Walton E-plaza

ভোলা প্রতিনিধি : ভোলা থেকে বিভিন্ন রুটে নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে মেঘনা নদীর ডেঞ্জার জোনে চলছে ঝুঁকিপূর্ণ নৌযান। প্রতিদিন এসব রুটে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে উত্তাল মেঘনা পাড়ি দিচ্ছেন হাজার মানুষ।

ঝুঁকিপূর্ণ পারাপারের কারণে নৌ দুর্ঘটনার আশঙ্কা থাকলেও স্থানীয় প্রশাসন অবৈধ নৌযান বন্ধ করতে পারছে না। যার ফলে নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করেই উত্তাল মেঘনা নদীতে যাত্রীরা পারাপার করছে ছোট ছোট ট্রলার ও লঞ্চে করে।

সরকারি নিয়ম অনুযায়ী মার্চ থেকে অক্টোবর পর্যান্ত আট মাস ভোলার মেঘনার ১৯০ কিলোমিটার এলাকাকে ডেঞ্জার জোন হিসেবে চিহ্নিত করা রয়েছে। সি সার্ভে ছাড়া সকল ধরনের অনিরাপদ নৌযান চলাচলে নিশেধাজ্ঞা জারি রয়েছে।
 


এই নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে ভোলা জেলার উপকূলের বিভিন্ন এলাকায় দিয়ে চলছে ফিটনেস ও অনুমোদনবিহীন ছোট ছোট লঞ্চ ও ইঞ্জিন চালিত ট্রলার। দু’একটি রুটে সি-ট্রাক কিংবা সমুদ্র পরিবহন অধিদপ্তরের ছাড়পত্র প্রাপ্ত লঞ্চ থাকলেও বেশিরভাগ রুটেই ফিটনেসবিহীন লঞ্চ আর ইঞ্জিন চালিত নৌকায় করে যাত্রীদের চলাচল করতে হচ্ছে।

বিশেষ করে ভোলার ইলিশা থেকে লক্ষ্মীপুরের মজু চৌধুরীর হাট, দৌলতখান-মির্জাকালু থেকে চর জহিরুদ্দিন ও লক্ষ্মীপুরের আলেকজ্যান্ডার-রামগতি, তজুমদ্দিন ও চরফ্যাশন থেকে মনপুরা এবং মুজীবনগর, কুকরি-মুকরি, ঢালচর, পটুয়াখালীর বাউফলসহ বিভিন্ন চরাঞ্চল ও উপদ্বীপগুলোতে চরম ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করছে এসব এলাকার কয়েক লাখ মানুষ।

যাত্রীরা জানান, ভোলার সঙ্গে দক্ষিণাঞ্চলের জেলাগুলোর যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম নৌপথ হওয়ায় প্রয়োজনের তাগিদে নদী পথেই যাতায়াত করতে হয় যাত্রীদের। কিন্তু বিকল্প ব্যবস্থায় প্রয়োজনীয় সংখ্যক নিরাপদ লঞ্চ ও সি ট্রাক নেই। তাই বাধ্য হয়ে যাত্রীরা ঝুঁকিপূর্ণ ট্রলার, ইঞ্জিন নৌকা, ফিটনেসবিহীন ছোট ছোট লঞ্চে মেঘনা নদীর জেঞ্জার জোন পারি দিচ্ছে।
 


এব্যাপারে ভোলার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক বলেন, ভোলায় নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে নদী পথে যে সমস্ত নৌযান চলে বিশেষ করে আমাদের এই মৌসুমে ডেঞ্জার জোনে যে নৌযানগুলোর ফিটনেস নেই, চলার উপযোগী নয় সেগুলো সরকারের পক্ষ থেকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

এই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ডেঞ্জার জোনে যারা চলাফেরা করছে তাদের বিরুদ্ধে আমরা মোবাইল কোর্ট করছি। এরপরও যারা চলাচল করছে তাদের বিরুদ্ধে আমরা ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

 

 

 

 

রাইজিংবিডি/ভোলা/৪ জুলাই ২০১৮/ফয়সল বিন ইসলাম নয়ন/ইভা 

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন
       
Marcel Fridge