ঢাকা, শুক্রবার, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ২৯ মে ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

নীলফামারীতে স্কুলছাত্রকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

ইয়াছিন মোহাম্মদ সিথুন : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৮-২৫ ১০:০৫:১২ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৮-২৫ ১০:০৫:১২ পিএম

নীলফামারী সংবাদদাতা : সাবেদ হোসেন নামের এক স্কুলছাত্রের মরদেহ পুকুর থেকে উদ্ধার করেছে নীলফামারীর ডিমলা থানা পুলিশ।

রোববার সকাল ১০টায় ডিমলা উপজেলার পচারহাট ব্যাঙ্গেরডাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন পুকুর থেকে ওই মরদেহ উদ্ধার করা হয়। তার শরীরে আঘাতের চিহ্ন আছে। সাবেদকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন তার পরিবারের সদস্যরা।

উল্লিখিত স্কুলের প্রথম শ্রেণির ছাত্র সাবেদ হোসেন ডিমলা সদর ইউনিয়নের পচারহাট গ্রামের আব্দুস সালামের ছেলে। তাকে পিটিয়ে হত্যার পর পুকুরে ফেলে দেয়া হয়েছে বলে ধারণা করছে পুলিশ।

জানা যায়, প্রাইভেট গাড়ির চালক আব্দুস সালাম স্ত্রী রুনা বেগম ও দশ বছরের মেয়ে শরিফা আক্তারকে নিয়ে ঢাকায় থাকেন। তাদের ৫ বছরের ছেলে সাবেদ হোসেন নানা হামিদুল ইসলামের বাড়িতে থেকে লেখাপড়া করত। গতকাল শনিবার সকালে সাবেদ স্কুলে যায়। দুপুর ১২টায় স্কুল ছুটির পর আর নানার বাড়িতে ফেরেনি সে। তাকে কোথাও খুঁজে না পেয়ে শিশুটির নানা হামিদুল মোবাইলে ঢাকায় বসবাসরত মেয়ে-জামাইকে বিষয়টি অবহিত করেন। খবর পেয়ে তারা গ্রামে আসেন।

রোববার সকালে পুকুরে শিশুটির মরদেহ ভাসতে দেখেন এলাকাবাসী। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যান সহকারী পুলিশ সুপার জয়ব্রত পাল, ডিমলা থানার ওসি মফিজ উদ্দিন শেখসহ পুলিশের একটি দল। এলাকাবাসীর সহযোগিতায় পুকুর থেকে শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। দুপুরে জেলা হাসপাতালের মর্গে লাশের ময়নাতদন্ত করা হয়।

সাবেদের বাবা আব্দুস সালাম বলেন, তার ছেলেকে এলাকার কেউ পিটিয়ে হত্যা করেছে। তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন আছে। ডান হাত ভেঙে দিয়েছে। হত্যার আগে যে শারীরিক নির্যাতন করা হয়েছে তা স্পষ্ট। আমি হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার ও ফাঁসি চাই।

ডিমলা থানার ওসি মফিজ উদ্দিন শেখ জানিযেছেন, শিশুটির বাবা হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। ঘটনা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।


রাইজিংবিডি/নীলফামারী/২৫ আগস্ট ২০১৯/সিথুন/রফিক

     
 

আরো খবর জানতে ক্লিক করুন : নীলফামারী, রংপুর বিভাগ