ঢাকা, সোমবার, ৪ ভাদ্র ১৪২৬, ১৯ আগস্ট ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

পরমাণু অস্ত্র : কার বিরুদ্ধে কী ভাবছে যুক্তরাষ্ট্র

রাসেল পারভেজ : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৮-০২-০৩ ৫:০৫:৩৩ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০২-০৭ ৮:৩৯:০১ এএম
পরমাণু অস্ত্র : কার বিরুদ্ধে কী ভাবছে যুক্তরাষ্ট্র
Walton E-plaza

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : পরমাণু অস্ত্রের বৈশ্বিক বিন্যাস পর্যালোচনা করে পরাশক্তির দেশগুলোর বিরুদ্ধে কড়া সতর্কতা উচ্চারণ করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

পরমাণু শক্তির সম্ভাব্য অপব্যবহার রোধে রাশিয়া, চীন ও উত্তর কোরিয়াসহ পরাশক্তির দেশগুলোর বিরুদ্ধে পরিস্থিতি পর্যালোচনার ভিত্তিতে স্পষ্ট বার্তা দেওয়া হয়েছে মার্কিন সামরিক সদর দপ্তর পেন্টাগনের এক সারমর্মধর্মী বিবৃতিতে।

বৃহৎ অর্থে রাশিয়ার পরমাণু সক্ষমতা মোকাবিলায় পরমাণু অস্ত্রভাণ্ডার আরো আধুনিকায়ন এবং অপেক্ষাকৃত ছোট পরমাণু বোমা তৈরির ওপর যুক্তরাষ্ট্র গুরুত্ব দিচ্ছে বলে বিবৃতিতে জানানো হয়েছে। পেন্টাগনের ধারণা, মস্কো মনে করছে যুক্তরাষ্ট্রের পরমাণু অস্ত্রগুলো এত বেশি বড় যে, সেগুলো ব্যবহারের অনুপযোগী ও রাশিয়ার পরমাণু অস্ত্র মোকাবিলায় কার্যকরী নয়। এই ধারণা মাথায় নিয়ে অপেক্ষাকৃত ছোট পরমাণু অস্ত্র বানাতে চাইছে যুক্তরাষ্ট্র।

চীনের পরমাণু সক্ষমতার কথা বিবেচনায় নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পর্যালোচনায় বলা হয়েছে, এশিয়ায় সীমিত পরিসরেও যাতে পরমাণু অস্ত্র ব্যবহার করতে না পারে, সেজন্য চীনকে সতর্ক করা হয়েছে। এশিয়ায় পরমাণু অস্ত্র ব্যবহার করে সুবিধা নিতে চাইলে বা সীমিত পর্যায়ে তাদের পরমাণু অস্ত্রের ব্যবহার গ্রহণযোগ্য হবে- এমনও যাতে চীন মনে না করে, সেভাবেই যুক্তরাষ্ট্রের অস্ত্রভাণ্ডার মজুত রয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্ষমতা গ্রহণের আগে যেভাবে হুংকার দিয়ে বলেছিলেন, ‘পরমাণু অস্ত্রভাণ্ডার সমৃদ্ধ করা হবে’, পেন্টাগনের বিবৃতিতে ঠিক তার প্রতিফলন নেই। ট্রাম্প বলেছিলেন, বিশ্ব যতদিন যুক্তরাষ্ট্রের পরমাণু অস্ত্র সম্পর্কে ঠিক বুঝতে না পারছে, ততদিন পরমাণু অস্ত্র সমৃদ্ধ করা হবে ও এর আওতা বাড়ানো হবে। কিন্তু মঙ্গলবার জাতির উদ্দেশে দেওয়া স্টেট অব দি ইউনিয়ন ভাষণে তিনি পরমাণু অস্ত্রের সম্প্রসারণ নিয়ে কোনো কথা বলেননি। শুধু বলেছেন, আগ্রাসন মোকাবিলায় পরমাণু অস্ত্র কাজ করবে।

শুক্রবার পেন্টাগনে ‘নিউক্লিয়ার পোসচার রিভিউ ২০১৮’ শীর্ষক পরমাণু পর্যালোচনা নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আন্ডার সেক্রেটারি টম শ্যানন বলেন, ‘রাষ্ট্রের বাইরে কোনো গোষ্ঠী বা সম্প্রদায়ের পরমাণু অস্ত্র পাওয়ার চেষ্টার বিষয়টি আমাদের ভাবনায় সবচেয়ে আগে আছে।’ তিনি আরো বলেন, ‘কোনো রাষ্ট্র বা গোষ্ঠী সন্ত্রাসীদের অস্ত্র দেওয়ায় সমর্থন করলে বা অস্ত্র দিলে যুক্তরাষ্ট্র তাদের জবাবদিহির মধ্যে আনবে।’ এর আগে যুক্তরাষ্ট্র আশঙ্কা প্রকাশ করেছিল, পাকিস্তানের কাছ থেকে সন্ত্রাসীদের হাতে পরমাণু অস্ত্র চলে যেতে পারে।

উত্তর কোরিয়ার পরমাণু হামলার হুমকির বিষয়ে পেন্টাগনের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘যুক্তরাষ্ট্র বা এর মিত্রদের ওপর পরমাণু হামলা চালালে দেশটির বর্তমান শাসন শেষ করে দেওয়া হবে।’

ইউরোপে রাশিয়ার সম্ভাব্য পরমাণু অস্ত্রের ব্যবহার বিবেচনায় নিয়ে দেশটিকে কড়া ভাষায় শাসিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এ ধরনের যেকোনো আগ্রাসন প্রতিরোধের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে পেন্টাগন।

তথ্যসূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া ও বিবিসি অনলাইন



রাইজিংবিডি/ঢাকা/৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮/রাসেল পারভেজ

Walton AC
ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন
       

Walton AC
Marcel Fridge