ঢাকা, সোমবার, ৪ ভাদ্র ১৪২৬, ১৯ আগস্ট ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

পেঁয়াজ আমদানি কম, বাজার চড়া

মুহাম্মদ নূরুজ্জামান : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৭-১৩ ৫:১৪:০৮ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৭-১৪ ২:২৫:৪৬ পিএম
পেঁয়াজ আমদানি কম, বাজার চড়া
Walton E-plaza

নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনা : বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলের পেঁয়াজের বাজার ভারত থেকে আমদানি ওপর নির্ভরশীল। ভারতে দাম বাড়ার কারণে আমদানিকারকরা নতুন করে পেঁয়াজ আমদানি করতে সাহস পাচ্ছেন না। খুলনার সোনাডাঙ্গাস্থ পাইকারি বাজার ও বড় বাজারের কদমতলায় বিদেশি পেঁয়াজ আমদানি ৬০ শতাংশ কমেছে।

এ মাসের প্রথম সপ্তাহের তুলনায় খুচরা বাজারে দেশি-বিদেশি পেঁয়াজের দাম বেড়েছে কেজিপ্রতি গড়ে ১৩ টাকা। শনিবার স্থানীয় বাজারগুলোতে দেশি পেঁয়াজ প্রতি কেজি ৪৫ টাকা দরে বিক্রি হয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, পেঁয়াজ ওঠার মৌসুমে গোপালগঞ্জ, যশোর ও কুষ্টিয়ায় বৃষ্টি হয়। আবাদকৃত পেঁয়াজের বড় অংশই নষ্ট হয়েছে। মৌসুমের শুরুতেই খুলনার আড়ৎগুলোতে দেশি পেঁয়াজের আমদানি কম।

খুলনার পাইকারি ব্যবসায়ী তাজ ট্রেডিংয়ের ম্যানেজার মহিউদ্দিন মঈন জানান, ভারত থেকে আমদানির ওপর দক্ষিণাঞ্চলের পেঁয়াজের বাজার নির্ভরশীল। সে দেশে মূল্য বেশি হওয়ায় খুলনার পাইকারি বাজারগুলোতে দাম বেড়েছে। লোকসান এড়াতে আমদানিকারকরা চাহিদা অনুযায়ী পেঁয়াজ আমদানি করছেন না। চাহিদার তুলনায় পেঁয়াজ আমদানি ৬০ শতাংশ কমেছে।

সোহেল ট্রেডিংয়ের মালিক তাজুল ইসলাম পাটোয়ারী জানান, পেঁয়াজের পাশাপাশি রসুনের মূল্যও বেড়েছে। এবারে দক্ষিণাঞ্চলে রসুনের চাষ কম হয়েছে। শনিবার পাইকারি বাজারে দেশি রসুন প্রতি কেজি ১০০ টাকা এবং চীন থেকে আমদানি করা রসুন ১৬০ টাকা দরে বিক্রি হয়।

নিউ মার্কেটের খুচরা ব্যবসায়ী রুস্তম আলী জানান, দেশি পেঁয়াজ ৪৫ টাকা এবং আমদানিকৃত পেঁয়াজ ৪০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এক সপ্তাহ আগে মূল্য কম ছিল। ক্রেতার চাহিদা ৫ কেজি থাকলেও কিনছেন ২ কেজি।

শেখপাড়ার খুচরা ব্যবসায়ী ওমর ফারুক জানান, জুলাইয়ের প্রথম সপ্তাহের তুলনায় দ্বিতীয় সপ্তাহে দেশি ও আমদানিকৃত পেঁয়াজ প্রতি কেজির মূল্য গড়ে ১৩ টাকা করে বেড়েছে। খুচরা বাজারগুলোতে আমদানিকৃত পেঁয়াজের মজুদ কমেছে।


রাইজিংবিডি/খুলনা/১৩ জুলাই ২০১৯/মুহাম্মদ নূরুজ্জামান/রফিক

Walton AC
ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন
       

Walton AC
Marcel Fridge