ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ চৈত্র ১৪২৬, ০৭ এপ্রিল ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

রিভেঞ্জ পর্নো ছড়ানোতে বাধা দেবে ফেসবুক

মোখলেছুর রহমান : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৭-০৪-০৬ ৩:৩৫:৪৩ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৪-০৬ ৩:৩৫:৪৩ পিএম
প্রতীকী ছবি

মোখলেছুর রহমান : বর্তমান সময়ে ইন্টারনেটে সবচেয়ে বড় ভোগান্তির বিষয় হচ্ছে, সাইবার ক্রাইম। যার বেশিরভাগই ঘটে থাকে ফেসবুকের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোতে।

আর যে সাইবার ক্রাইমটি সবচেয়ে বেশি ঘটে থাকে তা হলো ‘রিভেঞ্জ পর্নো’ ছড়ানো (কোনো কারণে প্রতিশোধ পরায়ণ হয়ে পর্নো ছড়িয়ে দেয়া)। যার বেশিরভাগ শিকার হয়ে থাকেন নারীরা।

তবে আশার কথা হচ্ছে, ‘রিভেঞ্জ পর্নো’ ছড়ানো ঠেকাতে নতুন পদক্ষেপ নিয়েছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

শীর্ষ এই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমটি এখন থেকে যেকোনো অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ছবি এবং ভিডিও পোস্ট বা শেয়ার বা রি-পোস্ট করতে বাধা প্রদান করবে, যদি তাদের কাছে প্রতীয়মান হয় যে সেগুলো কারো অনুমতি ছাড়া কেবলমাত্র প্রতিহিংসার কারণে ছড়ানোর চেষ্টা করা হচ্ছে।

এক্ষেত্রে ফেসবুক সঙ্গে সঙ্গে তাদের প্ল্যাটফর্ম থেকে ওই পোস্টগুলো সরিয়েও ফেলবে।

ফেসবুকের অন্যান্য পরিষেবা যেমন ম্যাসেঞ্জার, ইনস্টাগ্রাম-এর ক্ষেত্রেও একই নিয়ম প্রযোজ্য হবে। কিন্তু হোয়াটসঅ্যাপের ক্ষেত্রে এই নিয়ম প্রযোজ্য হবে না।

‘রিভেঞ্জ পর্নো’ এর বিরুদ্ধে আন্দোলনকারীরা ফেসবুকের নতুন এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন।

তবে এ ধরনের রিভেঞ্জ পর্নো বিষয়ক পোস্ট ফেসবুক খুঁজে বের করবে না। এক্ষেত্রে ফেসবুক তাদের রিপোর্ট টুলটি মূলায়ন করবে। ফেসবুকের প্রতিটি পোস্টেই অপশন হিসেবে একটি রিপোর্ট টুল থাকে। রিপোর্ট টুলটির মাধ্যমে যে কেউ যেকোনো পোস্ট সম্পর্কে প্রতিক্রিয়া জানাতে পারে।

কোনো পোস্ট সম্পর্কে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া পেলে ফেসবুকের ‘কমিউনিটি অপারেশন’ দল তার যথার্থতা যাচাই করে দেখবে। আর তখন যদি তাদের কাছে এটি প্রতিয়মান হয় যে, ওই পোস্ট বা ছবিটি প্রতিহিংসা বশত আপলোড করা হয়েছে তাহলে ফেসবুক তা তৎক্ষণাৎ সরিয়ে ফেলবে। এছাড়াও যার অ্যাকাউন্ট থেকে এ ধরনের পোস্ট বা ছবি আপলোড করা হবে সে অ্যাকাউন্টি ব্লক বা বন্ধ করে দেওয়া হবে।

এরপর ফটো-চিহ্নিতকরণ সফটওয়্যারের মাধ্যমে পুনরায় ওই সব ছবি বা ভিডিও আপলোড করার চেষ্টা করা হচ্ছে কিনা, তা পর্যেবক্ষণে রাখা হবে।

এর আগেও অবশ্য শিশু নির্যাতন প্রতিরোধে এমন ব্যবস্থা নিয়েছিল ফেসবুক।

ফেসবুকের নিরাপত্তা বিষয়ক প্রধান অ্যানটিগোন ডেভিস বিবিসিকে বলেন, ‘এটি আমাদের প্রথম পদক্ষেপ এবং যদি আমরা ওই বিষয়বস্তুগুলোর প্রাথমিক শেয়ার করা প্রতিরোধ করতে পারি তবে আমরা প্রযুক্তিটি আরো বিস্তৃত করার চেষ্টা করব। ভবিষ্যতে হোয়াটসঅ্যাপেও আমরা এই প্রযুক্তি ব্যবহার করবো।’

তথ্যসূত্র : বিবিসি



রাইজিংবিডি/ঢাকা/৬ এপ্রিল ২০১৭/ফিরোজ