ঢাকা, শুক্রবার, ৫ আশ্বিন ১৪২৬, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

‘লাকড়ি তোড়া’ উৎসবে ভক্তদের উচ্ছ্বাস

আব্দুল্লাহ আল নোমান : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৬-৩০ ৭:২২:৪৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৬-৩০ ৭:২২:৪৫ পিএম
‘লাকড়ি তোড়া’ উৎসবে ভক্তদের উচ্ছ্বাস

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিলেট : ছোট-বড়, নারী-পুরুষ সকলেরই মাথায় বাঁধা রয়েছে লাল ফিতা। কারও হাতে লাল রঙের ঝান্ডা, আবার কারও হাতে গাছ কাটার জন্য ব্যবহৃত ধারালো অস্ত্র। তাদের কেউ এসেছেন খোলা ট্রাকে করে; আবার কেউ বাদ্যযন্ত্রের তালে তালে খণ্ড খণ্ড মিছিল নিয়ে। তবে, সবারই গন্তব্য ছিল এক।

সিলেটে হযরত শাহজালাল (রহ.) মাজার প্রাঙ্গণ এলাকায় রোববার সকাল থেকে এমন দৃশ্য ছিল। শাহজালাল (রহ.)-এর বার্ষিক ওরশ উপলক্ষে ‘লাকড়ি তোড়া’ উৎসবে অংশ নিতে এসে এভাবেই উচ্ছ্বাসে মেতে ওঠেন তার ভক্তরা। ভক্তদের ঢল নামার কারণে মাজার প্রাঙ্গণ ছাড়িয়ে প্রধান সড়কেও ভিড় লেগেছিল। এ উৎসব প্রায় সাত শত বছরের পুরনো বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

প্রতি বছরের শাওয়াল মাসের ২৬ তারিখে এই উৎসব হয়। এ জন্য দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে ভক্তরা এসে ভিড় জমান দরগাহে। জোহরের নামাজের পর ‘নাকারা’ (বিশেষ বাদ্যযন্ত্র) বাজানোর সঙ্গে সঙ্গে ‘লালে লাল-বাবা শাহজালাল’ স্লোগানে শুরু হয় পদযাত্রা।

দরগাহ থেকে ভক্তরা পদযাত্রা করে লাকড়ী সংগ্রহ করতে লাক্কাতুরা চা বাগানে যান। সেখান থেকে লাকড়ী সংগ্রহ করে ভক্তরা আবার দরগাহ প্রাঙ্গণে ফিরে আসেন। আর এ দিন থেকে বার্ষিক ওরশ শরীফ তথা হজরত শাহজালাল (রহ.)-এর ওফাত দিবস পালনের প্রস্তুতি শুরু হয়।

দরগাহ কমিটি সূত্র জানায়, প্রতি বছর শাওয়াল মাসের ২৬ তারিখ ঐতিহ্যবাহী এই উৎসব হয়। প্রায় ৭০০ বছর ধরে প্রচলিত লৌকিক প্রথা হিসেবে এই উৎসব পালন করেন শাহজালালের ভক্তরা। দরগাহের বার্ষিক ওরশের তিন সপ্তাহ পূর্বে লাকড়ি সংগ্রহের মাধ্যমে এর আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়। অনেকে এ দিনকে সিলেটে ইসলামের বিজয় দিবস হিসেবে পালন করেন।

ঐতিহ্যবাহী ‘লাকড়ি তোড়া’ উৎসবে সিলেট অঞ্চলসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা কয়েক হাজার নারী ও পুরুষ এতে অংশ নেন।

 

রাইজিংবিডি/সিলেট/৩০ জুন ২০১৯/আব্দুল্লাহ আল নোমান/বকুল

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন