ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

শিক্ষাক্ষেত্রে অস্থিরতার বছর, ছিল নানা উদ্যোগও

আবু বকর ইয়ামিন : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১২-১৭ ৫:২২:৩৬ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১২-১৮ ৪:০৯:১৮ পিএম

সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে অস্থিরতা, নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তি নিয়ে বিতর্ক, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে কাজকর্মে স্থবিরতা, বিভিন্ন প্রকল্পে দুর্নীতিসহ নানা অনিয়ম-অভিযোগের মধ্যে দিয়ে ঘটনাবহুল বছর পার করতে চলেছে শিক্ষা খাত।

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের গ্রেড উন্নীতকরণ নিয়ে দীর্ঘ দিনের অসন্তোষ এ বছর আরো আরো বেড়েছে। সরকারি বেতন বৃদ্ধির প্রস্তাবে অসন্তুষ্ট শিক্ষকরা। তবে ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে প্রাথমিক শিক্ষায় বেশকিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে। সরকারের পক্ষ থেকে বেশকিছু সন্তোষজনক উদ্যোগ নেয়া হলেও নানা অনিয়ম-অসঙ্গতিতে তা ম্লান হয়েছে।

বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) : বছরের অন্যতম আলোচিত ইস্যু ছিল বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) অস্থিরতা। গত ৬ অক্টোবর বুয়েটের শেরেবাংলা হলে আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যা করেন ছাত্রলীগের কিছু নেতাকর্মী। এরপর থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে বিভিন্ন দাবিতে আন্দোলন শুরু করেন শিক্ষার্থীরা। দেশ-বিদেশের গণমাধ্যমে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয় বুয়েট ও আবরার।

শিক্ষার্থীদের দাবির মুখে ক্যাম্পাসে নিষিদ্ধ হয় ছাত্র-শিক্ষক রাজনীতি। বহিষ্কার করা হয় আবরার হত্যায় জড়িত ২৬ শিক্ষার্থীকে। র‌্যাগিংয়ের দায়ের বহিষ্কারসহ বিভিন্ন মেয়াদে শাস্তি পান ৩০ জন। ভবিষ্যতে যাতে বুয়েটের কেউ কোনো রাজনীতিতে জড়াতে না পারেন, সে ব্যাপারে বিধিমালা জারি করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।  সকল দাবি আদায় শেষে দীর্ঘ ২ মাস ১২ দিন বন্ধ থাকার পর ২৮ ডিসেম্বর টার্ম ফাইনালে বসার সিদ্ধান্ত নেন বুয়েটের শিক্ষার্থীরা।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় : বছর জুড়ে অন‌্যতম আলোচনার বিষয় ছিল জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়। দুর্নীতির অভিযোগ তুলে উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামকে অপসারণের দাবিতে আন্দোলন শুরু করেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের একাংশ। আরেক গ্রুপ ভিসির পক্ষে আন্দোলনে নামে। উভয় পক্ষ জড়ায় সংঘর্ষে। অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয় বিশ্ববিদ্যালয়। দীর্ঘ এক মাস বন্ধ থাকার পর ৫ ডিসেম্বর বিশ্ববিদ্যালয় খোলার সিদ্ধান্ত নেয় প্রশাসন।

বশেমুরবিপ্রবি আন্দোলন : ফেসবুকে স্ট‌্যাটাস দেয়াকে কেন্দ্র করে ১১ সেপ্টেম্বর গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ও ডেইলি সানের ক্যাম্পাস প্রতিনিধি ফাতেমা তুজ জিনিয়াকে এক সেমিস্টারের জন্য সাময়িক বহিষ্কার করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। পরে উপাচার্যের বিরুদ্ধে অনিয়ম, দুর্নীতি, নারী কেলেঙ্কারি, কথায় কথায় বহিষ্কারসহ নানা অভিযোগ এনে পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলন শুরু করেন শিক্ষার্থীরা। আন্দোলন ছড়িয়ে পড়ে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে। টানা আন্দোলনের মুখে পদ ছাড়তে বাধ্য হন উপাচার্য অধ‌্যাপক ড. খোন্দকার নাসির উদ্দিন।

ডাকসুর ভিপি নুর : অনেক জল্পনা-কল্পনা, ব‌্যালট বাক্স চুরি, সংঘাত-সংঘর্ষের পর ডাকসুর ভিপি নির্বাচিত হন নুরুল হক নুর। ১২ মার্চ রাত ৩টার দিকে এ ফল ঘোষণা হলেই আন্দোলনে নেমে পড়েন নুরের নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছাত্রলীগের তৎকালীন সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনের কর্মী-সমর্থকরা। দফায় দফায় সংঘর্ষ হয় নুর ও শোভনের সমর্থকদের মধ্যে। অবশেষে শোভন নুরের সঙ্গে বুক মেলান। দায়িত্ব নেন ভিপি নুর।  জিএস নির্বাচিত হন ছাত্রলীগের তৎকালীন সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। ভোটে নানা অনিয়ম-কারচুপির অভিযোগ এনে প্রার্থিতা প্রত্যাহার করেন বামজোটের নেতাকর্মীসহ অন্য প্রার্থীরা।

এমপিওভুক্তি ও বিতর্ক : দীর্ঘ ১০ বছরের মাথায় সারা দেশের ২ হাজার ৭৩০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে এমপিওভুক্ত করেছে সরকার। তবে নানা বিতর্কিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত হয়েছে বলে সমালোচনায় পড়ে সরকার। সর্বশেষ ২০১০ সালে এক হাজার ৬৪২টি প্রতিষ্ঠানকে এমপিওভুক্ত করা হয়েছিল।

দক্ষ প্রশাসকের অভাব : শিক্ষা প্রশাসনে দক্ষ প্রশাসকের অভাবে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা (মাউশি) অধিদপ্তরসহ অন্যান্য দপ্তরে কাজে সমন্বয়হীনতা দেখা যায়। বিশেষ করে, উচ্চ পর্যায়ের অনেক কর্মকর্তাই সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারেননি। এমনকি শিক্ষা খাতের একাধিক প্রকল্পের পরিচালকের অদক্ষতায় প্রকল্প বাস্তবায়নে নেমে আসে স্থবিরতা।

প্রাথমিকের শিক্ষকদের আন্দোলন : প্রধান শিক্ষকদের ১০ম গ্রেড ও সহকারী শিক্ষকদের ১১তম গ্রেড দেয়ার দাবিতে বছরের শুরু থেকে নানা কর্মসূচি দিয়ে আসছেন প্রাথমিক বিদ‌্যালয়ের শিক্ষকরা। সর্বশেষ ২৪ সেপ্টেম্বর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে জড়ো হলে পুলিশ তাদের তাড়িয়ে দায়। পরে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা বর্জন করেন শিক্ষকরা। সমস্যা সমাধানে একের পর এক সভা করে যাচ্ছেন শিক্ষকরা। বাড়ছে অসন্তোষ, মিলছে না সমাধান।

বেসরকারি স্কুলে ভর্তি নীতিমালায় পরিবর্তন : এবার বেসরকারি স্কুলের ভর্তিতে তিন বিষয়ে পরিবর্তন আনা হয়েছে। অনুমোদিত আসনের অতিরিক্ত ভর্তি না করতে বেসরকারি স্কুলে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের আগে মোট আসন সংখ্যা মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরে (মাউশি) পাঠাতে হবে। গলাকাটা টিউশন ফির লাগাম টেনে ধরতে সরকারের ঘোষিত নির্ধারিত ফির অতিরিক্ত আদায় যেন না করতে না পারে, সেজন্য উপজেলা, জেলা ও বিভাগীয় পর্যায়ে কমিটি গঠন। সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বদলির ক্ষেত্রে জেলা পর্যায়ের পরিবর্তে আন্তঃউপজেলা পর্যায়ে যুক্ত করা হয়েছে।

সরকারি হাইস্কুলে ভর্তিতে নতুন নিয়ম : সরকারি হাইস্কুলে ভর্তিতে এবার নতুন পদ্ধতির প্রশ্নপত্র করা হবে। সৃজনশীল বা রচনামূলক প্রশ্নের পরিবর্তে অল্প কথায় বা এক কথায় উত্তর দেয়ার মতো প্রশ্ন থাকবে। এবারও দ্বিতীয় থেকে অষ্টম শ্রেণিতে ভর্তি করা হবে সরাসরি লিখিত পরীক্ষার মাধ্যমে। এছাড়া, থাকবে শূন্য স্থান পূরণ, টেবিল/চার্ট, সমস্যা সমাধান/ধাঁধাঁ ইত্যাদি।

সাত কলেজের পৃথক সমাবর্তন : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের সমাবর্তনের পৃথক আয়োজন করা হয় ঢাকা কলেজ ও ইডেন মহিলা কলেজে। বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন চলাকালে ভিডিও প্রজেক্টরের মাধ্যমে তাদের যুক্ত করা হয়।

বেসরকারি স্কুলের শিক্ষকদের উচ্চতর গ্রেড : টাইম স্কেলের বদলে বেসরকারি স্কুল-কলেজ ও মাদরাসার শিক্ষকদের উচ্চতর গ্রেড দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়নে ৬৪ জেলায় রদবদল : প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়নে ৬৪ জেলার কর্মকর্তাদের রদবদল করেছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। ২০৩০ সালের মধ্যে টেকসই উন্নয়নের লক্ষ‌্যমাত্রা অর্জনের লক্ষ্যে এ সিদ্ধান্ত।

সমাপনী বাতিলে তৎপরতা : পঞ্চম শ্রেণির বোর্ড পরীক্ষা বাতিলের সিদ্ধান্তের ফাইল মন্ত্রণালয়ে চালাচালি হচ্ছে বলে জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী চাইলে এ পরীক্ষা তুলে দিয়ে প্রাথমিক শিক্ষাকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত করা হবে।

ঝড়ে পড়ার হার কমেছে ২৯ শতাংশ : শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি জানিয়েছেন, গত ১০ বছরে স্কুল শিক্ষার্থী ঝরে পড়ার হার ৪৭ শতাংশ থেকে ১৮ শতাংশে কমিয়ে আনা হয়েছে।

প্রাথমিক বিদ‌্যালয়ের সভাপতির যোগ‌্যতা নির্ধারণ : সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি হওয়ার জন্য ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা হবে স্নাতক। এ সংক্রান্ত নতুন নীতিমালা জারি করে প্রজ্ঞাপন দিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

বিদ‌্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে শিক্ষার্থীর মৃত্যু : গত ১ নভেম্বর বিকেলে রাজধানীর রেসিডেন্সিয়াল কলেজ ক্যাম্পাসে কিশোর আলোর একটি অনুষ্ঠান চলাকালে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে প্রতিষ্ঠানটির নবম শ্রেণির দিবা শাখার শিক্ষার্থী নাইমুল আবরার রাহাত মারা যায়। এ ঘটনায় আয়োজকদের অব্যবস্থাপনাকে দায়ী করে আন্দোলনে নামেন শিক্ষার্থীরা। পরে প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে তদন্ত ও বিচারের আশ্বাস দিলে শান্ত হন শিক্ষার্থীরা।

সমাপনীতে মাধ্যমিকের শিক্ষকদের দায়িত্ব পালন: প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) ও ইবতেদায়ি পরীক্ষায় প্রাথমিকের শিক্ষকদের পরিবর্তে মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও মাদরাসা শিক্ষকরা পরীক্ষার হলে দায়িত্ব পালন করেন। গ্রেডের দাবিতে শিক্ষকদের আন্দোলনে যাতে পরীক্ষায় কোনো ব্যাঘাত না ঘটে সে লক্ষ‌্যে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

তিন বিশ্ববিদ্যালয়ে নতুন ভিসি : অনেক জল্পনা-কল্পনার পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি হিসেবে স্থায়ী নিয়োগ পেয়েছেন ড. মো. আখতারুজ্জামান। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি হয়েছেন সাবেক প্রো-ভিসি অধ্যাপক ড. শিরীন আখতার। বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি হয়েছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজকর্ম বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. ছাদেকুল আরেফিন।

প্রশ্নফাঁসের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ সতর্কতা : এ বছর সবগুলো পাবলিক পরীক্ষায় প্রশ্নফাঁস রোধে সর্বোচ্চ সতর্কতা নিশ্চিত করা হয়েছে। গোয়েন্দা সংস্থা যথেষ্ট সতর্ক ছিল। এর ফলে এবার জেএসসি-জেডিসি, সমাপনী পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়নি।

অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ কুয়েট : দুই হলের ছাত্রদের মধ্যে সংঘর্ষের জেরে ২ নভেম্বর থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুয়েট) একাডেমিক কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করে কর্তৃপক্ষ।

নোবিপ্রবিতে ভিন্ন আয়োজন : নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) ২০১৯-২০২০ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি পরীক্ষা দিতে আসা শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের জন‌্য বিনামূল‌্যে থাকা, খাওয়া এবং যাতায়াতের ব‌্যবস্থা করা হয় স্থানীয়দের পক্ষ থেকে।

আহসানুল্লাহর ভিসির পদত্যাগ : উপাচার্যের (ভিসি) পদত্যাগসহ নয় দফা দাবিতে ২৯ অক্টোবর আন্দোলনে নামেন আহসানউল্লাহ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। আন্দোলনের মুখে পদত্যাগ করেন আহসানউল্লাহ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য (ভিসি) অধ্যাপক ড. কাজী শরিফুল আলম।

ঢাবিতে মেধার ভিত্তিতে সিট : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) গণরুম সমস্যার সমাধানে মেধার ভিত্তিতে সিট দেয়া হবে বলে জানিয়েছে প্রশাসন। তবে আশ্বাস দিলেও সেটি যথাযথ বাস্তবায়ন হচ্ছে না বলে দাবি শিক্ষার্থীদের।

১০৩১ শিক্ষকের চাকরি জাতীয়করণ : দেশের ২৯২টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ১ হাজার ৩১ জন শিক্ষকের চাকরি জাতীয়করণ করেছে সরকার। এসব বিদ্যালয় তৃতীয় ধাপে অধিগ্রহণকৃত।

মাধ্যমিক-উচ্চ মাধ্যমিকে টিউশন ফি মওকুফ : আগামী ২০২০ সাল থেকে ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের টিউশন ফি মওকুফের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। ধারাবাহিকভাবে এটি দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত করা হবে।

‘ওয়ান ডে, ওয়ান ওয়ার্ড’ কর্মসূচি : দেশের সব প্রাথমিক বিদ‌্যালয়ে প্রতিদিন একটি বাংলা ও একটি ইংরেজি নতুন শব্দ শেখানোর নির্দেশনা দিয়েছে সরকার। এজন্য প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ‘ওয়ান ডে, ওয়ান ওয়ার্ড’ কর্মসূচির বাস্তবায়ন অগ্রগতি ও মূল‌্যায়ন ছক প্রেরণ নিয়ে নির্দেশনা দিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

ভাড়া বাড়িতে কেন্দ্র নয় : আসন্ন ২০২০ সাল থেকে ভাড়া বাড়িতে মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) পরীক্ষার কেন্দ্র না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড। যেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নিজস্ব ক্যাম্পাস রয়েছে, শুধু সেসব প্রতিষ্ঠানকে কেন্দ্রের জন্য আবেদন করতে বলা হয়েছে।

গ্রেড পদ্ধতির পরিবর্তন হচ্ছে না : সব ধরনের পাবলিক পরীক্ষায় ফলাফলের ক্ষেত্রে পুরনো পদ্ধতি জিপিএ-৫ এর পরিবর্তে নির্ধারণ করা হয়েছিল জিপিএ-৪। একই গ্রেডিং পদ্ধতি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে জেএসসি পর্যন্ত বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সরকার। চলতি বছরের জেএসসি ও সমমানের পরীক্ষা থেকে পদ্ধতি সংস্কারের চিন্তা-ভাবনা করা হয়েছিল। প্রস্তুতি ও পরামর্শ কার্যক্রম শেষ না হওয়ায় তা হচ্ছে না। কবে হবে তা চূড়ান্ত হয়নি।

তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত পরীক্ষা বাতিল : প্রাথমিক স্তরের শিশু শিক্ষার্থীদের ওপর পরীক্ষার চাপ কমাতে ২০২১ সাল থেকে নতুন কারিকুলামে তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত গতানুগতিক পরীক্ষা বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

পরীক্ষার খাতা মূল্যায়ন পদ্ধতিতে পরিবর্তন : প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী ও ইবতেদায়ি পরীক্ষার খাতা মূল্যায়ন পদ্ধতি পরিবর্তন করা হয়েছে। চলতি বছর থেকে এক উপজেলার খাতা অন্য উপজেলায় মূল্যায়ন করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

সাত কলেজের সংকট : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সাত কলেজ নিয়ে বছর জুড়ে আলোচনা ছিল। বিশ্ববিদ্যালয়ের নানা অসঙ্গতি তুলে ধরে আন্দোলনে নামে সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা। অন্যদিকে, তাদেরকে অধিভুক্তি থেকে বাদ দেয়ার জন্য আন্দোলনে নামেন ঢাবির শিক্ষার্থীরা। টানা আন্দোলনে অচল হয়ে যায় ক্যাম্পাস। কিন্তু কোনো সমাধান ছাড়াই চলছে কার্যক্রম।

পরীক্ষার প্রশ্নপত্র স্ব স্ব বিদ্যালয়ে : সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বিভিন্ন শ্রেণির পরীক্ষার প্রশ্নপত্র স্ব স্ব বিদ্যালয়ে প্রণয়ন করতে হবে। শিক্ষকদের সৃজনশীল করতে এ নির্দেশ দিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

মিড ডে মিল : ২০২৩ সালের মধ্যে দেশের সব প্রাইমারি স্কুলে শিশুদের দুপুরের খাবার দেয়া হবে। দেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ‘মিড ডে মিল’ নিশ্চিত করতে উদ্যোগ নিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

বরাদ্দ বৃদ্ধি : আসন্ন ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে শিক্ষা উন্নয়ন খাতে ৬১ হজার ১১৮ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে। যা এ যাবতকালের মধ্যে সবচেয়ে বেশি। চলতি ২০১৮-১৯ অর্থবছরে শিক্ষা খাতে বাজেট বরাদ্দ আছে ৫৩ হজার ৬৪ কোটি টাকা।

পান-সিগারেট খেয়ে ক্লাসে যেতে পারবেন না শিক্ষক : এখন থেকে সারা দেশের মাধ্যমিক স্কুল ও কলেজের শিক্ষকরা সিগারেট, বিড়ি, জর্দা, গুল খেয়ে ক্লাসে যেতে পারবেন না। এ বিষয়ে পরিপত্র জারি করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি)

প্রাথমিকর নিয়োগ প্রক্রিয়ায় পরিবর্তন : সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগে পুরুষ ও নারী উভয়ের ক্ষেত্রেই শিক্ষাগত যোগ্যতা ‘স্নাতক’ নির্ধারণ করা হয়েছে। প্রধান শিক্ষক পদটি দ্বিতীয় শ্রেণিতে উন্নীত হওয়ায় সরকারি কর্মকমিশনের (পিএসসি) নীতিমালার সঙ্গে সঙ্গতি রেখে বয়স নির্ধারণ করা হয়েছে। মোট প্রার্থীর ২০ শতাংশ বিজ্ঞান বিষয়ে স্নাতক ডিগ্রিধারীদের মধ্য থেকে নেয়া হবে। উপজেলাভিত্তিক আর্ট ও সংগীত শিক্ষক নিয়োগ করা হবে। কেন্দ্রীয়ভাবে গঠিত সহকারী শিক্ষক নির্বাচন কমিটির সুপারিশ ছাড়া কোনো ব্যক্তিকে সহকারী শিক্ষক পদে সরাসরি নিয়োগ দেয়া যাবে না।

প্রাথমিকে বায়োমেট্রিক হাজিরা : সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকদের উপস্থিতি নিশ্চিত করতে বায়োমেট্রিক হাজিরা মেশিন বসিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ‌্যম বিষয়ে সতর্কতা : সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে সরকারের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে অপপ্রচার ও বিভ্রান্তিমূলক স্ট্যাটাস না দিতে এবং এই ধরনের স্ট্যাটাসে মন্তব্য, শেয়ার বা লাইক না দিতে প্রাথমিক স্তরের সব শিক্ষক-কর্মকর্তাকে নির্দেশ দিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।


ঢাকা/ইয়ামিন/রফিক

     
 
রাইজিংবিডি স্পেশাল ভিডিও