ঢাকা, শুক্রবার, ২ কার্তিক ১৪২৬, ১৮ অক্টোবর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

আলোচনা করেই দুই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে জাপা

মোহাম্মদ নঈমুদ্দীন : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৮-১৭ ৭:০৯:১৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৮-১৭ ৮:৩৩:১৯ পিএম

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : জাতীয় পা‌র্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের বলেছেন, বিরোধীদলের নেতা কে হবেন সে বিষয়ে দলের সবার সাথে আলাপ-আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। যাতে পার্টিতে কোনো বিভেদ সৃষ্টি না হয়।

শনিবার ১৭ আগস্ট জাপার বনানী কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত দলের প্রে‌সি‌ডিয়াম ও এম‌পিদের যৌথসভায় তি‌নি একথা বলেন।

জিএম কাদের বলেন, রংপুরের উপনির্বাচনে তৃণমূ‌লের মতামত নিয়ে প্রার্থী তালিকা করা হবে। সেখান থেকে প্রার্থী চূড়ান্ত করা হবে।

জাতীয় পার্টি ঐক্যবদ্ধ আছে। জনগণের স্বা‌র্থে যে ধরণের কর্মসূচি নেয়া দরকার তা আমরা নিচ্ছি। ই‌তিম‌ধ্যে আমরা বন্যা মোকাবেলা, ডেঙ্গু প্রতিরোধ ও চামড়া ইস্যুতে রাজপথে সরব ছিলাম।

প্রে‌সি‌ডিয়াম সভা ও এম‌পিদের দীর্ঘ ৩ ঘন্টাব্যাপি বৈঠকে আগামী ৩১ আগস্ট সারাদেশে একযোগে এরশাদের জন্য দোয়া ও মিলাদ মাহফিল আয়োজনের সিদ্ধান্ত হয়। এরশাদের চেহলাম পালনের জন্য পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও এমপিদের এক লক্ষ টাকা করে পার্টির ফান্ডে জমা দেয়ার জন্য নির্দেশনা দেয়া হয় সভায়। এ‌তে সভাপ‌তিত্ব করেন দলের চেয়ারম্যান জিএম কাদের।

বিশ্বস্ত সুত্র থেকে জানা যায়, বৈঠকের শুরুতে পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য সাহিদুর রহমান টেপা পার্টির গঠনতন্ত্র মোতাবেক দলের চেয়ারম্যান জিএম কাদেরকে বিরোধীদলের নেতা হবার প্রস্তাব দেন। এরশাদের চেহলাম কেন্দ্রীয়ভাবে রংপুরে করার প্রস্তাবও তিনি দেন।

প্রয়াত এরশাদের আইনজীবী ও দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট শেখ মুহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম বলেন, দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী পার্টির চেয়ারম্যান যে কোনো বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। সেক্ষেত্রে চেয়ারম্যান চাইলে বিরোধীদলের নেতা হতে পারেন।

প্রেসিডিয়াম সদস্য হাজী সাইফুদ্দিন আহমেদ মিলন বলেন, জিএম কাদেরকে বিরোধীদলের নেতা বানানো উচিত। কারণ, তার সঙ্গে পার্টির তৃণমূলের সম্পর্ক রয়েছে। আর পার্টির চেয়ারম্যান বিরোধীদলের নেতা হবেন এটাই স্বাভাবিক।

জবাবে জিএম কাদের বলেন, বিরোধী দলের নেতা নির্বাচনের বিষয়‌টি আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেব।

বৈঠক শেষে সাংবা‌দিকদের সংক্ষিপ্ত ব্রিফ করেন পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা ।

তি‌নি বলেন, গঠনতন্ত্র মোতাবেক পার্টির চেয়ারম্যানকে সুপ্রিম পাওয়ার দেয়া আছে। আমাদের দলের মাঝে কোনো বিরোধ নেই। সবার সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে বিরোধীদলের নেতা নির্বাচন ও রংপুর-৩ আসনের মনোনয়ন দেয়া হবে।

বৈঠ‌কে পার্টির জেষ্ঠনেতা কাজী ফিরোজ রশীদ, আব্দুস সাত্তার, প্রফেসর মাসুদা রশীদ চৌধুরী এম‌পি, সালমা ইসলাম এম‌পি, সুনীল শুভরায়, সোলাইমান আলম শেঠ, ব্যা‌রিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়া‌রি এম‌পি, সাবেক সেনা কর্মমর্তা মাসুদ উ‌দ্দিন চৌধুরী এম‌পি, নাজমা আখতার এম‌পিসহ ৩৫জন প্রেসিডিয়াম সদস্য ও দলীয় এমপি উপস্থিত ছিলেন।

তবে দলের সি‌নিয়র কো-চেয়ারম্যান রওশন এরশাদ, জ্যেষ্ঠনেতা ব্যা‌রিষ্টার আ‌নিসুল ইসলাম মাহমুদ, সাবেক মহাস‌চিব এ‌বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার, প্রফেসর দেলোয়ার হোসেন খান, জিয়া উ‌দ্দিন আহেমেদ বাবলু, মীর আব্দুস সবুরসহ অনেক প্রে‌সি‌ডিয়াম সদস্য সভায় অনুপ‌স্থিত ছিলেন।

 

রাইজিং‌বি‌ডি/ঢাকা/১৭ আগস্ট ২০১৯/নঈমুদ্দীন/নবীন হোসেন

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন