ঢাকা, রবিবার, ৭ আশ্বিন ১৪২৬, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

সিলেট-ঢাকা বাস বন্ধ, ভোগান্তি

আব্দুল্লাহ আল নোমান : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৬-২৩ ৭:১৯:০৪ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৬-২৩ ১০:৪৫:৩৪ পিএম
সিলেট-ঢাকা বাস বন্ধ, ভোগান্তি

আব্দুল্লাহ আল নোমান, সিলেট : ব্যবসার কাজে সোমবার ঢাকায় যাবেন আফজল শরীফ। দূরপাল্লার বাস চলাচল করছে না, যে কারণে তিনি সিলেট রেলওয়ে স্টেশনে এসেছিলেন টিকিটের খোঁজে। স্টেশনের কাউন্টার থেকে তাকে জানানো হয়েছে, ঢাকাগামী কোনো ট্রেনেরই টিকিট নেই। এমনকি আগামী এক সপ্তাহ পর্যন্ত ট্রেনের টিকিট মিলবে না। 

শেষমেশ তিনি বাধ্য হয়ে বিমানে করে ঢাকা যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। তবে তাকে চড়া দামে বিমানের টিকিট সংগ্রহ করতে হয়েছে বলে এ প্রতিবেদককে জানালেন। তিনি বললেন, ঢাকায় যাওয়াটা তার খুব জরুরি। যে কারণে রেলের টিকিট না পেয়ে তিনি বিমানের টিকিট কেনেন। কিন্তু ইকোনমি সিট পাননি ফলে বাধ্য হয়ে তাকে বেশি টাকা খরচ করে বিজনেস ক্লাসের টিকিট কিনতে হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে শাহবাজপুরে তিতাস নদীর ওপর সেতু ভেঙে যাওয়ায় গত মঙ্গলবার রাত থেকে সিলেটের সঙ্গে ঢাকার সরাসরি সড়ক যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। এ জন্য পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত যানবাহনকে বিকল্প সড়ক হিসেবে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল-নাসিরনগর ও হবিগঞ্জের লাখাই-হবিগঞ্জ-শায়েস্তাগঞ্জ সড়ক দিয়ে চলাচল করতে নির্দেশনা দিয়েছে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়।

তবে বিকল্প এ পথ অপ্রশস্ত হওয়ায় তাতে দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। একই সঙ্গে চলতে পারছে না দূরপাল্লার বড় বাস। ফলে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত থেকে বেশিরভাগ দূরপাল্লার বাস সিলেট ছেড়ে যায়নি, একইভাবে সিলেটে প্রবেশও করেনি। আর যে কয়টি বাস ছেড়ে গেছে, তা ঢাকা পৌঁছাতে সময় লেগেছে প্রায় ১৫ থেকে ১৭ ঘণ্টা।

এ কারণে বিকল্প ব্যবস্থা হিসেবে রেলওয়ে স্টেশনে ভিড় করছেন যাত্রীসাধারণ। তবে সেখানেও মিলছে না টিকিট। ফলে বাধ্য হয়ে ঢাকা যাত্রা বাতিল করছেন অনেকে। আবার অতীব জরুরি হলে অনেকে ছুটছেন বিমানের টিকিটে খোঁজে। ফলে বিমানের বেশিরভাগ ফ্লাইটেরই ইকোনমি টিকিট শেষ হয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

রোববার দুপুরে সিলেট রেলওয়ে স্টেশনে গিয়ে দেখা যায়, সেখানে ভিড় করছেন ঢাকাগামী যাত্রীরা। কিন্তু টিকিট না পেয়ে হতাশ হয়ে ফিরছেন তারা। অনেককে আবার স্ট্যান্ডিং টিকিটের জন্য অপেক্ষাও করতে দেখা গেছে। এ ছাড়া বাস টার্মিনাল থেকে দূরপাল্লার বাস না ছাড়লেও কিছু লোকাল বাস ঢাকার উদ্দেশে যাত্রা করছে। তবে সেক্ষেত্রে তারা কিছুটা বেশি ভাড়া আদায় করছে বলে অভিযোগ করেছেন যাত্রীরা।

লোকাল বাসে করে ঢাকা থেকে সিলেট এসেছেন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী শরীফ আহমদ। বাস টার্মিনালে তার সঙ্গে দেখা হয়। তিনি জানালেন, প্রায় ১৫ ঘণ্টায় তিনি সিলেট এসে পৌঁছেছেন। বিকল্প পথটি ছোট হওয়ায় সেখানে যানজটে তাদের ৭ থেকে ৮ ঘণ্টা সময় অতিরিক্ত লেগেছে বলে জানান তিনি।

শ্যামলী পরিবহনের কদমতলী কাউন্টারের এক কর্মকর্তা জানান, শুক্রবার থেকে তাদের টিকিট বিক্রি বন্ধ রয়েছে। একইভাবে গ্রিনলাইন পরিবহনসহ অন্য বাসের কাউন্টার থেকেও টিকিট বিক্রি হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। সিলেটে এসব পরিবহনের বাস প্রবেশ করছে না বলে জানিয়েছেন তারা।

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন সিলেট বিভাগীয় কমিটির সভাপতি সেলিম আহমদ ফলিক জানালেন, শুরুর দিকে বিকল্প পথে কিছু বাস ঢাকার উদ্দেশে চলাচল করেছিল। তবে সেই পথ সরু হওয়াতে শনিবার দুপুর থেকে কোনো বাসই যাতায়ত করেনি। একই সঙ্গে সিলেটে কোনো বাস আসেনি। 

সড়ক ও জনপদ বিভাগ বলছে, সেতুটির ভেঙে যাওয়া অংশ মেরামত হতে অন্তত ১০ দিন সময় লাগবে। তবে বিকল্প হিসেবে তিতাস নদীতে ফেরি চালু করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে নারায়ণগঞ্জ থেকে একটি ফেরি তিতাসে আনা হচ্ছে। একই সঙ্গে নদীতে ফেরিঘাট এবং এপ্রোচ নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।



রাইজিংবিডি/সিলেট/২৩ জুন ২০১৯/আব্দুল্লাহ আল নোমান/বকুল

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন