ঢাকা, সোমবার, ৫ কার্তিক ১৪২৬, ২১ অক্টোবর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

২ শিক্ষার্থী নিহত : গ্রেপ্তার সংক্রান্ত প্রতিবেদন ১৫ অক্টোবর

মামুন খান : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৮-১০-০১ ৫:০০:৫১ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-১০-০১ ৫:০০:৫১ পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাসচাপায় রাজধানীর শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহতের মামলায় দুই আসামির বিরুদ্ধে গ্রেপ্তার সংক্রান্ত তামিল প্রতিবেদন দাখিলের তারিখ আগামী ১৫ অক্টোবর ধার্য করেছেন আদালত।

সোমবার এ মামলায় জাবালে নূর পরিবহনের বাসের মালিক মো. জাহাঙ্গীর আলম ও চালকের সহকারী মো. আসাদ কাজীর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তার সংক্রান্ত তামিল প্রতিবেদন দাখিলের দিন ধার্য ছিল। কিন্তু এদিন পুলিশ তা দাখিল করতে পারেনি। এজন্য ঢাকার অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম কায়সারুল ইসলাম প্রতিবেদন দাখিলের নতুন এ তারিখ ঠিক করেন।

এর আগে গত ১৩ সেপ্টেম্বর মামলাটিতে জাবালে নূর বাসের মালিক ও চালকসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট গ্রহণ করেন আদালত। দুজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়া তাদের অব্যাহতি দেওয়া হয়। ওই দুই আসামি পলাতক থাকায় তাদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়।

মামলার আসামিরা হলেন- জাবালে নূর পরিবহনের বাসের মালিক মো. শাহাদাত হোসেন আকন্দ, চালক মাসুম বিল্লাহ, সহকারী মো. এনায়েত হোসেন, চালক মো. জোবায়ের সুমন, বাসের মালিক মো. জাহাঙ্গীর আলম ও সহকারী মো. আসাদ কাজী।

আসামিদের মধ্যে শাহদাত হোসেন, মাসুম বিল্লাহ ও জোবায়ের সুমন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।

গত ৬ সেপ্টেম্বর ডিবি পুলিশ উত্তর ক্যান্টনমেন্ট জোনাল টিমের ইন্সপেক্টর কাজী শরীফুল ইসলাম ঢাকা সিএমএম আদালতে এ চার্জশিট দাখিল করেন। চার্জশিটটি বাংলাদেশ দণ্ডবিধির ২৭৯, ৩২৩, ৩২৫, ৩০৪ ও ৩৪ ধারায় দাখিল করা হয়েছে।

দাখিলকৃত চার্জশিটে ৪১ জনকে সাক্ষী করা হয়। ছয় প্রকার আলামত জব্দ দেখানো হয়। আলামতের মধ্যে রয়েছে তিনটি বাস এবং তিনটি ড্রাইভিং লাইসেন্স।

প্রসঙ্গত, গত ২৯ জুলাই দুপুরে কালশী ফ্লাইওভার থেকে নামার মুখে এমইএস বাসস্ট্যান্ডে ১৫/২০ জন শিক্ষার্থী দাঁড়িয়ে ছিলেন। জাবালে নূর পরিবহনের একটি বাস ফ্লাইওভার থেকে নামার সময় মুখেই দাঁড়িয়ে যায়। এ সময় পেছন থেকে আরেকটি দ্রুতগতিসম্পন্ন জাবালে নূরের বাস ওভারটেক করে সামনে আসতেই নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দাঁড়িয়ে থাকা শিক্ষার্থীদের ওপর উঠে যায়। চাকার নীচে পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান দুজন। আহত হন ১৫-২০ জন শিক্ষার্থী।

ওই ঘটনায় ২৯ জুলাই দিবাগত রাতে ক্যান্টনমেন্ট থানায় নিহতে মিমের বাবা জাহাঙ্গীর আলম এ মামলা দায়ের করেন।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১ অক্টোবর ২০১৮/মামুন খান/রফিক

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন