ঢাকা, শুক্রবার, ৮ ভাদ্র ১৪২৬, ২৩ আগস্ট ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

সিক্রেট ফরেস্টে দীর্ঘশ্বাস

সুমন্ত গুপ্ত : আমরা আছি মেঘালয় কন্যার আশ্রয়ে; ঘড়ির কাঁটায় তখন সকাল ছয়টা। বেশ ভালো ঠাণ্ডা লাগছে। শীত নিবারণের কাপড় গায়ে দেয়ার পরও ঠাণ্ডা যাচ্ছে না।

টোকিওর কাকড়া রেস্তোরাঁ || পর্ব-৮

চীনাদের আমার জাপানের খালাতো ভাই মনে হতো। অনেক কিছুতেই তাদের মিল। চীনাদের খাবারের সঙ্গেও দেখি মিল আছে জাপানিদের।

ঈদের ছুটিতে এক দিনের ট্যুর

‘জাহাজ যেমন ডাকে সেইভাবে ডাক দিও তুমি

তোমার ছাড়ার আগে একবার হর্নখানি দিও

নতুন আকর্ষণ পালেরমোড়া বা ‘সেলফি ব্রিজ’

মৌলভীবাজার সংবাদদাতা : পর্যটকদের নতুন আকর্ষণ এখন মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার 'পালেরমোড়া' সেতু। নামে পালেরমোড়া ব্রিজ হলেও এলাকাবাসীর কাছে তা ‘সেলফি ব্রিজ’ নামেই বেশি পরিচিত।

সোনা ফলা দ্বীপ- সন্দ্বীপ

|| উদয় হাকিম ||

নীল সমুদ্র। ছোট বড় ঢেউ। তার মাঝখানে এক শান্ত দ্বীপ। বিস্তীর্ণ সবুজে ছাওয়া। পাখ পাখালির কলকাকলিতে মুখর। সহজ সরল গ্রাম্য জীবন। ঘাসে মোড়ানো মেঠো পথ।

ইস্তাম্বুল: নীল জলে পা ডুবিয়ে যে নগর থাকে অপেক্ষায়

|| ফাতিমা জাহান ||

ইস্তাম্বুল, যে শহরকে না দেখে কল্পনা করা যায় হাজার বার, হাজার রঙে।

লালাখালের নীল পানিতে

তাসলিমা পারভীন বুলাকী : ঘড়িতে তখন বেলা সাড়ে ১২টা। আমাদের ভাড়া করা সিএনজি অটোরিকশা সমান গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে- গন্তব্য লালাখাল, সিলেট।

সৌন্দর্যের নতুন দিগন্ত ‘বালিখলা বেড়িবাঁধ’

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি: কিশোরগঞ্জ হাওরসমৃদ্ধ জেলা। বর্ষাকালে হাওর হয়ে উঠে সৌন্দর্যের এক নতুন দিগন্ত। বিভিন্ন হাওর পয়েন্টে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ছুটে আসেন ভ্রমণপ্রিয় মানুষ।

দেখে এলাম দিঘা

সুমন্ত গুপ্ত: ঘড়িতে তখন রাত প্রায় ১২টা। আমি আর মামা জমিয়ে আড্ডা দিচ্ছি। মামীর ডাকে আড্ডা ভঙ্গ হলো।

সপ্তম পর্ব || রোবটের দেশে

হোটেল কামরায় মাথায় সাহেবি হ্যাট পরা যে দুই তরুণী ঠোঁটের কোণায় মিষ্টি হাসি দিতে দিতে ঘর মোছার কাজ করছিল তাদের দেখেই আমার মায়া লেগে যায়।

ষষ্ঠ পর্ব || বৃষ্টিমাখা সন্ধ্যা

আকিহারাবায় হাঁটাহাঁটি করে ক্লান্ত। রাতের খাওয়া হয়ে গেছে সাড়ে নটার মধ্যে। এবার  হোটেলে ফেরার পালা। আমি লাভলু ভাইকে বলি, ট্যাক্সি নেন, হোটেল যাবো।

খৈয়াছড়া ঝরনার দুঃখ

ইকরামুল হাসান শাকিল: ‘ঝরো-ঝরো ঝরো-ঝরো ঝরে রঙের ঝরনা/ আয় আয় আয় আয় সে রসের সুধায় হৃদয় ভরে না/ সেই মুক্ত বন্যা ধারায় ধারায় চিত্ত মৃত্যু-আবেশ হারায়।’

পঞ্চম পর্ব || টোকিও ট্যুর

গাড়িতে বসে আমরা টোকিও’র প্রায় সব গল্প শুনে ফেলি।

হনুমান ধোকায় একদিন

গাজী মুনছুর আজিজ: দরবারে প্রবেশ পথের এক প্রান্তে বেশ বড় আকৃতির হনুমান। পাঠক, চমকে ওঠার কারণ নেই। ওটা আসলে হনুমানের মূর্তি।

চতুর্থ পর্ব || টোকিও’র রবীন্দ্রনাথ

বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে প্রশস্ত রাস্তা। আমি দাঁড়িয়ে থাকি, আমার হাতে নতুন কেনা অসমো প্লাস। এই ক্যামেরা আমার ফোন দিয়ে চলে, ওজনে হালকা।