ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৬ চৈত্র ১৪২৬, ০৯ এপ্রিল ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

পান চাষে স্বাবলম্বী হচ্ছেন চাষিরা

হিলি (দিনাজপুর) সংবাদদাতা : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০২-১৯ ১:১২:৪৬ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০২-১৯ ১:১২:৪৬ পিএম

দিনাজপুরের হিলিতে পান চাষ করে স্বাবলম্বী হয়ে উঠেছে পান চাষিরা। গত বছরের চেয়ে এবছরে তিনগুণ দাম বেশি পাচ্ছেন তারা।

পান চাষ লাভজনক হওয়ায় প্রত্যন্ত গ্রাম অঞ্চলেও নতুন করে পানের বরজ তৈরি করছেন নতুন পান চাষিরা। এবিষয়ে অভিজ্ঞ চাষিদের থেকে পরামর্শ নিচ্ছেন নতুন চাষিরা। এছাড়া, জটিল বিষয়ে কৃষি অফিসেও যাচ্ছেন তারা।

অনুসন্ধানে দেখা গেছে, এবারের ঘনকুয়াশা ও তীব্র শীতের তেমন প্রভাব পড়েনি পানের বরজে। চাহিদার তুলনায় উৎপাদন কম হওয়ায় বাজারে পানের দাম কিছুটা ইদানিং বেড়েছে। ফলে গেলো বছরের চেয়ে এই বছরে পানের দাম বাজারে তিনগুণ দাম বেশি।

পান বাজার ঘুরে জানা যায়, এক পোয়া ঝারা পান (বড় পাতা) ৪০ বেড়ায় এক পোয়া পাইকারি বাজারে যার মূল্য ৫০০০ থেকে ৫২০০ টাকা। খুচরা মূল্য ৫৫০০ থেকে ৬০০০ টাকা। ৬৪ পান পাতায় এক বেড়া যার দাম ১২৫ থেকে ১৩০ টাকা। খুচরা মূল্য যার ১৩৫ থেকে ১৪০ টাকা। মাঝারি পান পাইকারি বাজারে ২৫০০ থেকে ২৮০০ টাকা পোয়া। খুচরা মূল্য ৩০০০ থেকে ৩২০০ টাকা পোয়া। যার বেড়া প্রতি ৬৫ থেকে ৭০ টাকা। খুচরা মূল্য ৭৫ থেকে ৮০টাকা।  ছোট পান ৮০০ থেকে ১০০০ টাকা পোয়া। পাইকারি যার খুচরা মূল্য ১২০০ থেকে ১৩০০ টাকা। প্রতি বেড়া পান পাইকারি ২৫ থেখে ৩০ টাকা। যার খুচরা  ‍মূল্য ৩৫ থেকে ৪০ টাকা।

হিলি সীমান্তের ঘাসুড়িয়া গ্রামের পান চাষি সোহারফ হোসেন রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘এক বিঘা করে তিনটি পানের বরজ আছে আমার। প্রায় ৩৫ থেকে ৪০ বছর পর্যন্ত আমি পান চাষ করে আসছি। নিজের বরজে নিজেই সব কাজ করি। প্রতিদিন সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত পান পরিচর্যা করি। আমার বরজে ঝুট্টা ও কিছু গাটা জাতীয় পান আছে। এবছর পানের ফলন ভাল হয়েছে। অন্যান্য বছরে শীত কুয়াশায় পান নষ্ট হয়। কিন্তু এবছর প্রচুর কুয়াশা ও শীতে তেমন কোন ক্ষতি হয়নি পানের। প্রতি হাটে তিনটি বরজ থেকে প্রায় তিন পোয়া পান বরজ থেকে নামাই আমি। যার  ‍মূল্য পাই ৯০০০ টাকা। পান চাষ ছাড়া অন্য কোন চাষাবাদ করি না। এটি চাষ করে ছেলেমেয়েদের নিয়ে খুব ভাল আছি।’

ঘাসুড়িয়া গ্রামের আরেক পান চাষি মোকবুল হোসেন রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘পরিবার পরিজনদের সঙ্গে নিয়ে পানের বরজের পরিচর্যা করে আসছি। এবছর আমার বরজে ঝাড়া পান বেশি পেয়েছি। পুরাতন পান শেষের দিকে। নতুন পানপাতা বের হতে শুরু করেছে। তবে কিছু ঝাড়া (বড়পাতা) পান আগালে রেখেছি ভাল দাম পাবো বলে। কয়েকদিন পর পানের বাজার আরও চড়া হবে। তখন ঝাড়া (বড়পাতা) পান নামাবো এবং বেশি দামে বিক্রি করতে পারলে ভাল লাভ হবে।  সংসারের সকল চাহিদা মেটাবো।’

হিলি বাজারের পান ব্যবসায়ী বোরহান হোসেন রাইজিংবিডিকে জানান, অন্যান্য বছরের তুলনায় এবছরে এসময় পানের দাম অনেক বেশি। প্রতি বছর এসময় পানের দাম কম থাকে। বড় পান ৫০ টাকা মাঝারি ২৫ ও ছোট পান ১০ টাকা দর। প্রতিটি পান তিনগুণ বেশি দামে কিনতে হচ্ছে বাজারে। এতে করে প্রভাব পড়ছে পানের খিলির দোকানে।

হাকিমপুর (হিলি) উপজেলা কৃষি অফিসার শামীমা নাজনীন রাইজিংবিডিকে জানান,অন্য বছরের চেয়ে এবছর পান চাষ ভাল হয়েছে।  কোন প্রাকৃতিক দুর্যোগের প্রভাব পড়েনি তাদের পানের বরজে। রোগ-বালাইও কম হয়েছে। এছাড়া, আমরা প্রতিনিয়ত তাদের পানের বরজ পরিদর্শন করছি। সার খৈল ও স্প্রেসহ নানা পরামর্শ দিয়ে আসছি কৃষকদের। এবছর প্রায় ৩৬ হেক্টর জমিতে ৩৫৫টি বরজে পান চাষ করেছেন চাষিরা। ভালো ফলন ও দাম বেশি পাওয়ায় কৃষকরা দিন দিন পান চাষে আগ্রহী হচ্ছেন। এখানকার উৎপাদিত পান স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে দেশের বিভিন্নস্থানে পাঠানো হচ্ছে।



মোসলেম/বুলাকী

     
 

আরো খবর জানতে ক্লিক করুন : দিনাজপুর, রংপুর বিভাগ