ঢাকা, শুক্রবার, ৩০ কার্তিক ১৪২৬, ১৫ নভেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

প্রত্যেক রাশির জন্য আদর্শ বন্ধু

এস এম গল্প ইকবাল : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৮-০৪ ৩:০৩:৩৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৮-০৪ ৩:০৩:৩৫ পিএম
প্রতীকী ছবি

এস এম গল্প ইকবাল : বন্ধু ছাড়া জীবন অচল বললেই চলে। আবার অসৎ বন্ধুর পাল্লায় পড়ে সচল জীবনও হয়ে যেতে পারে অচল। একারণে মুরুব্বিরা যার তার সঙ্গে চলাফেরা করতে নিষেধ করেন। কথায় আছে- সৎসঙ্গে স্বর্গবাস, অসৎসঙ্গে সর্বনাশ। উদাহরণস্বরূপ, আপনার বন্ধুটি সিগারেট ফুঁকলে আপনারও একটা টান মারতে ইচ্ছে হবে অথবা আপনার বন্ধুটি প্রায়সময় মেয়েদেরকে টিজ করলে আপনার মনও একটা-দুইটা অশ্লীল কথা শুনাতে উসখুস করবে।

বন্ধু যেমন চোরাবালি হতে পারে, তেমনি বন্ধু হতে পারে সুন্দর জীবনের নিয়ামকও। একারণে আমাদেরকে বন্ধু নির্বাচনে সচেতনতার পরিচয় দিতে হবে।

ডাইনামাইট অ্যাস্ট্রলজির প্রতিষ্ঠাতা ক্যারোলিন ফকনার হলেন একজন নামকরা জ্যোতিষী। ইন স্টাইল ও ভোগের মতো জনপ্রিয় ম্যাগাজিন তার রাশি সংক্রান্ত লেখা প্রকাশ করে। ফকনারের মতে, আপনার রাশি অনুসারে আপনার সর্বোত্তম বন্ধুটি কেমন হতে পারে তা নিয়েই এ প্রতিবেদন।

* মেষ রাশি (মার্চ ২১ - এপ্রিল ১৯) : জ্যোতিষী ফকনারের মতে, মেষ রাশির জাতক-জাতিকারা সর্বোত্তম বন্ধুদের মধ্যে বিপরীত কিছু চায়। মেষ হলো স্পষ্টবাদী, কর্মঠ ও লড়াকু বা উদ্যমশীল রাশি। এ রাশির সঙ্গে তুলা রাশির সবচেয়ে ভালো সম্পর্ক গড়ে ওঠতে পারে, কারণ উভয় রাশির জাতক-জাতিকাদের মধ্যে বিপরীত গুণাবলী রয়েছে। মেষ রাশি পরিবর্তনে বিশ্বাসী, অন্যদিকে তুলা রাশি শান্তি বজায় রাখতে পরিবর্তনে আগ্রহী নন। উভয় রাশি একে অপরকে বোঝাতে পারে। মেষ রাশির জাতক-জাতিকাদের জীবনে বেশি করে শান্তির প্রয়োজন হয় এবং তুলা রাশির জাতক-জাতিকারা তাদেরকে শান্তিতে থাকতে সাহায্য করতে পারে। যেহেতু মেষ ও তুলা রাশির মধ্যে বিপরীত গুণাবলী রয়েছে, তাই কিছু বিষয়ে একে অপরের সঙ্গে তীব্র মনোনালিন্য হতে পারে। একারণে প্রায়শ দেখা যায় যে, মেষ ও কুম্ভ রাশির জাতক-জাতিকাদের মধ্যে ভালো বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে ওঠেছে: উভয়ের মধ্যে প্রবল কৌতূহল, উদ্দীপনা ও উদ্যম থাকে।

* বৃষ রাশি (এপ্রিল ২০ - মে ২০) :  বৃষ রাশির জাতক-জাতিকারা সহজে মেজাজ হারাতে পারেন। একারণে তাদের এমন বন্ধু প্রয়োজন যে বাস্তবতা বোঝাতে সক্ষম হবে, যেমন- কন্যা রাশির জাতক-জাতিকা। ফকনার বলেন, ‘সাধারণত বৃষ রাশির জাতক-জাতিকারা কন্যা রাশির বন্ধুদের প্রতি খুব বিশ্বস্ত থাকে এবং তারা এ সম্পর্কে সর্বোচ্চ শান্তি পেতে পারে। এর কারণ হলো, কন্যা রাশির বন্ধুরা সততার প্রশংসা করে ও বাস্তবতাকে মেনে নিতে অবদান রাখে।’ বৃষ রাশির জাতক-জাতিকারা কন্যা রাশির বন্ধুদের উপকারের কথা ভুলেন না এবং তারা বন্ধুদের প্রতি উদার থাকেন।

* মিথুন রাশি (মে ২১ - জুন ২০) : মিথুন রাশির লোকেরা হলো মিশুক প্রকৃতির। তারা হাসি-তামাশা অথবা পার্টি পরিবেশ পছন্দ করেন। তারা গল্প করতে ভালোবাসেন। তারা চায় যে, তাদের বন্ধুরাও তাদের মতো হোক। ফকনার বলেন, ‘মিথুন রাশির জাতক-জাতিকারা বিরক্তি ও গৎবাঁধা জীবন এড়াতে তাদের মতো স্বভাব রয়েছে এমন কাউকে বন্ধু হিসেবে চান। তারা সাধারণত কুম্ভ অথবা মিথুন রাশির জাতক-জাতিকাদের সঙ্গে বন্ধুত্ব করেন।’ রঙ্গ-তামাশা করে বলে মিথুন রাশির লোকদেরকে অবহেলা করার কোনো অবকাশ নেই, তাদের মধ্যে উদ্যমশীলতা ও বুদ্ধিভিত্তিক কার্যক্রমও লক্ষ্য করা যায়। মিথুন রাশির লোকেরা যাদের সঙ্গে বন্ধুত্ব করেন, সাধারণত তাদের মধ্যেও চ্যালেঞ্জ নেয়ার ক্ষমতা অথবা একই মাত্রার গুণাবলী থাকে।

* কর্কট রাশি (জুন ২১ - জুলাই ২২) : মিথুন রাশির মতো কর্কট রাশির লোকেরাও নিজেদের গ্রুপ থেকে বন্ধু নির্বাচন করতে পছন্দ করেন, অর্থাৎ তারা এমন কারো সঙ্গে বন্ধুত্ব করতে চান যাদের মধ্যে তাদের মতো স্বভাব রয়েছে। ফকনার বলেন, ‘কর্কট রাশির জাতক-জাতিকা ও তাদের বন্ধুরা একে অপরকে প্রশংসা ও মূল্যায়ন করেন এবং তারা প্রায়শ একত্রে সময় কাটান। কর্কট রাশির ইমোশনাল রাডার ব্যতিক্রমধর্মী, তাই তাদের পক্ষে এটা নির্ধারণ করা সহজ যে কে তাদের সঙ্গে খাপ খাবে অথবা কে খাপ খাবে না। কর্কট রাশির লোকেরা তাদের বিপরীত রাশির সঙ্গেও বন্ধুত্ব করতে আগ্রহী হতে পারে, যেমন- মকর রাশি। উভয়েই নিরাপত্তা ও স্থায়িত্ব চান এবং পারিবারিক রীতিনীতি মেনে চলার চেষ্টা করেন।’ উভয় রাশির মধ্যে বৈপরীত্যতার একটি কারণ হলো: কর্কট রাশির লোকেরা সেনসিটিভ হলেও মকর রাশির জাতক-জাতিকারা নন, অর্থাৎ মকর রাশির লোকেরা সহজে আবেগতাড়িত বা প্রভাবিত হন না।

* সিংহ রাশি (জুলাই ২৩ - আগস্ট ২২) : সিংহ ও কুম্ভ রাশির লোকেরা সহজেই অন্যদেরকে প্রভাবিত করতে পারে। প্রকৃতিগতভাবে উভয় রাশির জাতক-জাতিকাদের মধ্যে শক্তিশালী সম্পর্ক গড়ে ওঠে। ফকনার বলেন, ‘সিংহ ও কুম্ভ রাশির লোকেরা একে অপরের সঙ্গে বন্ধুত্ব না করে পারেন না।’ মাঝেমাঝে কুম্ভ রাশির লোকেরা তাদের সিংহ রাশির বন্ধুদের প্রতি উদাসীন হতে পারেন, কিন্তু এতে সিংহ রাশির লোকেরা তেমন কিছু মনে করেন না এবং তারা কুম্ভ রাশির লোকদের মানসিক অবস্থা বোঝার চেষ্টা করেন। সাহসী, বন্ধুভাবাপন্ন সিংহ রাশির জাতক-জাতিকা তাদের বন্ধুদের মানসিক বিপর্যয় কাটাতে উদ্যোগ নিয়ে থাকেন অথবা প্রাণশক্তি ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করেন। তারা বন্ধুদের স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্য অথবা অনন্য সেন্সকে শ্রদ্ধা করেন।

* কন্যা রাশি (আগস্ট ২৩ - সেপ্টেম্বর ২২) : অন্যকে দেখভাল বা সেবাযত্ন করার ক্ষেত্রে কন্যা রাশির জুড়ি মেলা ভার। এ রাশির লোকেরা বন্ধুদেরকে খুব ভালোবাসেন, যদি বন্ধুরা তাদেরকে মূল্যায়ন করে। আবেগীয় সমর্থনের জন্য কন্যা রাশির জাতক-জাতিকা অতুলনীয় বললেই চলে। ফকনার বিশ্বাস করেন যে, সততা ও সমর্থনের প্রশ্নে কন্যা রাশির লোকেরা ১০/১০ পাওয়ার যোগ্য। সেনসিটিভ কর্কট রাশি ও বিশ্বস্ত বৃষ রাশির জাতক-জাতিকার সঙ্গে কন্যা রাশির ভালো সম্পর্ক গড়ে ওঠে। কর্কট ও বৃষ রাশির সঙ্গে কন্যা রাশির বন্ধুত্ব চূড়ায় ওঠার আরেকটি কারণ হলো: কন্যা রাশির লোকেরা ভালোবাসার প্রতিদান চায় এবং কর্কট ও বৃষ রাশির লোকেরা প্রতিদান দিতে জানে।

* তুলা রাশি (সেপ্টেম্বর ২৩ - অক্টোবর ২২) : তুলা রাশির লোকেরা সুমিষ্ট স্বভাবের অধিকারী হয়ে থাকেন। তারা সবার সঙ্গে সহজে মিশতে পারেন, একারণে বন্ধু বানানো তাদের জন্য কঠিন কোনো বিষয় নয়। ফকনার বলেন, ‘তুলা রাশির জাতক-জাতিকারা প্রশান্তির জন্য বন্ধু বানিয়ে থাকেন।’ এ রাশির জাতক-জাতিকাদের খোলামন ও কূটনীতিক স্বভাবের কারণে তারা প্রত্যেক রাশির লোকদের মধ্যে কিছু না কিছু ভালো দেখতে পায়, তাই যে কারো সঙ্গে এদের বন্ধুত্ব হলে অবাক হওয়ার কিছু নেই। তুলা রাশির জাতক-জাতিকা নিজেদের কঠোর পরিশ্রম বা সাধনার প্রশংসা শুনতে অথবা মূল্যায়ন পেতে ভালোবাসেন, একারণে বিশ্বস্ত বৃষ রাশির লোকদের সঙ্গে তাদের সবচেয়ে ভালো সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

* বৃশ্চিক রাশি (অক্টোবর ২৩ - নভেম্বর ২১) : বৃশ্চিক রাশির জাতক-জাতিকারা গভীর ও টেকসই বন্ধুত্ব চান। এ রাশির লোকেরা বন্ধুদেরকে অন্যদের চেয়ে ভালোভাবে জানতে বা বুঝতে চান এবং তারা এ সম্পর্ককে খুব গুরুত্ব সহকারে দেখেন। যেহেতু বৃশ্চিক রাশির লোকেরা আবেগপ্রবণ বন্ধু হয়ে থাকেন, তাই সেসব লোকের সঙ্গে তাদের সবচেয়ে ভালো সম্পর্ক হয় যাদের মধ্যে তাদের মতো অনুরূপ গুণাবলী রয়েছে। ফকনার বলেন, ‘সাধারণত বৃশ্চিক রাশি ও মীন রাশির জাতক-জাতিকাদের মধ্যে সবচেয়ে ভালো বন্ধুত্ব হয়। মীন রাশির লোকেরা খুব বন্ধুবৎসল হয়ে থাকেন এবং তারা বন্ধুদেরকে সমর্থন করেন। মীন রাশির জাতক-জাতিকারা বন্ধুদের মানসিক অস্থিরতা দূর করতে চেষ্টা করেন এবং তারা বন্ধুদের সমস্যাকে নিজের সমস্যা মনে করে সমাধানের উপায় খুঁজেন।’ বৃশ্চিক ও মীন রাশির লোকেরা বন্ধুত্বকে খুব গুরুত্ব দেন বলে তাদের মধ্যে সবচেয়ে ভালো সম্পর্ক সৃষ্টি হয়।

* ধনু রাশি (নভেম্বর ২২ - ডিসেম্বর ২১) : ধনু রাশির লোকজন অ্যাডভেঞ্চার বা দুঃসাহসিক অভিযান খুব ভালোবাসেন। একারণে তাদের এমন সঙ্গী প্রয়োজন যে দুঃসাহসিক অভিযান বা ঝুঁকিপূর্ণ কাজের জন্য মানসিকভাবে প্রস্তুত, তাই কুম্ভ ও মেষ রাশির জাতক-জাতিকারা ধনু রাশির লোকদের সর্বোত্তম বন্ধু হতে পারে। ফকনার বলেন, ‘এই তিন রাশির লোকেরা দুঃসাহসিক ভ্রমণে খুব আগ্রহী এবং তারা ঝুঁকি নিয়ে জীবনকে উপভোগ করতে একে অপরকে উৎসাহিত করেন। সাধারণত এই তিন রাশির জাতক-জাতিকারা সৎ ও স্পষ্টবাদী হয়ে থাকে।’ এদের মধ্যে সবচেয়ে হাসিখুশি থাকে ধনু রাশির লোকজন, কিন্তু তার মানে এই নয় যে তারা অর্থবহ বা গুরুত্বপূর্ণ কাজ করে না।

* মকর রাশি (ডিসেম্বর ২২ - জানুয়ারি ১৯) : মকর রাশির লোকজন সহজে সবার সঙ্গে মিশতে পারেন না। তাদের এমন বন্ধু প্রয়োজন যে তাদেরকে বুঝবে এবং নিজেদেরকে উন্মোচনে উৎসাহিত করবে। বিশ্বকে বাস্তবতার নিরিখে দেখার ক্ষেত্রে মকর ও কন্যা রাশির মধ্যে নৈকট্যতা সবচেয়ে বেশি। মকর রাশির লোকেরা কন্যা রাশির লোকদের ডেডিকেশন বা অবদানের কথা ভুলে যান না। ফকনার বলেন, ‘পরামর্শ ও প্রতিশ্রুতির ক্ষেত্রে মকর রাশির লোকজন ১০ এ ১০ পাবে।’ কিন্তু মকর রাশির জাতক-জাতিকার প্রত্যেক স্বভাবের সঙ্গে বন্ধুর প্রত্যেক স্বভাব মিলে গেলে তীব্র তিক্ততা বা মনোমালিন্য হতে পারে। এক্ষেত্রে মকর রাশি ও মীন রাশির জাতক-জাতিকাদের মধ্যে তুলনামূলক ভালো বন্ধুত্ব হতে পারে।

* কুম্ভ রাশি (জানুয়ারি ২০ - ফেব্রুয়ারি ১৮) : ফকনার বলেন, ‘কুম্ভ রাশির লোকজন নতুন কিছু উদ্ভাবন করতে চান এবং তাদের প্রচলিত প্রথার বিরুদ্ধে যাওয়ার প্রবণতা রয়েছে।’ একারণে তাদের এমন বন্ধু প্রয়োজন যারা এ রাশির জাতক-জাতিকাদের বুদ্ধিমত্তাকে মূল্যায়ন করবে এবং উদ্যমশীলতা বৃদ্ধিতে প্রেরণা যোগাবে। কুম্ভ রাশির জাতক-জাতিকাদের পুরোনো প্রথা ভাঙার ক্ষমতা আছে বলে মেষ ও সিংহ রাশির লোকেরা তাদেরকে পছন্দ করেন এবং মীন ও মিথুন রাশির লোকেরা তাদের সৃজনশীলতাকে সাধুবাদ জানান। ফকনার বলেন, ‘কুম্ভ রাশির লোকজন শৃঙ্খলাবদ্ধ থাকতে পছন্দ করেন না, তারা মুক্ত পাখির মতো বিচরণ করতে চান এবং তারা বিশেষ কিছু করে বিশেষ অনুভূতি পেতে চান। সাধারণত এ রাশির লোকজন কর্কট, বৃশ্চিক ও মীন রাশি থেকে সবচেয়ে ভালো বন্ধু পেতে পারেন।’

* মীন রাশি (ফেব্রুয়ারি ১৯ - মার্চ ২০) :  মীন ও কুম্ভ রাশির জাতক-জাতিকারা খুব ভালো বন্ধু হতে পারে, কারণ উভয়ের মধ্যে স্বাধীনচেতা মনোভাব রয়েছে। ফকনার বলেন, ‘মীন ও কুম্ভ রাশির লোকজন প্রথা বা সমাজের চোখ রাঙানিকে ভয় করেন না এবং তাদের স্বাধীনভাবে কাজ করার প্রবণতা রয়েছে।’ মীন রাশির জাতক-জাতিকাকে অন্য রাশির লোকজন সহজে বুঝতে পারে না। মীন রাশির একজন জাতক মীন রাশির আরেকজন জাতকের সঙ্গে সহজে বন্ধুত্ব করেন না- এ বিষয়ে আপনি নিশ্চিত থাকতে পারেন।

তথ্যসূত্র : রিডার্স ডাইজেস্ট

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/৪ আগস্ট ২০১৯/ফিরোজ

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন