ঢাকা, মঙ্গলবার, ৫ কার্তিক ১৪২৬, ২২ অক্টোবর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

আর কতদিন খেলবেন শোয়েব মালিক?

ইয়াসিন : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০১-০৯ ৬:১৭:৩০ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০১-০৯ ৬:১৭:৩০ পিএম

ক্রীড়া প্রতিবেদক : জাতীয় দলের ব্যস্ত সূচির ফাঁকে বিপিএলে চার ম্যাচের জন্য এসেছেন শোয়েব মালিক। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের জার্সিতে এরই মধ্যে খেলেছেন দুই ম্যাচ। বিপিএলের সিলেট-পর্বের আগে আরো দুই ম্যাচ খেলবেন। এরপর উড়াল দেবেন দক্ষিণ আফ্রিকায়। কুমিল্লা কেবল ফাইনাল খেললেই আবার ঢাকায় আসবেন এই অলরাউন্ডার।

পাকিস্তানের হয়ে ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টি খেলার পাশাপাশি ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটের নিয়মিত মুখ মালিক। ব্যাট-বল হাতে পারফর্ম করে যাচ্ছেন নিয়মিত। ৩৬ বছর বয়সি এই ক্রিকেটারের ১৯৯৯ সালে পাকিস্তানের হয়ে ওয়ানডে অভিষেক হয়। পারফরম্যান্সের ওঠা-নামা ছিল পুরো ক্যারিয়ারে। কিন্তু নিজেকে বরাবরই মেলে ধরার চেষ্টা করেছেন ডানহাতি ব্যাটসম্যান। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে দলে থিতু হয়েছেন ভালোভাবে। পাকিস্তানের হয়ে ২৭৪ ওয়ানডের পাশাপাশি খেলেছেন একাধিক বিশ্বকাপ।

২০০৯ সালে পাকিস্তান যেবার টি-টোয়েন্টি চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল, সেই দলেও ছিলেন তিনি। ২০১৭ চ্যাম্পিয়নস ট্রফি জিততে দলের হয়ে বড় অবদান রাখেন মালিক। সামনেই ২০১৯ বিশ্বকাপ। ইংল্যান্ডেই হতে পারে তার ক্যারিয়ারের শেষ ওয়ানডে বিশ্বকাপ। তবে টি-টোয়েন্টি খেলা চালিয়ে যেতে চান আরো কিছুদিন। ২০২০ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলে ব্যাট-প্যাড তুলে রাখতে চান মালিক।

বুধবার মিরপুর শের-ই-বাংলায় কুমিল্লার এই ক্রিকেটার বলেছেন, ‘আমি ইতিবাচক থাকতে চাই এবং আমার খেলাটা উপভোগ করতে চাই। সব সময় পারফর্ম কেমন করছি, সেটা গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠে না। আমার উপস্থিতি, আমার অভিজ্ঞতা, তরুণদের অনুপ্রেরণা, বড় কিছু। ড্রেসিং রুমে ভিন্ন আবহ নিয়ে আসবে। তরুণ ক্রিকেটারদের গড়ে তোলার জন্য সিনিয়র ক্রিকেটারদের ভূমিকা অনেক। শুধু ড্রেসিং রুমে নয়, মাঠেও আমার উপস্থিতি গুরুত্বপূর্ণ। অধিনায়ক যেদিন থেকে আমাকে আড়াল করার চেষ্টা করবে সেদিনই আমি অবসরে যাব। এখন পর্যন্ত আমার লক্ষ্য ২০১৯ বিশ্বকাপ খেলা। টি-টোয়েন্টির ক্ষেত্রে আমি ২০২০ বিশ্বকাপও খেলতে চাই। এরপর অবসরের ভাবনা।পাকিস্তান দলে পারফর্ম করেই টিকে আছেন মালিক। নিজেকে ফিট রাখার পাশাপাশি ২২ গজে পারফর্ম করার গোপন রহস্য কি জানতে চাইলে মালিক বলেছেন,‘আমার গোপন রহস্য প্রতিদিন অনুশীলন করা। আমি বিশেষ ডায়েট অনুসরণ করি পাশাপাশি ক্রিকেট উপভোগ করি। আমার কাজটা আমি উপভোগ করি বলেই আমি ফল পাচ্ছি। এটা আমাকে এগিয়ে নিচ্ছে। যেখানেই খেলছি সেখানেই সহযোগীতা পাচ্ছি।’

৩৭ ছোঁয়ার অপেক্ষায় থাকা মালিক নিজের খেলা চালিয়ে যেতে অনুপ্রেরণা নিচ্ছেন দলের প্রাক্তন ক্রিকেটারদের থেকে। মিসবাহ-উল-হক, শহীদ আফ্রিদি, ইউনিস খান সবাই অবসরে নিয়েছেন ‘বুড়ো’ বয়সে। কয়েকমাস আগে বাবা হাওয়া মালিক উপভোগ করছেন বর্তমান সময়টা। বাবা হওয়ার পর নিজের ভেতরে অনেক পরিবর্তনও এসেছে বলে জানালেন তিনি।

‘আমি যখন ওর আশেপাশে থাকি তখন সব সময় ওর সঙ্গে খেলি। যদি বাইরে থাকি, ভ্রমণে যাই তাহলে ভিডিও কলে কথা বলি। সম্প্রতি ভিডিও কলে কথা বলার প্রবণতা অনেক বেড়ে গেছে। বাবা হওয়ার পর পুরো পৃথিবী বদলে গেছে। এটা আসলে শব্দ দিয়ে আমি বলে বোঝাতে পারব না। আমি খুবই খুশি।’



রাইজিংবিডি/ঢাকা/৯ জানুয়ারি ২০১৯/ইয়াসিন/পরাগ

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন