ঢাকা, সোমবার, ৫ কার্তিক ১৪২৬, ২১ অক্টোবর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

সিজারে শিশুর মাথায় কাঁচির ক্ষত

সাকিরুল কবীর রিটন : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৭-১২ ৪:২২:১০ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৭-১২ ৬:৩০:৩২ পিএম

যশোর সংবাদদাতা : যশোর কিংস হাসপাতালে এক প্রসূতির সিজার করার সময় গর্ভের সন্তানের মাথায় কাঁচি লাগিয়ে ক্ষত করে ফেলেছেন ডা: আতিকুর রহমান। ঘটনার দুইদিন পর শিশুটির অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাকে যশোর আড়াইশ’ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

যশোর সদরের সতীঘাটা পান্থাপাড়া গ্রামের বাসিন্দা ইকরাম হোসেনের গর্ভবতী স্ত্রী নাজনীন নাহার ১০ জুলাই বুধবার সন্ধ্যায় ভর্তি হন ডা: আতিকুর রহমানের মালিকানাধীন কিংস হাসপাতালে। ইকরাম হোসেন জানান, ‘ভর্তির পরপরই কোন রকম পরীক্ষা-নিরীক্ষা ছাড়াই ডা: আতিকুর রহমান তাঁর স্ত্রীর অপারেশন করেন। অপারেশন করার সময় গর্ভে থাকা শিশুটির মাথায় অপারেশন কাজে ব্যবহৃত কাঁচির পোচ লাগে। মাথার চাঁদিতে গভীর ক্ষত সৃষ্টি হয়।’

স্বজনরা নবজাতকের মাথায় রক্ত দেখে একটু উত্তেজিত হয়ে উঠলে ডা: আতিক তাদের ধমক দিয়ে বলেন, ‘এটা কিছু না, সামান্য ব্যাপার। নখের আঁচড়, এমন হয়ে থাকে। ওই অবস্থায় দুইদিন তার হাসপাতালে রেখে দেন শিশুটিকে। গুরুত্ব দিয়ে আলাদা কোন চিকিৎসা দেয়া বা বিষেশজ্ঞ কোন ডাক্তার দেখানো হয়নি।

শিশুটির পিতা জানান, বৃহস্পতিবার রাতে শিশুটি নিস্তেজ হয়ে খাওয়া ছেড়ে দিলে তারা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন। তখনও কিংস হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এই শিশুটির চিকিৎসার কোন ব্যবস্থা নেয়নি। বরং শুক্রবার সকালে কর্তৃপক্ষ শিশু ও তার মাকে ডিসচার্জ করে বাড়ি পাঠানোর চেষ্টা করে। শিশুর অবস্থার অবনতি হওয়ায় তার পিতা শুক্রবার সকাল ১০টায় তাকে যশোর আড়াইশ’ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করেন।

যশোর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক কাজল মল্লিক জানান, শিশুটির মাথায় কিছুটা কাটা রয়েছে। কি কারণে কাটা হয়েছে, তা জানি না। এ ব্যাপারে ডা: আতিকুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, এটা তেমন কোন বড় ঘটনা না। এটা অপারেশনের সময় হতেই পারে।

জানা গেছে, ডা: আতিকুর রহমান গাইনি বিশেষজ্ঞ নন। তিনি ছিলেন যশোর আড়াই’শ শয্যা হাসপাতালের একজন মেডিকেল অফিসার।


রাইজিংবিডি/যশোর/১২ জুলাই ২০১৯/সাকিরুল কবীর রিটন/সাজেদ/শাহনেওয়াজ

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন