ঢাকা, শুক্রবার, ১৯ চৈত্র ১৪২৬, ০৩ এপ্রিল ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

ভাবিকে হত্যায় দেবরের মৃত্যুদণ্ড

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০২-২৪ ২:৩৩:১৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০২-২৪ ২:৩৩:১৫ পিএম

কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে ভাবিকে হত্যার দায়ে দেবর বাসির উদ্দিনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

একই সঙ্গে দণ্ডপ্রাপ্তকে এক লাখ টাকা জরিমানা ও মামলার অন্য পাঁচ আসামিকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়েছে।

সোমবার বেলা ১২টায় কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আব্দুর রহিম এ রায় দেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত বাসির উদ্দিন পলাতক থাকায় তার অনুপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করা হয়। তবে এসময় খালাস পাওয়া অন্য পাঁচ আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

বাসির উদ্দিন জেলার কুলিয়ারচর উপজেলার লক্ষ্মীপুর গ্রামের মৃত মনির উদ্দিনের ছেলে।

মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, জেলার কুলিয়ারচর উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রামের আম্বিয়া খাতুনের সঙ্গে মাদ্রাসা শিক্ষক জজ মিয়ার বিয়ে হয়। তাদের সংসারে এক ছেলে ও তিন মেয়ে ছিল। তবে স্বামী ও তার পরিবারের লোকজন আম্বিয়ার ওপর পরকীয়ার অভিযোগ আনেন। এ নিয়ে স্বামীর পরিবারের সঙ্গে তার কলহ তৈরি হয়। এর জের ধরে আম্বিয়া তার বাবার বাড়ি চলে যান। পরে তাকে আবার ফিরিয়ে আনেন তার স্বামী।

এ সময় আম্বিয়া সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন। তাকে ফিরিয়ে আনার বিষয়টি জজ মিয়ার ভাই, আম্বিয়ার দেবর বাসির ও তার পরিবারের লোকজন সহজভাবে নেননি। ২০০২ সালের ২ মে গভীর রাতে স্বামীর অনুপস্থিতে বাসির ও কয়েকজন সহযোগী নিয়ে সিঁধ কেটে ঘরে ঢুকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন আম্বিয়াকে।

এ ঘটনায় আম্বিয়ার চাচা কায়েসউদ্দিন বাদী হয়ে ঘটনার পরদিন বাসিরের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আসামিদের বিরুদ্ধে কুলিয়ারচর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কুলিয়ারচর থানার উপ-পরিদর্শক মো. আনোয়ার হোসেন বাসিরসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে একই বছরের ২৪ অক্টোবর আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। দীর্ঘ শুনানি শেষে আজ বিচারক এ রায় দেন।

মামলার রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী জীবন কুমার রায় জানান, প্রধান আসামি বাসিরকে গ্রেপ্তারের কিছুদিন পর তিনি জামিন পেয়ে আর আদালতে হাজির হননি। বর্তমানে তিনি পলাতক রয়েছেন।

 

রুমন/বুলাকী

     
 

আরো খবর জানতে ক্লিক করুন : কিশোরগঞ্জ, ঢাকা বিভাগ
ট্যাগ :