ঢাকা, সোমবার, ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০১ জুন ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

‘যবিপ্রবিতে প্রতিদিন ২০০ রোগীর করোনা পরীক্ষা সম্ভব’

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৪-০১ ৯:২০:০৮ এএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৪-০১ ৯:২২:৩৮ এএম

প্রস্তুত যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. আনোয়ার হোসেন বলেছেন, করোনাভাইরাসের পরীক্ষা নিরীক্ষার জন্য প্রস্তুত যবিপ্রবির জিনোম সেন্টার।

বুধবার (১ এপ্রিল) তিনি বলেন, যবিপ্রবিতে প্রয়োজনীয় নিজস্ব যন্ত্রপাতি, দক্ষজনবল, ল্যাব আছে।  সরকার চাইলে যেকোনও  মুহূর্তেই সেখানেই পরীক্ষা-নিরীক্ষা সম্ভব।  শুধুমাত্র কিট সরবরাহ করলেই সেখানে প্রতিদিন ২০০ রোগীর নমুনা পরীক্ষা করা যাবে।

প্রফেসর ড. আনোয়ার হোসেন বলেন, যবিপ্রবি জিনোম সেন্টার আধুনিকমানের। এটি করোনার পরীক্ষা-নিরীক্ষা জন্য শতভাগ উপযোগী। ইতিমধ্যে আমি জেলা প্রশাসককে প্রস্তাবনা দিয়েছি।  গত ২৫ মার্চ সিভিল সার্জনের নেতৃত্বে তিন সদস্য জিনোম সেন্টার পরির্দশন করেছেন।  আমাদের এখানে স্যাম্পল পাঠালেই পরীক্ষা করে দিতে পারবো।  আরএনএ, ডিএনএ নিয়ে কাজ করতে কোনও  সমস্যা নেই।  এই ল্যাবরেটরি উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন।  এখানে সব সুযোগ সুবিধা রয়েছে।  এটি ব্যবহারে বাড়তি কোনও অর্থ কিংবা সময় লাগবে না।

ভিসি বলেন, এই ল্যাবে এক সঙ্গে ১২টি স্যাম্পল অ্যানালাইসিস করতে পারে।  সেই হিসেবে বেশি লোক নিয়োগ করে দিনে ২০০ স্যাম্পল অ্যানালাইসি করা সম্ভব হবে।  অর্থাৎ প্রত্যেক দিন ২০০ রোগীর স্যাম্পল পরীক্ষা করা সম্ভব হবে। আমাদের সক্ষমতার বিষয়টি স্বাস্থ্য অধিদপ্তরসহ সংশ্লিষ্টদের অবহিত করেছি।

আনোয়ার হোসেন বলেন, সরকার দেশের বিভিন্ন স্থানে পিসিআর ল্যাব স্থাপন করছে। সেখানকার জনবলের প্রশিক্ষণ দেওয়ার লোক লাগলে আমরা সহযোগিতা করতে পারবো। প্রক্ষিশণ দেওয়ার মতো যথেষ্ট দক্ষ জনবল যবিপ্রবিতে আছে।  সরকার চাইলে আমাদের কাজে লাগাতে পারবে।  যবিপ্রবি সব সময় প্রস্তুত আছে।

যশোরের সিভিল সার্জন ডাক্তার সেখ আবু শাহীন বলেন, আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাবটি দেখেছি। সেখানে করোনার পরীক্ষা করা সম্ভব।  আমরা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও আইইডিসিআর কর্তৃপক্ষকে লিখিতভাবে অবহিত করেছি। সেখান থেকে সাড়া পেলেই যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ব বিদ্যালয়ের ল্যাবে করোনা পরীক্ষা করা যাবে।

তিনি আরো বলেন, খুলনা বিভাগের মধ্যে যশোর যেহেতু মধ্যবর্তী জেলা এখানে করোনার পরীক্ষা করা গেলে অন্য জেলার সুবিধা হবে।

 

যশোর/রিটন/সাইফ

     
 

আরো খবর জানতে ক্লিক করুন : যশোর, খুলনা বিভাগ