ঢাকা, শনিবার, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ৩০ মে ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

চেয়ারম‌্যান তাড়ালেন, ইউএনও দিলেন ‘ভালোবাসার থলে’

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৪-০৭ ৫:৪৯:০৭ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৪-০৭ ৫:৪৯:০৭ পিএম

করোনা পরিস্থিতিতে চরম অভাবে থাকা দরিদ্র ২৬ জন নারী-পুরুষ ত্রাণের আশায় গিয়েছিলেন চেয়ারম্যানের কাছে। দীর্ঘ চার ঘণ্টা অপেক্ষার পর চেয়ারম্যানের লোকজন ত্রাণ দেওয়ার পরিবর্তে দরিদ্র পরিবারগুলোকে মারধর করে তাড়িয়ে দেন।

বিচার জানাতে হতভাগ‌্য মানুষগুলো উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দপ্তরে যান। সেখানে গিয়ে পেলেন ত্রাণ ভর্তি ‘ভালোবাসার থলে’। ঘটনাটি চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়ন পরিষদের।

সাধারণ মানুষের অভিযোগের বরাত দিয়ে হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রুহুল আমিন রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘কর্মহীন অবস্থায় অনাহারে-অর্ধাহারে থাকা ২৬ জন নারী-পুরুষ গতকাল সোমবার (৬ এপ্রিল) সকাল ১১টার দিকে কিছু ত্রাণ সহায়তার জন্য মির্জাপুর ইউনিয়ন পরিষদে যান। চেয়ারম্যান এলে তাদের হাতে ত্রাণ দেওয়া হবে বলে দীর্ঘ সময় অপেক্ষায় রাখা হয়। বিকেল ৩টার দিকে ত্রাণ দেওয়া হবে না বলে ইউনিয়ন পরিষদ থেকে চলে যেতে বলেন চেয়ারম্যানের ভাই এবং অন্যান্যরা।

‘ত্রাণ ছাড়া এই দরিদ্র মানুষরা ইউনিয়ন পরিষদ ছেড়ে যেতে না চাইলে তাদেরকে লাঠিপেটা করে ইউনিয়ন পরিষদ থেকে তাড়িয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ করেন তারা। পরে এই ঘটনার প্রতিকার চাইতে তারা উপজেলা সদরে নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে অবস্থান নেন।”

ইউএনও রুহুল আমিন বলেন, ‘পুরো ঘটনা জেনে অসহায় দরিদ্র মানুষগুলোর হাতে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ‘ভালোবাসার থলে’ তুলে দেওয়া হয়। তবে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে তারা থানায় অভিযোগ করতে রাজি হয়নি।’

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক্ত একাধিক ভুক্তভোগী জানান, সরকারের পক্ষ থেকে ইউনিয়ন পরিষদে অনেক ত্রাণ সহায়তা এসেছে। তবে চেয়ারম্যান দরিদ্র মানুষগুলোকে ত্রাণ দিচ্ছেন না। তারা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে সরকারি ত্রাণ আত্মসাতেরও অভিযোগ করেন।

এ ব্যাপারে জানতে হাটহাজারী মির্জাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল আবছারের সাথে একাধিকবার মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।


রেজাউল/সনি

     
 

আরো খবর জানতে ক্লিক করুন : চট্টগ্রাম, চট্টগ্রাম বিভাগ