ঢাকা, শুক্রবার, ২৫ আষাঢ় ১৪২৭, ১০ জুলাই ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

খুলনায় গণপরিবহনে অতিরিক্ত যাত্রী বহন বন্ধে মাঠে পুলিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৬-০৬ ৩:০০:২৮ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৬-০৬ ৩:০০:২৮ পিএম
সড়কে গণপরিবহনে অতিরিক্ত যাত্রী বোঝাই রোধে তৎপর কেএমপি সদস্যরা

করোনাভাইরাস রোধে সামাজিক দূরত্ব না মেনে মহানগরীতে চলাচলরত গণপরিবহনে অতিরিক্ত যাত্রী বোঝাই ও চাঁদাবাজি নিয়ন্ত্রণে মাঠে নেমেছে পুলিশ। এরই অংশ হিসেবে শুক্রবার থেকেই গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ও বাস টার্মিনাল এলাকায় তদারকি শুরু করেছেন খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ (কেএমপি) সদস্যরা।

দায়িত্ব পালনকালে পুলিশ সদস্যরা নগরীর অভ্যন্তরীণ রুটগুলোতে চলাচলরত ইজিবাইক ও মাহিন্দ্রা থেকে ৩ জনের বেশি যাত্রী নামিয়ে দিয়ে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলার পরামর্শ দিচ্ছেন। এছাড়া সোনাডাঙ্গা আন্তঃজেলা বাস টার্মিনাল থেকে বিভিন্ন রুটগামী পরিবহন থেকে চাঁদাবাজি বন্ধে ব্যাপক তৎপরতা চালায় তারা।

গত ৩১ মে থেকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে অফিস, আদালত, গণপরিবহন, বিপণী বিতান, হাট-বাজারে সাধারণ মানুষকে যাতায়াত ও কর্মকাণ্ড পরিচালনার নির্দেশনা দিয়েছে সরকার। কিন্তু খুলনার রাস্তায় ইজিবাইক ও মাহিন্দ্রায় চলাচলরত যাত্রী-চালক কেউই সামাজিক দূরত্ব না মানায় পুলিশ মাঠে নেমেছে। প্রতিদিনই এভাবে রাস্তায় পুলিশের তৎপরতা চলবে বলে কেএমপির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। এছাড়া পরিবহনের মালিক সমিতি, শ্রমিক ইউনিয়ন, রুট সমিতিসহ বিভিন্ন নামে চলা চাঁদাবজি বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে কেএমপি।

সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্রে জানা গেছে, খুলনা থেকে সাতক্ষীরা, পাইকগাছা, যশোর, বাগেরহাট, মোংলা, পিরোজপুরসহ অভ্যন্তরীণ রুটে চলাচলরত প্রতিটি বাস থেকে মালিক সমিতি, শ্রমিক ইউনিয়ন, রুট সমিতির নামের টাকা উত্তোলন করা হয়। এ সব চাঁদার টাকা উত্তোলন নিয়ে শ্রমিকদের মধ্যে নানা অসন্তোষ দেখা গেছে। প্রতিটি বাস থেকে ট্রিপ প্রতি ৩০০ থেকে ৪০০ টাকা পর্যন্ত চাঁদা দেওয়া হয়।

এ বিষয়ে খুলনা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি শেখ নুরুল ইসলাম বেবী বলেন, বর্তমানে শ্রমিক ইউনিয়নের পক্ষ থেকে কোনো টাকা উত্তোলন করা হয় না। বাস চালুর পরপরই পুলিশের পক্ষ থেকে টাকা উত্তোলন করতে নিষেধ করা হয়। আমরা সেই নির্দেশনা মেনেই কাজ করছি।

সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে যাত্রী পরিবহনে বিশেষ নজরদারির বিষয়টি নিশ্চিত করে খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার শেখ মনিরুজ্জামান মিঠু বলেন, এ বিষয় মনিটরিংয়ের জন্য মহানগর পুলিশ কাজ করছে। এছাড়া পরিবহনে সবপ্রকার চাঁদা উত্তোলন বন্ধের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এ নির্দেশনা কার্যকর করতে মাঠে পুলিশের তৎপরতা জোরদার করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।



নূরুজ্জামান/এসএম

       
 

আরো খবর জানতে ক্লিক করুন : খুলনা, খুলনা বিভাগ