ঢাকা     শনিবার   ০৮ আগস্ট ২০২০ ||  শ্রাবণ ২৪ ১৪২৭ ||  ১৮ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

কিশোরগঞ্জ পৌর শহরের দুঃখ যে সড়ক 

|| রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০১:৪৮, ৫ জুলাই ২০২০  

কিশোরগঞ্জ পৌর শহরের প্রায় এক কিলোমিটার সড়ক দুর্গন্ধ ও খানাখন্দে ব্যবহার অনুপযোগী। সড়কটির দু’পাশেই ময়লা আবর্জনা স্তুপ।বৃষ্টির পানিতে সে ময়লা পঁচে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে।

পৌর শহরের ভেতরে এমন রাস্তায় মানুষ প্রতিনিয়ত কষ্ট পেলেও পৌর কর্তৃপক্ষের যেন নজরেই পড়েনা। দীর্ঘদিন সড়কটির সংস্কার না হওয়ায় ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী ও এ রাস্তায় চলাচলকারী সাধারণ মানুষ।

রমিজ মিয়া নামের একজন রিকশাচালক জানালেন- এই রাস্তা দিয়ে রিকশা নিয়া গেলে দুর্গন্ধে পেটের নাড়িভুড়ি উল্টে আসতে চায়। এরপর খানাখন্দ তো আছেই। 

রমিজ মিয়া জানান, বছরের পর বছর এ রাস্তাটি ভাঙা থাকলেও কোন উন্নয়ন দেখা যায়নি। কোন যাত্রী যদি এ রাস্তা দিয়ে যেতে চায় প্রথমেই তাকে না বলতে হয়। তবুও যদি নিয়ে যেতে হয় ভাড়া বেশি দিলে তবেই তিনি তাকে নিয়ে যান। 

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, কিশোরগঞ্জ পৌর শহরের ভেতরে রাস্তাটি মূল সড়ক থেকে হরিজন পল্লীর সামনে দিয়ে নগুয়া এলাকার এতিমখানা সড়কের সাথে মিশেছে। প্রায় এক কিলোমিটার রাস্তার পুরো অংশই ভেঙে ছোট বড় গর্ত তৈরি হয়েছে। দু'টি এলাকার সংযোগ সড়ক হওয়ায় এ রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ যাতায়াত করে। সড়কটির বেহাল দশায় অল্প বৃষ্টিতেই হাঁটু পর্যন্ত পানি জমে থাকে। যার ফলে প্রায় সময়ই ঘটে থাকে ছোট ছোট দুর্ঘটনা।

এখানের বত্রিশ এলাকার বাসিন্দা পায়েল চৌধুরী বলেন, ‘প্রতিদিনই আমাদের এ রাস্তা দিয়ে চলাচল করতে হয়। কিন্তু রাস্তাটির বেহাল দশায় কোন যানবাহন যেতে চায়না। ফলে পায়ে হেঁটে ময়লা ও কাঁদাপানি মাড়িয়ে যেতে হয়।'

স্থানীয় আরেক বাসিন্দা মানিক চন্দ্র দাস বলেন, ‘এ রাস্তা দিয়ে সহজে পৌর শহরের বিভিন্ন প্রান্তে যাওয়ার সুবিধা রয়েছে। অনেকেই রাস্তাটিকে বাইপাস হিসেবেও ব‌্যবহার করেন। গত কয়েক বছর ধরেই রাস্তাটির এমন দুরাবস্থা  কিন্তু দেখার কেউ যেন নাই। এলাকার কোন সন্তান সম্ভবা মা বা অসুস্থ রোগীকে জরুরীভাবে এ রাস্তা দিয়ে কোনভাবেই হাসপাতাল পর্যন্ত নেয়া সম্ভব নয়। রাস্তাটির আশেপাশে ময়লা-আবর্জনার স্তুপে অস্বাস্থ‌্যকর পরিবেশ তৈরি হওয়ায় দুর্গন্ধে পথচলা আরো কঠিন হয়ে পড়েছে।' 

এ ব‌্যাপারে কিশোরগঞ্জ পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. ইয়াকুব সুমন বলেন, ‘রাস্তাটি পৌরসভার ৬নং ও ৯নং ওয়ার্ডে অন্তর্ভূক্ত। দীর্ঘদিনের সমস‌্যা খুব শিগগিরই লাঘব হতে চলেছে। ইতোমধ‌্যে রাস্তাটি সংস্কারের জন‌্য টেন্ডার প্রক্রিয়াও সম্পন্ন হয়েছে। আশা করছি, খুব দ্রুত রাস্তাটির সংস্কার কাজ শুরু করা যাবে। রাস্তাটি সংস্কারের পাশাপাশি এলাকাবাসীর সুবিধার্ধে বাসাবাড়ির ময়লা-আবজর্না সরিয়ে নেয়ার সঠিক ব‌্যবস্থাও করা হবে।'

কিশোরগঞ্জ পৌরসভার সচিব মো. হাসান জাকির বলেন, ‘রাস্তাটি আমি সরেজমিনে পরিদর্শন করেছি। করোনা পরিস্থিতির কারণে পৌরসভার কাজ স্থবির হয়ে আছে। দুটি রাস্তার টেন্ডার প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। একটি পৌর শহরের রেডক্রিসেন্ট মোড় থেকে নগুয়া বাইপাস এতিমখানা সংযোগ সড়ক পর্যন্ত। আরেকটি হরিজনপল্লীর সামনে থেকে পেছন মোড় পর্যন্ত। খুব দ্রুততম সময়ের মধ‌্যেই রাস্তা দুটির মেরামত কাজ শুরু হবে।'

 

রুমন/টিপু

রাইজিংবিডি.কম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়