ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ আষাঢ় ১৪২৭, ০২ জুলাই ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

কাজের মাধ্যমে প্রতিনিধিত্ব করতে চান রাকিব

গোলাম মোর্শেদ সীমান্ত : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৬-০৫ ৯:০০:৫২ এএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৬-০৫ ৯:০০:৫২ এএম

রাকিব আল হাসান শৈশব কাটিয়েছেন কুমিল্লায়। বর্তমানে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজে এমবিবিএস ফাইনাল ইয়ারে পড়াশোনা করছেন। ছোটবেলা থেকেই পড়ালেখার পাশাপাশি ভিন্ন কিছু করার ইচ্ছে ছিল তাঁর। ইচ্ছে আর চেষ্টার সংমিশ্রণে নানা কাজের সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন তিনি। কাজের স্বীকৃতি হিসেবে ২০১৯ সালে তিনি পেয়েছেন গ্লোবাল ইয়ুথ লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড। তাঁকে নিয়ে লিখেছেন গোলাম মোর্শেদ সীমান্ত।

আগে থেকেই লেখালেখির প্রতি একটা ঝোঁক ছিল রাকিবের। লেখালেখির পাশাপাশি বিরাট একটা সময় ব্যয় করেছেন রাজনীতি দর্শনে। যেখানে নিজেকে ইন্টেলেকচুয়ালি আরও বেশি সমৃদ্ধ হতে বিদেশি অনেক কূটনৈতিক, ডিপ্লোমেট ও লিডারদের সাথে যোগাযোগ করতে হয়, তাই সে সূত্রেই অনেক আন্তর্জাতিক সংস্থার সাথে জড়িয়ে পড়া। যেখানে মানুষের অধিকার, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, সমস্যা, সংকট, গণতন্ত্র নিয়ে কথা বলতে হয় অনেক বেশি৷ এভাবেই নানা কাজের সাথে আরও বেশি সক্রিয় হয়ে ওঠা। লেখালেখির শুরু হয় জাতীয় পত্রিকায় রম্য রচনা লিখে। ২০১৫ সালে ‘অবরুদ্ধ কারাগার’ কাব্যগ্রন্থটি দিয়ে তার লেখক জীবনের শুভ সূচনা ঘটে। এখন পর্যন্ত প্রকাশিত বইয়ের সংখ্যা সাত রাকিব আল হাসানের। সর্বশেষ ২০২০ সালের বইমেলায় স্কুটি (উপন্যাস) প্রকাশিত হয়েছে।

রাকিব আল হাসান দেশকে প্রতিনিধিত্ব করেছেন অনেকবার। দেশের জন্য অর্জন করেছেন বেশ কিছু পুরস্কার নিজের প্রতিভার দ্বারা। বর্তমানে কাজ করছেন বেশ কিছু আন্তর্জাতিক সংস্থার সঙ্গে, সেখানেও দেশকে প্রতিনিধিত্ব করছেন। গ্লোবাল ইয়ুথ পার্লামেন্টে গ্লোবাল ইয়ুথ অ্যাম্বাসেডর হিসেবে রয়েছে রাকিবের নাম।  অ্যাকসেস টু হিউম্যান রাইটস ইন্টারন্যাশনাল, এশিয়ান ইয়ুথ কাউন্সিলে ইয়ুথ অ্যাম্বাসেডর হিসেবে রয়েছে রাকিব। ইউরোপিয়ান ইয়ুথ অ্যাসোসিয়েশনে অ্যাম্বাসেডর হিসেবে দেশকে প্রতিনিধিত্ব করছেন বহুদিন যাবত।

কান্ট্রি কো-অর্ডিনেটর হিসেবে যুক্ত আছেন এশিয়া আফ্রিকা ইয়ুথ ফেডারেশনের সঙ্গে। করোনায় থমকে গেছে বিশ্ব, তবে রাকিবের কাজ থমকে যায়নি, করোনার সময় যুক্ত হয়েছেন তিনটা আন্তর্জাতিক সংস্থার সঙ্গে৷ এছাড়া আন্তর্জাতিক কিছু অনুষ্ঠানে ইন্টারনেটের বদৌলতে দেশকে প্রতিনিধিত্ব করেছেন৷ তৃতীয় এক্সিকিউটিভ মডেল ওআইসিতে বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করেছেন।

কসমোপলিটান টকসে বক্তা হিসেবে কথা বলেছেন এই করোনার সময়ে। প্রথম ইউরোপিয়ান ইয়ুথ ভার্চুয়াল সামিটে দেশকে প্রতিনিধিত্ব করেছে রাকিব আল হাসান৷ ১০ জুন থেকে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ৬ষ্ঠ কাজান ও আই সি এন্ট্রাপ্রেনারশিপ ফোরাম। সেখানে দেশকে প্রতিনিধিত্ব করছেন স্বপ্নবাজ রাকিব নিজের একটা প্রজেক্ট নিয়ে। কাজ করেই থেমে নেই রাকিবের পথচলা। কাজ করতে গিয়ে অর্জনের ঝুলিতে রয়েছে বেশ কিছু অর্জন। ২০১৯ সালে গ্লোবাল ইয়ুথ লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড অর্জন করেন। অ্যাম্বাসেডর হয়েছেন দ্বিতীয় সাউথ এশিয়ান ইয়ুথ লিডারশিপ আয়োজনের। এছাড়াও প্রায় শ’খানেক জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক অর্জন রয়েছে তার দখলে।

ভবিষ্যত পরিকল্পনা সম্পর্কে জানতে চাইলে রাকিব বলেন, ‘যেহেতু আমি পড়াশোনা করছি চিকিৎসা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে, সেহেতু আমার এলাকায় একটি আন্তর্জাতিক মানের হাসপাতাল তৈরি করব একদিন, এই স্বপ্ন দেখি৷ এছাড়া ইয়ুথ লিডারশিপ নিয়ে ইন্টারন্যাশনালি বাংলাদেশকে আরও বেশি প্রতিনিধিত্ব করা, তরুণদের জন্য বেশি বেশি প্ল্যাটফর্ম তৈরি করা। সবসময় দেশকে প্রতিনিধিত্ব করতে চাই নিজের কাজের মাধ্যমে।’

 

ঢাকা/হাকিম মাহি