ঢাকা, বুধবার, ২৭ কার্তিক ১৪২৬, ১৩ নভেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

পুঁজিবাজারে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য সাড়ে ৮০০ কোটি টাকা বরাদ্দ

এম এ রহমান মাসুম : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৫-০২ ১০:২৪:৪৬ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৫-০৪ ৬:১৪:২০ পিএম

এম এ রহমান : ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীদের জন্য পুনঃঅর্থায়ন তহবিলের সাড়ে ৮০০ কোটি টাকা বরাদ্দ পেয়েছে ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশ (আইসিবি)।

বর্তমান পুঁজিবাজারে লেনদেনে নিম্নগতির ধারা প্রতিরোধের লক্ষ্যে সুদ ও আসল হিসেবে আদায়কৃত ৮৫৬ কোটি টাকা আবর্তনশীল ভিত্তিতে পুন:ব্যবহার জন্য অর্থ বিভাগ এ বিষয়ে সম্মতি দেয়।

অর্থসচিব মোহাম্মদ আনিসু্জ্জামান খান সই করা চিঠির সূত্রে বৃহস্পতিবার এসব তথ্য জানা গেছে। চিঠিতে বলা হয়েছে, বর্তমান পুঁজিবাজারে লেনদেনে নিম্নগতির ধারা প্রতিরোধের লক্ষ্যে সুদ ও আসল হিসেবে আদায়কৃত ৮৫৬ কোটি টাকা আবর্তনশীল ভিত্তিতে পুন:ব্যবহার এবং তিন নির্দেশনাক্রমে অর্থ বিভাগের সম্মতি পাওয়া গেছে।

তিনটি বিষয় হলো-উক্ত তহবিলের মেয়াদ ২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বরের পরিবর্তে ২০২২ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত বর্ধিতকরণ ও সর্বশেষ বিতরণকৃত ঋণ পরিশোধের মেয়াদ ২০২৩ সালের ৩১ মার্চ পর্যন্ত নির্ধারণ।

উক্ত তহবিল হতে আইসিবির মাধ্যমে বিতরণকৃত ঋণের সুবিধাভোগী ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারী ছাড়াও বিস্তৃত পরিসরে মার্চেন্ট ব্যাংক, ব্রোকারেজ হাউজ ইত্যাদি মূলধন বাজারের অন্যান্য মধ্যবর্তী পক্ষগুলোসহ তারল্য যোগানের সম্ভাব্যতা নির্ধারণের জন্য বিএসইসি, আইসিবি ও বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে গঠিত বিদ্যমান তদারকি কমিটিকে দায়িত্ব প্রদান।

এবং চলমান ব্যবস্থার অনুবৃত্তিক্রমে তহবিলের সামগ্রিক তদারকি তদারকি কমিটির উপর ন্যস্তকরণ।

সম্প্রতি শেয়ারবাজারে দরপতন ঠেকাতে নিম্নসুদের ঋণ আকারে দ্রুত সে তহবিল চেয়ে অর্থ মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেয় সরকারের বিনিয়োগ প্রতিষ্ঠানটি। পুঁজিবাজারের স্থিতিশীলতার স্বার্থে স্বল্প ও মধ্য মেয়াদে আরো বেশকিছু সুপারিশ সরকারের কাছে তুলে ধরে তারা।

এদিকে বৃহস্পতিবার সকালে সহজ শর্তে শেয়ারবাজারে ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীদের জন্য ঋণ দেওয়ার সিদ্ধান্তের বিষয়টি সাংবাদিকদের অবগত করেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন।

ইকোনমিক রিপোর্টার্স ফোরামের (ইআরএফ) প্রাক-বাজেট আলোচনা সভায় বলেন, শেয়ারবাজার নিয়ে দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা রয়েছে। বর্তমান পুঁজিবাজার নিয়ে প্রধানমন্ত্রীও খুবই উদ্বিগ্ন। প্রধানমন্ত্রী বিশেষভাবে পুঁজিবাজারের বিষয়টি দেখভালের জন্য বলেছেন, ইতিমধ্যে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এক্সচেঞ্জের চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ ব্যাংকের চেয়ারম্যান সঙ্গে বৈঠক করছি। বৈঠকে ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীদের সহজ শর্তে ঋণ সুবিধা দেওয়ার চেষ্টা চলছে। আর এসইসি ও আইসিবি ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা নির্ধারণ করবে।

২০১০ সালে শেয়ারবাজার ধসের পর ক্ষতিগ্রস্ত ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের পুনঃঅর্থায়ন সহায়তা দিতে একটি তহবিল গঠন করেছিল সরকার। বাজার মধ্যস্থতাকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর সহায়তায় আগ্রহী বিনিয়োগকারীদের মধ্যে ঋণ বিতরণ ও আদায় শেষে সুদাসলে তা সরকারকে ফিরিয়ে দেয় তহবিল ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে থাকা আইসিবি।

মন্ত্রণালয় ও আইসিবি সূত্রে জানা গেছে, পুঁজিবাজারের স্বার্থে স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘমেয়াদে বিভিন্ন সুপারিশ তুলে ধরে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব বরাবর চিঠি দিয়েছে আইসিবি। স্বল্পমেয়াদি সুপারিশগুলোর মধ্যে দ্রুত তহবিল সরবরাহ করে আইসিবির বিনিয়োগ সক্ষমতা বাড়াতে বিভিন্ন করণীয় উল্লেখ করা হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীদের জন্য ৯০০ কোটি টাকার পুনঃঅর্থায়ন তহবিলের ৮০০ কোটি টাকা সরকারকে ফিরিয়ে দিয়েছে আইসিবি। কেন্দ্রীয় ব্যাংকে পড়ে থাকা এ ৮০০ কোটি টাকা পুঁজিবাজারে আনতে জরুরি ভিত্তিতে নিম্ন সুদের ঋণ আকারে তা পাওয়ার জন্য অর্থ মন্ত্রণালয়ে আবেদন করে আইসিবি।

 

 

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/২ মে ২০১৯/এম এ রহমান/সাইফ

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন