ঢাকা, শুক্রবার, ৩ মাঘ ১৪২৬, ১৭ জানুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

সামাজিক নিরাপত্তায় বরাদ্দ ৭৪,৩৬৭ কোটি টাকা

মোহাম্মদ নঈমুদ্দীন : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৬-১৩ ৫:৩৯:৩৪ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৬-১৩ ৫:৪৭:৪৭ পিএম

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : এবারের বাজেটে সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির আওতা বাড়ানো হয়েছে। এতে সুবিধা পাবেন প্রায় ৮৯ লাখ গরিব মানুষ। এজন্য বাজেটে সামাজিক নিরাপত্তা খাতে বরাদ্দ দেওয়া হচ্ছে ৭৪ হাজার ৩৬৭ কোটি টাকা, যা মোট বাজেটের ১৪ দশমিক ২১ শতাংশ।

বৃহস্পতিবার বিকালে জাতীয় সংসদে ২০১৯-২০২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে এই তথ্য জানানো হয়। বাজেট উপস্থাপন করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

৪ লাখ বয়স্ক মানুষকে ভাতা দেওয়া
বাজেটে সামাজিক সুরক্ষার আওতায় যেসব কর্মসূচির আওতা বাড়ছে সেগুলো হচ্ছে- আগামী অর্থবছরের বাজেটে নতুন করে আরো ৪ লাখ গরিব প্রবীণকে বয়স্ক ভাতা দেওয়া হবে। ফলে দেশ্যব্যাপী ৪৪ লাখ মানুষকে এ ভাতার আওতায় আনা হচ্ছে। বর্তমানে সারা দেশে বয়স্কভাতা পাচ্ছেন ৪০ লাখ প্রবীণ। এই ভাতা কর্মসূচি পরিচালনার জন্য আগামী বাজেটে সম্ভাব্য বরাদ্দ থাকছে ২ হাজার ৬৪০ কোটি টাকা।

বিধবা ভাতা পাবেন ১৭ লাখ নারী
২০১৯-২০২০ অর্থবছরের বাজেটে বিধবা ভাতা পাবেন ১৭ লাখ নারী। এজন্য প্রস্তাবিত বাজেটে বরাদ্দ রাখা হচ্ছে ১ হাজার ২০ কোটি টাকা। বর্তমান এ খাতে বরাদ্দ আছে ৮৪০ কোটি টাকা।

স্বামী কর্তৃক নিগৃহীতা বা বিধবা নারীদের এক ধরনের ভাতা কর্মসূচির আওতায় নতুন করে ৩ লাখ নারীকে যুক্ত করা হবে।

৫ লাখ অস্বচ্ছল প্রতিবন্ধী ভাতা পাবেন
নতুন করে ৫ লাখ অস্বচ্ছল প্রতিবন্ধীকে ভাতা দেওয়া হবে। নতুন পুরাতন মিলিয়ে আগামী অর্থবছরে ভাতা পাবেন ১৫ লাখ ৪৫ হাজার প্রতিবন্ধী। এজন্য প্রস্তাবিত বাজেটে বরাদ্দ রাখা হচ্ছে ১ হাজার ৩৯০ কোটি ৫০ হাজার টাকা।

বাজেটে এই কর্মসূচিতে নতুন করে ৭০ হাজার উপকারভোগীর সংখ্যা বাড়ানো হচ্ছে। বর্তমান ৭ লাখ দরিদ্র মাকে মাতৃত্বকালীন ভাতা দেওয়া হচ্ছে। নতুন অর্থবছরে এ সুবিধা দেওয়া হবে ৭ লাখ ৭০ হাজার জনকে। এ জন্য বরাদ্দ রাখা হচ্ছে ৭৩৯ কোটি ২০ লাখ টাকা।

তা ছাড়া, কর্মজীবী ল্যাকটেটিং মাদার সহায়তার আওতায় ২ লাখ ৭৫ হাজার মাকে সুবিধা দেওয়া হবে। বর্তমান এ সুবিধা পাচ্ছেন আড়াই লাখ কর্মজীবী ল্যাকটেটিং মাদার। বাজেটে বরাদ্দ দেওয়া হচ্ছে ২৬৪ কোটি টাকা। বর্তমান এ খাতে বরাদ্দ আছে ২৪০ কোটি টাকা।

চা শ্রমিকদের উন্নয়নে বরাদ্দ
সামাজিক নিরাপত্তা খাতের আওতায় চা শ্রমিকদের জীবনমান উন্নয়ন কর্মসূচির আওতায় সুবিধা দিতে নতুন করে আরো ১০ হাজার চা শ্রমিককে অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে। বর্তমানে ৪০ হাজার চা শ্রমিককে এ কর্মসূচির আওতায় সুবিধা দেওয়া হচ্ছে। যা আগামী অর্থবছরে সুবিধাভোগীর সংখ্যা ৫০ হাজারে উন্নীত করা হবে। এজন্য বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে ২৫ কোটি টাকা।

চলতি অর্থবছরের সংশোধিত বাজেটে এ খাতে বরাদ্দ ছিল ৬৪ হাজার ৪০৪ কোটি টাকা। ফলে চলতি অর্থবছরের বাজেটে বর্তমানে দেশব্যাপী প্রায় ৭৬ লাখ মানুষ সামাজিক সুরক্ষার আওতায় সুবিধা ভোগ করছেন।

দারিদ্র্য নিরসন ও বৈষম্য হ্রাসে সামাজিক নিরাপত্তা কৌশলপত্র ২০১৫ প্রণয়ন করা হয়েছে। এ ছাড়া, এই কৌশলপত্র বাস্তবায়নে ২০১৬-২১ সাল পর্যন্ত অ্যাকশন প্ল্যান অনুমোদিত হয়েছে। দারিদ্র্য নিরসনের লক্ষ্যে প্রতিবছর এ খাতে বরাদ্দ বাড়ানো হচ্ছে। নির্বাচনি ইশতেহার অনুযায়ী আগামী পাঁচ বছরে এ খাতে বরাদ্দ দ্বিগুণ করা হবে।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৩ জুন ২০১৯/নঈমুদ্দীন/সাইফুল

     
 

সংশ্লিষ্ট খবর: